রাণীনগরে ঈদ উপলক্ষে কোরবানির গরু দিলেন এমপি হেলাল

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

ঈদযাত্রার শেষ মুহূর্তে ট্রেনে স্বাস্থ্যবিধি উধাও

প্রকাশিত: জুলাই ২০, ২০২১ , ৭:৪৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ২০, ২০২১ , ৮:০৮ অপরাহ্ণ

গত ১৫ জুলাই থেকে স্বাস্থ্যবিধি কিছুটা মেনে ট্রেন চললেও আজ মঙ্গলবার ঈদযাত্রার শেষ লগ্নে বাঁধভাঙা জনস্রোতে কোন বিধিই বলতে গেলে কার্য ট্রেনগুলোতে। সকাল থেকে কমলাপুরে অসংখ্য যাত্রীর পদভারে প্রকম্পিত। যে যেভাবে পারে ট্রেন উঠে পড়ছে। টিকেট আছে কারো, আবার টিকেট নেই বেশি সংখ্যক যাত্রীর। রেলপুলিশ যেন অসহায় দর্শক। বাঁধা দেবার মতো পরিস্থিতি নেই কমলাপুর আর বিমানবন্দরে।

সরেজমিন কমলাপুর গিয়ে দেখা গেছে, সকাল থেকে নীলসাগর, সুন্দরবন, পদ্মা, উপবন, জয়ন্তিকা, রাজশাহী, চাট্টগ্রামগামী সব ট্রেনে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে ছেড়ে যাচ্ছে। দু সিটে এক যাত্রী তো দুরের কথা সব সিটে যাত্রী ছাড়াও স্টান্ডিং টিকেট, বিনা টিকেটের যাত্রী ভর্তি হয়ে ছেড়ে গেছে ট্রেনগুলো। বিমানবন্দর স্টেশনে দরজা দিয়ে ট্রেন প্রবেশ করতে না পেরে অনেককে জানলা দিয়ে ঠেলে ঢুকতে দেখা গেছে।

বিশেষ করে কমিউটার ও লোকাল ট্রেনগুলোতে গায়ের ওপর হুমড়ি খেয়ে যাত্রীদের গমন করতে দেখা গেছে। সামাজিক দূরত্ব ছিলো না কোথাও।

এ বিষয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অসহায়ভাবে শুধু নিরব দর্শকের অবস্থায় দেখা গেছে। টিটিদের পোয়া বারো, ২০ থেকে ২০০ টাকা যে যা পারছে আদায় করছে। তবে অনেকেই বলেছেন, ঈদের শেষদিনে নাড়ির টানে বাড়ির পানে ছুটবে মানুষ, এক্ষেত্রে কিছুটা ছাড় তো দিতেই হবে।

যাইহোক আজ ট্রেনগুলোতে এক্কেবারে ‘ঠাঁই নেই ঠাঁই নেই’ অবস্থা। কয়েকজনকে বিমানবন্দর, টঙ্গী জয়দেবপুর স্টেশন থেকে ট্রেনের ছাদেও ওঠার চেষ্টা করতে দেখা গেছে।

রি-এনআরআর/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়