বাবা হচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন

আগের সংবাদ

লকডাউনের পর বিচার চায় সিনহার পরিবার

পরের সংবাদ

এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম

প্রকাশিত: আগস্ট ১, ২০২১ , ৮:২৫ পূর্বাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১, ২০২১ , ৮:২৫ পূর্বাহ্ণ

পরাধীন ব্রিটিশ-ভারত থেকে পাকিস্তানের কালো অধ্যায় পেরিয়ে জন্ম হয় বাংলাদেশ নামক স্বাধীন রাষ্ট্রের। এই মহান অর্জনের সঙ্গে জড়িয়ে আছে ইতিহাসের মোড় ঘোরানো নানা ঘটনা, যার কারিগর হিসেবে কেউ আখ্যায়িত হয়েছেন নায়কের অভিধায়; কেউবা আবির্ভূত হয়েছেন খলনায়কের চরিত্রে। ইতিহাসের বাঁকে বাঁকে সেসব ঘটনা ও তার নায়ক-খলনায়কদের কার কি ভূমিকা, তাই নিয়েই অধ্যাপক আবু সাইয়িদের গ্রন্থ ‘যেভাবে স্বাধীনতা পেলাম’। সম্প্রতি ভোরের কাগজ প্রকাশন থেকে বের হয়েছে বইটি। এ বই থেকে ধারাবাহিকভাবে প্রতিদিন কিছু অংশ তুলে ধরা হচ্ছে ভোরের কাগজের পাঠকদের জন্য।

বঙ্গবন্ধু বিকল্প সরকার চালাতে লাগলেন। সব পেশা ও শ্রেণির জনগণ তার নির্দেশে এগুতে লাগল। ১৪ মার্চ বঙ্গবন্ধু ঘোষণা করলেন, বাঙালির স্বাধীনতার উদ্দীপনা কেউ দমাতে পারবে না। ১৫ মার্চ তিনি দেশের শাসনভার নিলেন। সফলভাবে অসহযোগ আন্দোলন দেশের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ল। গ্রাম জেগে উঠল। জঙ্গি হলো। প্রত্যেক থানায় ছাত্র-যুবক দ্রুত অস্ত্র প্রশিক্ষণে

নিয়োজিত হলো। যুদ্ধের কলা-কৌশল ও প্রশিক্ষণ চলল। দেশের সর্বত্র প্রায় প্রতিটি থানায় পুলিশের নিকট থেকে অস্ত্র নিয়ে নেয়া হলো।

বঙ্গবন্ধু বিভিন্ন নির্দেশ জারি করে বিকল্প সরকার চালাতে লাগলেন। সব পেশা ও শ্রেণির সরকারি কর্মচারী, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থাগুলো, জনগণ বঙ্গবন্ধুর নির্দেশমতো এগুতে লাগল। ১৪ মার্চ বঙ্গবন্ধু দৃঢ় কণ্ঠে ঘোষণা করলেন, ‘বাঙালিদের স্বাধীনতার উদ্দীপনা কেউ দমাতে পারবে না।’

১৫ মার্চ সোমবার সকাল। নবতর সূর্যের আভা। নতুন চেতনায় উদ্দীপ্ত বাঙালি জাতীয় স্বাধীনতা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এদিন বঙ্গবন্ধু দেশের শাসনভার গ্রহণ করলেন। স্বাধীন বাংলার লক্ষ্যে ঘোষণা করলেন ৩৫টি নির্দেশনামা।

এই নির্দেশনামা নানা কারণে তাৎপর্যপূর্ণ। ঘোষণায় বলা হয়, কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক সেক্রেটারিয়েট, সরকারি ও আধা সরকারি অফিসগুলো, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থাগুলো, হাইকোর্ট ও সমগ্র বাংলাদেশের অন্যান্য আদালত হরতাল পালন করবে। ঘোষণায় আওয়ামী লীগ সংগ্রাম পরিষদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রক্ষা করে সংগ্রাম পরিষদের কাজে সহায়তা করার জন্য ডিসি ও এসপিদের বলা হয়। পুলিশকে আওয়ামী লীগ স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীর সহায়তা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দেয়া হলো। (৩নং ঘোষণা) সড়ক, রেলওয়ে নৌযান সেনাবাহিনীর মোতায়েনের কাজ ব্যবহার করা যাবে না। (৪ ও ৬ নং নির্দেশ) বেতারে বঙ্গবন্ধুর সব নির্দেশ ও বিবৃতি প্রচারিত হবে।

আগামিকাল প্রকাশিত হবে ‘৭ মার্চ কেন একতরফা স্বাধীনতা ঘোষিত হয়নি ’
‘যেভাবে স্বাধীনতা পেলাম’- বইটি পাওয়া যাচ্ছে ভোরের কাগজ প্রকাশনে (ভোরের কাগজ কার্যালয়, ৭০ শহীদ সেলিনা পারভীন সড়ক, মালিবাগ, ঢাকা)। এছাড়া সংগ্রহ করা যাবে নযড়ৎবৎশধমড়লঢ়ৎড়শধংযধহ.পড়স থেকেও।

ডি-এফবি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়