স্পেনের জনসংখ্যার চেয়েও বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারী বেশি

আগের সংবাদ

করোনায় মৃতের সংখ্যা ২৪ হাজার ছুঁই ছুঁই

পরের সংবাদ

নায়িকা পরী মনির মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ

প্রকাশিত: আগস্ট ১৪, ২০২১ , ৫:১৯ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০২১ , ৯:১৪ অপরাহ্ণ

ঢালিউডের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরি মনির অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে। শনিবার (১৪ আগস্ট) বিকেলে বিক্ষুব্ধ নাগরিকজনের ব্যানারে এ সমাবেশ হয়। সমাবেশে অংশ নেন ট্রেড ইউনিয়ন নেতা, মানবাধিকারকর্মী, লেখক, প্রকাশক, চলচ্চিত্র পরিচালকসহ সংস্কৃতিমনা নাগরিক সমাজের অনেকেই।

সমাবেশের এক পর্যায়ে দূর লন্ডন থেকে টেলিফোনে যুক্ত হন সাংবাদিক ও কলামিস্ট আব্দুল গাফফার চৌধুরী। তিনি ফোনের মাধ্যমেই সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। পরীমণিকে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানান। মোবাইল ফোনে তিনি বলেন, ‘আপনাদের এ সমাবেশের সঙ্গে আন্তরিক সমর্থন জ্ঞাপন করছি। পরী মনিকে যেভাবে হ্যারেজ করা হয়েছে তার প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে মুক্তি দাবি করছি।’

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘সামান্য মাদক মামলায় একজন মানুষকে জামিন না দিয়ে দুইবার রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। যা অযৌক্তিক। আমরা অতীতে দেখেছি মাদক মামলায় অনেকে জামিনে বেরিয়েছে। তাহলে তাকে কেন বারবার জামিন নামঞ্জুর করে রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে। তিনি একজন শিল্পী, তার হেনস্তা মেনে নেওয়া যায় না। আমরা সরকার বিরোধী কোনও কথা বলছি না। আমরা সরকারকে অনুরোধ করি, আমাদের পরী মনিকে ফিরিয়ে দিন। আমরা তাকে আবারও শুটিং সেটে দেখতে চাই।’

পরী মনিকে নিয়ে নির্মিতব্য ‘প্রীতিলতা’ চলচ্চিত্রের পরিচালক রাশিদ পলাশ বলেন, ‘আমি চাই ইতিহাসের পাতায় লুকিয়ে থাকা বীরদের সব দর্শকের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে। এই লক্ষ্যেই প্রীতিলতা সিনেমাটি বানাতে চেয়েছিলাম। যার প্রধান চরিত্রে বেশ আগ্রহ নিয়ে কাজ শুরু করেছিলেন পরী মনি। আজ আমরা এখানে সেই প্রীতিলতার জন্য দাঁড়িয়েছি। আমরা পরীমণির মুক্তি চাই। তিনি একজন শিল্পী। একজন শিল্পীকে তার সম্মানটুকু দেওয়া উচিত। তাকে প্রাপ্য সম্মানটুকু দিয়ে আবার চলচ্চিত্র অঙ্গনে ফিরিয়ে দেয়া হোক।’

সমাবেশে লেখক ও মানবাধিকারকর্মী শ্বাসতী বিপ্লব বলেন, ‘‘যাকে যখন ভালো লাগবে না তাকে তখন ‘নষ্ট মেয়ে’র তকমা লাগিয়ে দেবেন। এটা হতে পারে না। কারা এই মেয়েদের নষ্ট করেছে? মৌলবাদীদের মতো মতো আপনারা এখন নারীদের চরিত্র হননে ব্যস্ত হয়ে গেছেন। এই কাজের জন্য আপনাদের আমরা ধিক্কার জানাই।’’

বিক্ষুব্ধ নাগরিকজনের আহ্বায়ক ও শ্রাবণ প্রকাশনীর স্বত্বাধিকার রবিন আহসান বলেন, ‘গণমাধ্যম টানা পরী মনিকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করছে। পুলিশ যেভাবে উপস্থাপন করছে, সংবাদমাধ্যমও সেভাবেই কাজ করছে! স্বাধীনতার ৫০ বছর পরে এই প্রথম এভাবে নারী নিপীড়নের সংবাদ প্রচার হচ্ছে। আমরা শুধু এখানে পরী মনির জন্য দাঁড়াইনি, আমরা দাঁড়িয়েছি বাংলাদেশের পুরো নারী সমাজের জন্য।’

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন মানবাধিকারকর্মী মুশফিকা লাইজু, নির্মাতা রায়হান জুয়েল, সংগীতা ঘোষ, প্রকাশক দেলোওয়ার হোসেন, যুব ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক খান আসাদুজ্জামান মাসুম, গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক আকরামুল হক, মুক্তিযোদ্ধা ও শ্রমিক নেতা আবুল হোসাইন প্রমুখ।

ডি-আরআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়