টেলরকে হারিয়ে চাপে জিম্বাবুয়ে

আগের সংবাদ

ডেঙ্গু মোকাবেলায় আশু পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান হানিফের

পরের সংবাদ

ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশি কিনা, জানতে চেয়ে মোদিকে চিঠি

প্রকাশিত: জুলাই ১৮, ২০২১ , ৩:৫৭ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ১৮, ২০২১ , ৩:৫৭ অপরাহ্ণ

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও বিজেপির সংসদ সদস্য নিশীথ প্রামাণিক বাংলাদেশের নাগরিক কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। আসামের কংগ্রেস সাংসদ রিপুন বরা এ প্রশ্ন তুলে একাধিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরের প্রসঙ্গ যোগ করে টুইট করেছেন।

টুইটে রিপুন লিখেছেন, একজন বিদেশি নাগরিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বিষয়টি গভীর উদ্বেগের। তদন্ত করে বিষয়টি স্পষ্ট করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছি।

প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া চিঠিতে তিনি লিখেছেন, বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে, নিশীথ প্রামাণিক বাংলাদেশি নাগরিক। তার জন্মস্থান বাংলাদেশের গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ি থানার হরিনাথপুর। তিনি কম্পিউটার নিয়ে পড়াশোনার জন্য এ দেশে আসেন। ডিগ্রি লাভের পর তিনি প্রথমে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। পরে বিজেপিতে যোগ দিয়ে কোচবিহারের সাংসদ নির্বাচিত হন।

এ বিষয়ে কোচবিহার তৃণমূলের জেলা সভাপতি পার্থপ্রতীম রায় বলেছেন, তিনি বিষয়টি সামাজিক মাধ্যমে প্রথম তুলেছিলেন। তারই ফলস্বরূপ রাজ্যসভা সাংসদ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। বিষয়টির খোলসা হওয়া প্রয়োজন।

বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অভিযোগ করলেই তো হবে না। যারা অভিযোগ করছেন, তারা প্রমাণ দিন। পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, অভিযোগ করলেই তা প্রমাণ হয় না। সারবত্তা থাকলে মানুষের সামনে আনুন, অভিযোগ করে প্রচারের আলোয় এনে প্রচারের আলো টানতে চাইছেন।

তৃণমূল এর আগে আগে কোচবিহারের সাংসদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল। এবার প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো রিপুন বরার চিঠি টুইট করে একই প্রশ্ন তুলেছেন ব্রাত্য বসু। বিষয়টিকে লজ্জাজনক বলে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু টুইটে লিখেছেন, ‘ঠিক প্রশ্নই করেছেন রাজ্যসভার সাংসদ রিপুন বরা। একাধিক সংবাদ মাধ্যমের দাবি, নিশীথ প্রামাণিক বাংলাদেশের নাগরিক।কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগের আগে কি তার কোনও তথ্য যাচাই হয়নি? ভুললে চলবে না তার বিরুদ্ধে থাকা একাধিক ফৌজদারি মামলার বিষয়টিও।’

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার রদবদলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অমিত শাহর ডেপুটি হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয় নিশীথ প্রামাণিককে। এত গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় তুঙ্গে রাজনীতি। বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিকের প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়