অলিম্পিক মানে রেকর্ড ভাঙাগড়া

আগের সংবাদ

চট্টগ্রামে অতিভারী বর্ষণ, জলাবদ্ধতা শহরে

পরের সংবাদ

বাংলাদেশ- অস্ট্রেলিয়া লড়াই হবে সেয়ানে সেয়ানে

প্রকাশিত: জুলাই ২৯, ২০২১ , ১০:৫৪ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ২৯, ২০২১ , ১০:৫৪ অপরাহ্ণ

পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ঢাকায় পা রেখেছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। সবকিছু চূড়ান্ত থাকলেও অজিরা বাংলাদেশ সফরে আসবে কিনা তা নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনায় ডুবে ছিল টাইগার ভক্তরা। অবশেষে সব শঙ্কা দূর করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বার্বাডোস থেকে কোয়ান্টাসের চার্টার্ড বিমানে চেপে এ দিন বিকাল ৪টায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পা রাখেন মিচেল স্টার্করা। অজিরা বিমানবন্দর থেকে সোজা টিম হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে চলে যায়। সেখানে তিনদিনের কোয়ারেন্টাইন শেষে সফরকারীরা অনুশীলনের সুযোগ পাবেন। অবশ্য তার আগে দুই দফায় কোভিড-১৯ পরীক্ষায় নেগেটিভ হতে হবে। আগামী ৩, ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট হোম অফ ক্রিকেট মিরপুরে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের টি-টোয়েন্টি খেলবে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও সফরকারি অস্ট্রেলিয়া। প্রতিটি ম্যাচই হবে সন্ধ্যা ৬টায়।

নাজমুল আবেদীন ফাহিম

বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়ে বৃহস্পতিবার ভোরের কাগজের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন, বিকেএসপির ক্রিকেট উপদেষ্টা এবং ক্রিকেটারদের অভিভাবক খ্যাত নাজমুল আবেদীন ফাহিম ও জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার মেহরাব হোসেন অপি। মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে সাবেক এ ক্রিকেটার অপি সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত কিছু না বললে বেমানান হবে। বাংলাদেশ ২০০০ সালে ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়। ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নামেন মেহরাব হোসেন অপি। ভারতের বিপক্ষে তার ব্যাট থেকে আসে লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের প্রথম রান। ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান তিনি। ১৯৭৮ সালের ২২ সেপ্টেম্বর জন্ম নেয়া অপি ১৯৯৮ সালের ১৪ মে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক ঘটে। ১৯৯৯ সালে অপির ব্যাট থেকে আসে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুরি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তার সেই ১০১ রানের ইনিংসটি আজও বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের পাতায় জ্বলজ্বলে এক অধ্যায়। বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রথম সেঞ্চুরির সঙ্গে সঙ্গে ক্রিকেট ইতিহাসে এক ভয়াবহ অনাকাঙ্খিত ঘটনারও সাক্ষী হয়ে আছেন অপি। ঘরোয়া ক্রিকেটে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে খেলছিলেন তিনি। ব্যাটিংয়ের সময় সাইফুল্লাহ জেমের করা শর্ট বল মারার চেষ্টা করেন। কাছাকাছি ফিল্ডিংয়ে ছিলেন দিল্লির উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ও আবাহনী ক্রীড়াচক্রের ক্রিকেটার রমন লাম্বা। হেলমেটবিহীন মাথায় অপির মারা শট থেকে বল এসে লাগে তার। এ ঘটনার তিনদিন পর লাম্বার করুণ মৃত্যু ঘটে। এতে মানসিকভাবে বড় এক ধাক্কা লাগে অপির। কিছুদিন ক্রিকেট থেকেও দূরে থাকেন। এরপর ক্রিকেটে ফিরলেও আর তেমন ছন্দে আসতে পারেননি অপি। ২০০৩ সালে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারকে বিদায় জানালেও ঘরোয়া ক্রিকেটটা চালিয়ে গেছেন ২০০৯ পর্যন্ত। যদিও ২০১১ সালে ঢাকা মেট্রোর হয়ে দুটি ম্যাচ খেলতে মাঠে নামেন। ১৮টি ওয়ানডে ও ৯টি টেস্ট ম্যাচ খেলেন। যেখানে ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ২৪.৯৪ গড়ে ১টি সেঞ্চুরি ও দুটি হাফ সেঞ্চুরিতে তার রান মোট ৪৪৯। আর টেস্ট ক্যারিয়ারে ১৩.৩৮ গড়ে ২৪১ রান।

মেহরাব হোসেন অপি

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠে বাংলাদেশ ভালো করবে বলে ভোরের কাগজকে জানান মেহরাব হোসেন অপি। এ সম্পর্কে তার বিশ্লেষণ হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া দলে অনেক তারকা খেলোয়াড় নেই। বাংলাদেশের ইয়াং স্টাররা হোম গ্রাউন্ডের সুবিধে কাজে লাগিয়ে খেলতে পারলে ভালো ফলাফল হবে। শক্তির বিচারে এ মুহূর্তে দুই দলই সমানে সমান। যদিও র‌্যাংকিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার অবস্থান পঞ্চমে আর বাংলাদেশ দশে। মাঠে যে দিন যারা ভালো খেলে তারা সেদিন জিতে। এখানে র‌্যাংকিং কোনো বিষয় নয়।

বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজে মোস্তাফিজকে ম্যাচ উইনার বোলার হিসেবে দেখছেন সাবেক এ তারকা ব্যাটসম্যান। অস্ট্রেলিয়া দলের বোলিংয়ে মিচেল স্টার্ক এবং বাংলাদেশ দলে মোস্তাফিজ এ দুইজন ব্যাটসম্যানের জন্য বিপজ্জনক। সাকিব আল হাসান ব্যাটে-বলে জ্বলে উঠলে অস্ট্রেলিয়ার বিপদ বাড়বে। শরিফুল ইসলাম জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ভালো করলেও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তার জ্বলে ওঠার সম্ভাবনা কম বলে ভোরের কাগজকে জানান মেহরাব হোসেন অপি।

লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম এবং তামিম ইকবালকে এ সিরিজে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। এ সম্পর্কে জাতীয় দলের এ ক্রিকেটার জানান, এ তিন জনকে ছাড়াই বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। নতুন যারা দলে খেলার সুযোগ পেয়েছেন, তারা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে দলে পাকা জায়গা করে নিতে পারবে। বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া এ সিরিজে লড়াই হবে সেয়ানে সেয়ানে। বিশ্বকাপের আগে টাইগাররা নিজেদের প্রস্তুত করতে অস্ট্রেলিয়ারর বিপক্ষে খেলার মধ্য দিয়ে ভালো কিছু আয়ত্ত করতে পারবে। ওপেনিংয়ে সৌম্য সরকার ও নাঈম শেখ ভালো সূচনা এনে দিতে পারলে বড় স্কোর গড়ার পথ প্রস্তুত হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকায় পা রাখে টিম অস্ট্রেলিয়া

জিম্বাবুয়ে সফর শেষে বৃহস্পতিবার সকাল সকালে ঢাকায় পা রেখেছে বাংলাদেশ দল।

বিমানবন্দর থেকে সরাসরি অস্ট্রেলিয়া সিরিজের জৈব সুরক্ষাবলয়ে প্রবেশ করেছে টাইগাররা। রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে তিন দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে মাঠে ফিরবেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

বাংলাদেশ দল জিম্বাবুয়ে থেকে ফিরেছে বড় সাফল্য নিয়ে। প্রায় এক মাসের দীর্ঘ সফরে জিম্বাবুয়েকে একমাত্র টেস্টে হারানোর পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতেছে বাংলাদেশ দল।

টি-টোয়েন্টি সিরিজেও জিম্বাবুয়েকে হারিয়েছে ২-১ ব্যবধানে। জিম্বাবুয়ে সিরিজ শেষ হতে না হতেই এবার শুরু হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া সিরিজ।
বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি সম্পর্কে বৃহস্পতিবার ভোরের কাগজকে বিকেএসপির ক্রিকেট উপদেষ্টা এবং ক্রিকেটারদের অভিভাবক খ্যাত নাজমুল আবেদীন ফাহিম বলেন, ৩ আগস্ট থেকে যে সিরিজ শুরু হচ্ছে এখানে কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। লড়াইটা হবে সেয়ানে সেয়ানে। বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলে এসেছে। যদিও দলটি একটু দুর্বল ছিল। অস্ট্রেলিয়া দলটি যে বেশ শক্তিশালী তা কিন্তু নয়। এ দলে অনেক অভিজ্ঞ খেলোয়াড় নেই। দলটি বোলিং লাইনআপ শক্তিশালী হলেও ব্যাটিংয়ে দুর্বলতা রয়েছে। যারা আছেন তাদের অভিজ্ঞতার অভাব রয়েছে। ঘরের মাঠে আমাদের ক্রিকেটাররা স্নায়ুচাপ সামলিয়ে প্রতিপক্ষকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারলে ভালো ফল করতে পারবে।

টাইগার স্কোয়াড়ে নির্ভরযোগ্য তিন ক্রিকেটার তামিম, মুশফিক এবং লিটন দাস না থাকায় দলে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে মনে মরেন নাজমুল আবেদীন ফাহিম। তিনি বলেন, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এ তিনজনকে ছাড়াই জিতেছি। তরুণরা নিজেদের মেলে ধরার সুযোগ পাচ্ছে। আমাদের বোলাররা লাইনলেন্থ বজায় রেখে বল করতে পারলে অস্ট্রেলিয়াকে অল্প রানে গুটিয়ে দেয়া সম্ভব হবে। মোদ্দা কথা, এ সিরিজটি বেশ জমজমাট হবে।

ডি-আরআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়