লিটন-তামিমকে হারিয়ে চাপে টাইগাররা

আগের সংবাদ

লকডাউন নিয়ে এত সমালোচনা কেন, বিএনপি কী চায়: তথ্যমন্ত্রী

পরের সংবাদ

পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির তিন দাবি

প্রকাশিত: জুলাই ১৮, ২০২১ , ৮:৫৭ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ১৮, ২০২১ , ৮:৫৭ অপরাহ্ণ

পুস্তক ব্যবসা খাতের জন্য কমপক্ষে এক হাজার কোটি টাকার সহজশর্ত ও স্বল্পসুদে ঋণের বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ দাবি করেছে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি।

রবিবার (১৮ জুলাই) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) নসরুল হামিদ মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান সংগঠনের সভাপতি আরিফ হোসেন ছোটন।

সংগঠনের সহ-সভাপতি ও পূঁথিনীলয়ের মালিক শ্যামল পাল বলেন, দাবির আদায়ে তারা বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনার চেষ্টা করবেন। প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসলে তারা প্রণোদনা পাবেন বলে বিশ্বাস করেন। এছাড়াও তারা বলেন, গত ১৬ মাসে বাংলাদেশের একাডেমিক এবং সৃজনশীল প্রকাশনা ও বিক্রয় প্রতিষ্ঠান প্রায় সাড়ে বার হাজার কোটি টাকার বিক্রয় থেকে বঞ্চিত হয়েছে।

অনেক প্রতিষ্ঠান দোকান ভাড়া, কর্মচারি বেতন ও পারিবারিক ব্যয় মেটাতে আত্মীয় স্বজন, বন্ধুবান্ধব বা অন্যান্য মাধ্যম থেকে ঋণ নিয়ে ঋণের ভারে জর্জরিত হয়ে এখন দিশেহারা হয়ে পড়ছে। অথচ এই প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে জড়িতরা যুগ যুগ ধরে শিক্ষিত জাতি গঠনে দেশের অংশীদার হিসেবে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে। আলোকিত জাতি গঠনে প্রধানমন্ত্রীর যে উদ্যোগ, তার সফল বাস্তবায়নেও এই প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানগুলোর ভূমিকা অগ্রগণ্য। তাই যেকোনো মূল্যে বাংলাদেশের প্রকাশনা খাতকে বাঁচিয়ে রাখা বর্তমান বই বান্ধব সরকারের দায়িত্ব-কর্তব্যের মধ্যে পড়ে।

তারা আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার শিল্প ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য স্বল্পসুদে যে প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন, তা পূর্ব থেকে যারা ব্যাংক ঋণ গ্রহণ করেছেন, কেবল তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হওয়ায় আমাদের অধিকাংশ প্রকাশক ও বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান সে সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। বাংলাদেশের প্রায় ৯০ শতাংশ পুস্তক বিক্রেতারা স্বল্প পুঁজির ব্যবসায়ী বিধায় তাদের কোনো ব্যাংক ঋণ নেই। অপরদিকে সরকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য যে অনুদান ও প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে, তাতেও পুস্তক ব্যবসায়ীদের অন্তর্ভুক্তির কথা উল্লেখ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি কায়সার-ই-আলম প্রধান ও মেহেদী হাসান, রাজধানী শাখার সভাপতি মাজহারুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি আলমগীর সিকদার লোটন প্রমুখ।

আর-এবি/এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়