উত্তরায় অসহায় মানুষদের মাঝে আওয়ামী লীগের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

আগের সংবাদ

বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনকে ঢাকা ক্লাবের সহায়তা

পরের সংবাদ

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন

প্রকাশিত: জুলাই ৭, ২০২১ , ৭:৪২ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ৭, ২০২১ , ৭:৪২ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদান করেছেন সরকারের সিনিয়র সচিব শেখ ইউসুফ হারুন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের গত ২১ জুন স্মারক নং ০৫.০০.০০০০.১৪৬.০৩.০০৫.১৯-২৭৩ মোতাবেক তিনি আগামী তিন বছরের জন্য এ পদে নিয়োগ লাভ করেন তিনি।

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগের আগে তিনি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং পরবর্তীতে সিনিয়র সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সচিব হিসেবেও দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ‘নিয়োগ, পদোন্নতি ও প্রেষণ’ অনুবিভাগে অতিরিক্ত সচিব হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করেন। পাশাপাশি তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরেও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মহাপরিচালক হিসেবে পদায়িত থেকে তিনি বেজা, বেপজা, এনজিও ব্যুরো, বিডা এবং পিপিপি কর্তৃপক্ষের সংশ্লিষ্ট সকল কার্যক্রমে সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করেন। এসময় তিনি দেশে ও বিদেশে বিনিয়োগ উন্নয়ন সেমিনার আয়োজনের মাধ্যমে বিনিয়োগ আনয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। বিডা আইন এবং প্রাইভেট-পাবলিক পার্টনারশিপ আইন প্রণয়নেও তিনি অন্যতম ভূমিকা রেখেছেন।

বেজার কর্মদিবসের প্রথম দিন নির্বাহী চেয়ারম্যান জনাব শেখ ইউসুফ হারুন বলেন, বর্তমান সময়ে দেশ কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে এক অভূতপূর্ব চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এই কঠিন সময়েও বাংলাদেশ অর্থনীতির দিক থেকে তুলনামূলক শক্তিশালী পর্যায়ে রয়েছে।

সব প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে সুখী, ২০৪১ সালের মধ্যে সমৃদ্ধ ও উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানে নিরলসভাবে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে শেখ ইউসুফ হারুন। তিনি বলেন, আমাদের সর্বদা বঙ্গবন্ধুর উন্নয়নের দর্শন সামনে রেখে পথ চলতে হবে। তিনি আরও বলেন, বেজা ইতোমধ্যে নানাবিধ কর্মকান্ডের মাধ্যমে একটি বিনিয়োগবান্ধব সংস্থা হিসেবে শক্তিশালী প্রতিষ্ঠানে রূপ নিয়েছে। আমাদের দায়িত্ব হবে বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণ, শিল্পের আধুনিকায়ন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও দক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টি করে এ সংস্থার সুনাম আরও বৃদ্ধি করা এবং অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাজে দৃশ্যমান পরিবর্তন সাধন করা। এজন্য তিনি বিনিয়োগকারী, সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ, সংবাদ মাধ্যম এবং উন্নয়ন সহযোগিদের সহযোগিতা কামনা করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক তার উপর অর্পিত দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, আধুনিক ও গতিশীল প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় নিজেদের যুগোপযোগী করে তৈরির কোন বিকল্প নেই। ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো অর্থনীতির আলোকবর্তিকা হিসেবে আবির্ভূত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার দরগাহপুর ইউনিয়নের দরগাহপুর গ্রামে ১৯৬২ সালের ১৫ মে জন্মগ্রহণ করেন শেখ ইউসুফ হারুন। পড়াশোনা করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন বিভাগে। ১৯৮৬ সালের অষ্টম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ১৯৮৯ সালে সহকারী কমিশনার হিসেবে সুনামগঞ্জ কালেক্টরেটে যোগদান করেন তিনি। পরে কুড়িগ্রাম সদর ও নাটোরের লালপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ঢাকা ও গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক হিসেবে তিনি মাঠ পর্যায়ের প্রশাসনে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখেছেন।

বর্ণাঢ্য চাকুরিজীবনের পাশাপাশি সাংগঠনিকভাবেও তিনি দক্ষতার পরিচয় রেখেছেন। তিনি বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও বাংলাদেশ স্কাউটের সক্রিয় সদস্য হিসেবে বর্তমানে জাতীয় কমিশনার (আইন) হিসেবে এবং বাংলাদেশ টেনিস ফোরামের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত রয়েছেন এই গুণী ব্যক্তিত্ব।

রি-এমএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়