খালি হাতে ফিরল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা

আগের সংবাদ

হেটে গন্তব্যে যাচ্ছেন অনেক শ্রমিক

পরের সংবাদ

জলের রাজা রানী ড্রেসেল-ম্যাককেয়ন

প্রকাশিত: আগস্ট ১, ২০২১ , ১০:১৮ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১, ২০২১ , ১০:২০ অপরাহ্ণ

টোকিও অলিম্পিকে শেষ হয়ে গেছে সাঁতার প্রতিযোগিতা। আর এবারের টোকিওর সাঁতার ইভেন্টে সবচেয়ে বেশি আধিপত্য দেখিয়েছেন আমেরিকার পুরুষ সাঁতারু ক্যালেব ড্রেসেল ও অস্ট্রেলিয়ার নারী সাঁতারু এমা ম্যাককয়েন।

তারা দুজন দলগত ও ব্যক্তিগত ইভেন্টে পেয়েছেন সাফল্য। বিশেষ করে আমেরিকার ক্যালেব ড্রেসেল দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছেন। তিনি সাঁতারে দলগত ও ব্যক্তিগত ইভেন্ট মিলিয়ে মোট পাঁচটি স্বর্ণপদক জয় করেছেন। যা অলিম্পিকের ইতিহাসে অন্যতম সেরা সফলতার গল্প।

তিনি সাঁতারের মোট ছয়টি ইভেন্টে অংশ নেন। শুধু একটি ইভেন্টে কোনো পদক জয় করতে পারেননি। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ার নারী সাঁতারু এমা ম্যাককেয়ন জিতেছেন চারটি স্বর্ণপদক। সবমিলিয়ে তিনি এবারের অলিম্পিকে সাতটি পদক জয় করেছেন।

অলিম্পিকের ইতিহাসে অন্য কোনো নারী সাঁতারু শুধু একটি ইভেন্ট থেকে সাতটি পদক নিয়ে যেতে পারেননি। তবে পুরুষদের মধ্যে মোট তিনজন সাঁতারু অলিম্পিকের একটি আসর থেকে সাতটি পদক নিয়েছিলেন। তারা হলেন, কিংবদন্তি মাইকেল ফেলেপস, মার্ক স্পিজ ও ম্যাট বিওন্দি।

তাছাড়া পুরো অলিম্পিকের ইতিহাসে দ্বিতীয় অ্যাথলেট হলেন ম্যাককেয়ন, যিনি একটি অলিম্পিকে সাতবার পদক জয় করেছেন। ১৯৫২ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের জিমনাস্ট মারিয়া গোরোখোভসকায়া সাতটি পদক জিতেছিলেন।

এরপর আর কোনো নারী অ্যাথলেট তার ধারেকাছেও যেতে পারেনি। এবার ম্যাককেয়ন মারিয়া গোরোখোভসকায়ার রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন। এদিকে আমেরিকান সাঁতার ড্রেসেলকে নিয়ে এবার প্রত্যাশা বেশিই ছিল। কারণ অলিম্পিকে আসার আগে বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি।

ড্রেসেল তার প্রথম স্বর্ণপদকটি জয় করেন পুরুষ ৪০০ মিটার দলগত ফ্রিস্টাইল রিলেতে। এরপর ৪৭.০২ সেকেন্ড সময় নিয়ে নতুন অলিম্পিক রেকর্ড গড়ে পুরুষ ১০০ মিটার ব্যক্তিগত ইভেন্টে নিজের দ্বিতীয় পদকটি জয় করেন। নিজের তৃতীয় স্বর্ণপদক জেতেন তিনি পুরুষ ১০০ মিটার বাটারফ্লাই ইভেন্টে।

অস্ট্রেলিয়ার সাঁতারু এমা ম্যাককেয়ন

আর এ ইভেন্টে বিশ্ব রেকর্ড গড়েন তিনি। বিশ্ব রেকর্ড গড়তে তিনি ৪৯.৪৫ সেকেন্ড সময় নেন। ড্রেসেল ব্যর্থ হন মিশ্র ৪০০ মিটার দলগত ইভেন্টে। এ ইভেন্টে তিনি ও তার দেশ আমেরিকা কোনো পদকই জিততে পারেনি। তারা হয় চতুর্থ।

গতকাল ক্যালেব ড্রেসেল দুটি ইভেন্টে পদকের জন্য লড়াই করেন। প্রথমে তিনি খেলতে নামেন ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে। এ ইভেন্টেও অলিম্পিকের নতুন রেকর্ড গড়েন তিনি। ৫০ মিটার সাঁতার তিনি শেষ করেন ২১.০৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে।

এরপর সর্বশেষ পদকের জন্য গতকালই তিনি শেষ পদকের জন্য খেলতে নামেন দলগত ৪০০ মিটার মিডলে রিলেতে। এখানেও স্বর্ণ জেতেন তিনি। অন্যদিকে এমা ম্যাককেয়ন স্বর্ণপদক জেতেন ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে, ব্রোঞ্জপদক ১০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে, রৌপ্যপদক ৮০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে, স্বর্ণপদক ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে, ৪০০ মিটার মিশ্র মিডলে রিলেতে ব্রোঞ্জ।

এছাড়া ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে স্বর্ণপদক ও ৪০০ মিটার মিডলে রিলেতে স্বর্ণপদক জয় করেন। এর মধ্যে তিনি অলিম্পিক রেকর্ড গড়েছেন ৪০০ মিটার মিডলে রিলেতে, ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে, ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে। আর বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন মেয়েদের দলগত ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে।

তিনি মোট সাতটি ইভেন্টে অংশ নিয়েছেন। সবচেয়ে বড় ব্যপার হলো একটি ইভেন্টেও তিনি খালি হাতে ফেরেননি। যা পুরো অলিম্পিকের ইতিহাসে অনন্য এক কীর্তি।

আমেরিকার সাঁতারু মাইকেল ফেলেপস অলিম্পিকে মোট ২৮টি পদক জয় করেছিলেন। পুরুষদের সাঁতারে সব সময়ই আমেরিকার দাপট থাকে। মাইকেল ফেলেপস পেশাদার সাঁতারকে বিদায় জানিয়েছেন। কিন্তু সাঁতারে তার উত্তরসূরি ঠিকই তৈরি হয়ে গেছে। যিনি হতে পারেন আরেক মাইকেল ফেলেপস।

সেই সাঁতারু হলেন ক্যালেব ড্রেসেল। তিনি বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় ফেলেপসের রেকর্ড ভেঙে ফেলেছেন। টোকিও অলিম্পিক থেকে তিনি পাঁচটি স্বর্ণপদক নিয়ে গেছেন। ২০২৪ সালের প্যারিস অলিম্পিকেও যে তার আধিপত্য থাকবে এ নিয়ে কোন সন্দেহ নেই।

রি-এসএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়