তিন বন্ধু মোটরসাইকেলে ঘুরতে গিয়ে প্রাণ গেল এক জনের

আগের সংবাদ

ভেজা শরীর, গাল ভর্তি দাঁড়ি: চমকে যাওয়া লুকে ‘তরুণ’ শাহরুখ

পরের সংবাদ

২৩ বছর পর আবু তালেব শেখ ফিরে পেল তার পরিবার

প্রকাশিত: আগস্ট ৩, ২০২১ , ১:৪০ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ৩, ২০২১ , ১:৪০ অপরাহ্ণ

অবশেষে দীর্ঘ ২৩ বছর পর মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার আবু আবু তালেব শেখ (৫৮) জয়পুরহাট জেলার ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকদের চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল কতৃপক্ষ ও থানা পুলিশের সহযোগিতায় ফিরে পেল হারিয়ে যাওয়া আপন ঠিকানা ও আত্বীয়স্বজন।

জানা গেছে, গত ২৭ জুলাই মঙ্গলবার ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অসুস্থ হয়ে আবু তালেব নামে ৫৮ বছর বয়সী এক ওই চিকিৎসার জন্য ভর্তি হোন। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁর পরিচয় জানতে চাইলে বলেন, আমার নাম আবু তালেব শেখ এবং মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার কবুতর খোলা গ্রামের মৃত সবেদ আলী শেখের ছেলে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা. এস.এম গালিব আনোয়ার দৈনিক ভোরের কাগজ কে জানান, গত ২৭ জুলাই তিনি (আবু তালেব) ডায়রিয়া ও ডায়াবেটিস সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হোন। ডায়রিয়া কমে গেলেও ডায়াবেটিসের মাত্রা খুব বেশি থাকায় এবং শরীরে লবনের পরিমাণ কম থাকায় রোগীর অবস্থার এমন অবনতি হয় যে, আমরা অনেকটা ধরে নিয়েছিলাম তাঁকে মনে হয় বাঁচানো যাবে না। তবে আলহামদুলিল্লাহ আমরা সকলে মিলে পরামর্শ করে চিকিৎসা দিলে রোগী রাতের মধ্যে আরোগ্য লাভ করে এবং সকালে তিনি সুস্থ হয়ে বেডে বসে।

এরপর আমরা হাসপাতাল হতে ৯৯৯ এ ফোন করে সহযোগিতা নিয়ে শ্রীনগর থানায় যোগাযোগ করলে রোগীর আত্মীয় স্বজন আমার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করে এবং আমি ওই ভদ্রলোকের ছোট বোনের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান রনির ফোনে ছবি পাঠাই ও ভিডিও কলের মাধ্যমে তাদের দেখানোর ব্যবস্থা করি। ভিডিও কলে দেখে তাঁর বোন ও ভাগ্নেরা ওনাকে চিনতে পারে বলে নিশ্চিত করেন। আর এভাবেই ২৩ বছর পরে আবু তালেব শেখ ফিরে পায় তাঁর আপন ঠিকানা, সুখের নীড় এবং প্রিয় আত্মীয়স্বজন।

ভাগ্নে মোস্তাফিজুর রহমান রনি জানান, ১৯৯৮ সাল হতে তিনি নিখোঁজ ছিলেন এবং দীর্ঘ এই ২৩টি বছর পথে পথে পরিচয়হীন হয়ে পাগলের মতো ঘুরে বেরিয়েছেন ৫৮ বছর বয়সী আবু তালেব শেখ।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়