জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে মডেল মৌ

আগের সংবাদ

চীনের উপহারের আরও ১০ লাখ টিকা ঢাকায়

পরের সংবাদ

ফাইজার-মডার্না টিকার তৃতীয় ডোজের অনুমোদন

প্রকাশিত: আগস্ট ১৩, ২০২১ , ৭:১২ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১৩, ২০২১ , ৭:১২ অপরাহ্ণ

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য এবং ওষুধ প্রশাসন সংস্থা (এফডিএ) করোনাভাইরাসের টিকার তৃতীয় ডোজ প্রয়োগের অনুমোদন দিল। গতকাল বৃহস্পতিবার এই অনুমোদন দেওয়া হয়।

ফলে ফাইজার ও বায়োএনটেক এবং মডার্নার তৈরি টিকার তৃতীয় ডোজ দেওয়া হবে। তবে যাদের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা দুর্বল তাদের শুধুমাত্র এই ডোজ দেওয়া হবে।

শুক্রবার (১৩ আগস্ট) নিউইয়র্ক টাইমসের বরাদ দিয়ে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে গত বুধবার দায়িত্বশীল একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সিএনএন জানায়, যাঁদের রোগ প্রতিরোধব্যবস্থা দুর্বল, তাঁদের জন্য করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজের অনুমোদন দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এফডিএ এই ঘোষণা দিতে পারে। সেই ৪৮ ঘণ্টা পেরোনোর আগেই তৃতীয় ডোজ অনুমোদন পেল। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসকেরা বলছিলেন, দিন দিন এটা পরিষ্কার হচ্ছে, টিকা নেওয়ার পরও অনেকে এখনো ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ, করোনার বিরুদ্ধে সুরক্ষা দিতে তাঁদের রোগ প্রতিরোধব্যবস্থা যথেষ্ট শক্তিশালী হয়ে ওঠেনি।

সিডিসির তথ্যসূত্রে এনবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ২ দশমিক ৭ শতাংশ টিকা গ্রহীতার করোনা প্রতিরোধব্যবস্থা দুর্বল হয়ে পড়েছে বা নষ্ট হয়ে গেছে। তবে এটা ঠিক পরিষ্কার নয়, কারা পাবেন এই তৃতীয় ডোজ।

কারণ, যুক্তরাষ্ট্রে যাদের অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে অঙ্গপ্রত্যঙ্গ প্রতিস্থাপন করা হয়েছে, যাঁরা ক্যানসারে আক্রান্ত এবং যাঁরা এইডসে আক্রান্ত, তাঁদের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম। এছাড়া টিকার তৃতীয় ডোজ নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরে গবেষণা চালিয়ে আসছে ফাইজার।

গত জুলাইয়ে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ফাইজার বায়োএনটেকের টিকার তৃতীয় ডোজ করোনার মূল ভেরিয়েন্ট, বেটা ভেরিয়েন্ট ও দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে বেশি অ্যান্টিবডি তৈরি করছে।

করোনার টিকার দুই ডোজ দিলে যে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, তার চেয়ে ৫ থেকে ১০ গুণ বেশি অ্যান্টিবডি তৈরি হয় তৃতীয় ডোজে।

একইসঙ্গে ফাইজার ও বায়োএনটেকের পক্ষ থেকে এও বলা হয়, টিকার দুই ডোজ নেওয়ার পর ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে তৃতীয় ডোজ নেওয়ার প্রয়োজন হবে।

এর কারণ হিসেবে তারা বলেছে, টিকার দুই ডোজ বা পূর্ণাঙ্গ টিকা নেওয়ার পর ছয় মাস পর্যন্ত উচ্চ পর্যায়ের সুরক্ষা পাওয়া যায়। এরপর সময়ের সঙ্গে সঙ্গে টিকার কার্যক্ষমতা কমতে থাকে।

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়