শেকৃবি মাঠে ফুটবল টুর্নামেন্ট, ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী

আগের সংবাদ

মোদির মন্ত্রিসভায় পশ্চিমবঙ্গের ৪ প্রতিমন্ত্রী, পুরনোরা বাদ

পরের সংবাদ

আলোচিত দুই গোলরক্ষকের গল্প

প্রকাশিত: জুলাই ৭, ২০২১ , ১১:০৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ৭, ২০২১ , ১১:০৮ অপরাহ্ণ

উয়েফা ইউরোর প্রথম সেমিফাইনালে স্পেনকে পেনাল্টিতে ৪-২ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে ইতালি। অপরদিকে কোপা আমেরিকার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে কলম্বিয়াকে ৩-২ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে আর্জেন্টিনা। দুই দলের খেলাই নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে ড্র হয়। ফলে ম্যাচ গড়ায় পেনাল্টিতে। আর এই দুই দলকে ফাইনালে পৌছে দিয়েছেন গোলরক্ষকরা।

ইতালির গোলরক্ষক জিয়ানলুইগি ডোনারুমা স্পেনের বিপক্ষে সেমিফাইনাল ম্যাচটির নির্ধারিত সময়ে নিজের দক্ষতায় বেশ কয়েকটি আক্রমণ রুখে দিয়েছেন। সেমির ম্যাচটিতে ইতালির চেয়ে বেশি আক্রমণ করেছে স্পেন। কিন্তু জিয়ানলুইগির নৈপুণ্যে ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত পেনাল্টিতে গড়ায়। আর ম্যাচ পেনাল্টিতে গড়ানো মানে হলো সব দায়িত্ব গোলরক্ষকের হাতে। এই কাজটি বেশ ভালোভাবেই করেছেন জিয়ানলুইগি। পেনাল্টিতে প্রথমে শট নেয় ইতালি। শট নিতে আসা ম্যানুয়েল লোকাতেল্লি মিস করে বসেন। ফলে স্পেনের প্রথম শটটি আটকানো ছাড়া কোন উপায় ছিল না জিয়ানলুইগির। তিনি সেই কাজটি বেশ সফলতার সঙ্গে করেন। তিনি আটকে দেন দানি ওলমোর শট। এরপর ইতালির আন্দ্রে বেলোত্তি ও লিওনার্দো বুনুচ্চি, স্পেনের জেরার্ড মরেনো ও থিয়াগো আলকানতারা গোল করেন। এরপর চতুর্থ শটে গিয়ে ইতালির ফেদ্রিকো বার্নাদেচি গোল করেন। স্পেনের হয়ে চতুর্থ শট নিতে আসা আলভারো মোরাতার করা দুর্বল শট সহজেই ঠেকিয়ে দেন জিয়ানলুইগি। শেষে ইতালির জর্গিনহো গোল করলে ৪-২ গোলের জয় নিশ্চিত হয়ে যায় চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। এর মাধ্যমে ২০১২ সালের পর প্রথমবারের মতো ইউরোর ফাইনালে জায়গা করে নেয় ইতালি।

অপরদিকে আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক ইমিলিয়ানো মার্টিনেজের দৃঢ়তায় কলম্বিয়ার থেকে জয় ছিনিয়ে আনে মেসিরা। পেনাল্টিতে প্রথম শটে কলম্বিয়ার জুয়ান কুয়াদরাদো ও আর্জেন্টিনার মেসি গোল করেন। এরপরের শটেই ডেভিসন সানচেজের করা শট ঠেকিয়ে দেন ইমিলিয়ানো মার্টিনেজ। কিন্তু তার এই কীর্তি মলিন হয়ে যায় আর্জেন্টিনার রদ্রিগো দি পল পেনাল্টি মিস করলে। এরপর মার্টিনেজ কলম্বিয়ার হয়ে শট করতে আসা ইয়ারি মিনার শট ঠেকিয়ে দেন। এবার আর ভুল করেননি আর্জেন্টিনার লিয়ান্দ্রো পারেদেস। চতুর্থ শটে কলম্বিয়ার মিগুয়েল বরজা ও আর্জেন্টিনার লউতারো মার্টিনেজ গোল করেন। কলম্বিয়ার হয়ে পঞ্চম ও শেষ শট করতে আসা এডউইন কারদোনার শটও ঠেকিয়ে দেন ইমিলিয়ানো মার্টিনেজ। ফলে আর্জেন্টিনাকে আর পঞ্চম শটটি নিতেই হয়নি। তার গোলকিপিংয়ে অধিনায়ক মেসি এতোটই মুগ্ধ হয়েছেন যে ম্যাচ শেষে তিনি বলেছেন ইমিলিয়ানোই সেরা।

আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক মার্টিনেজ

ইতালি ও আর্জেন্টিনার দুই গোলরক্ষকই বয়সে তরুণ ও জাতীয় দলের হয়ে অল্প সময় ধরে খেলছেন। আর্জেন্টিনার ইমিলিয়ানো মার্টিনেজের জন্ম ১৯৯২ সালে। মানে ২৯ বছর বয়স তার। ইমিলিয়ানো মার্টিনেজের এ ২০২১ সালের জুন মাসে অভিষেক হয় বিশ্বকাপ বাঁছাইয়ের ম্যাচের মাধ্যমে। প্রথম ম্যাচটি তিনি খেলেন ৩ জুন চিলির বিপক্ষে। সেটি আর্জেন্টিনা ১-১ গোলে ড্র করে। পরের ম্যাচে কলম্বিয়ার হয়েও খেলার সুযোগ পান মার্টিনেজ। সেই ম্যাচটিতে কলম্বিয়ার বিপক্ষে মেসিরা করে ২-২ গোলের ড্র। আর ফাইনালে পৌছা পর্যন্ত কোপা আমেরিকায় মোট পাঁচটি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। এই পাঁচ ম্যাচে মাত্র দুটি গোল হজম করেছেন। তিনি খেলেননি শুধু বলিভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটিতে।

২০২১ সালে ইমিলিয়ানো মার্টিনেজের আর্জেন্টিনার জার্সিতে অভিষেক হলেও তিনি ২০১১ সালে একবার ও ২০১৯ সালের দ্বিতীয়বার দলে ডাক পেয়েছিলেন। কিন্তু দুইবারই তাকে বসে থাকতে হয়েছিল। এমিলিয়ানো মার্টিনেজ ক্লাব পর্যায়ে বর্তমানে খেলছেন ইংলিশ ক্লাব অ্যাস্টন ভিলার হয়ে।

অপরদিকে ইতালির গোলরক্ষক জিয়ানলুইগির জন্ম হয় ১৯৯৯ সালে। মাত্র ২২ বছর বয়সেই চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের কান্ডারিতে পরিণত হয়েছেন তিনি। ২০১৫ সালে ১৬ বছর ২৪২ দিনের মাথায় সিরি আর ক্লাব এসি মিলানের হয়ে দ্বিতীয় সবচেয়ে কম বয়সে সিরি আর খেলেন। আর জাতীয় দলে তার অভিষেক হয় ২০১৬ সালের শেষ দিকে। যখন তিনি ইতালিয়ানদের হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলেন তখন তার বয়স ছিল মাত্র ১৭ বছর ১৮৯ দিন। এর মাধ্যমে ইতালির ফুটবলের ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী গোলরক্ষক হিসেবে খেলার রেকর্ড গড়েন তিনি। এ পর্যন্ত ইতালির হয়ে ৩২টি ম্যাচ খেলেছেন তবে ২০১৮ সাল পর্যন্ত তিনি মাত্র পাঁচটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু ২০১৯ সাল থেকে ইতালির প্রধান গোলরক্ষকের দায়িত্ব পেয়ে যান তিনি। ইউরোতে ইতালির হয়ে সবগুলো ম্যাচেই খেলেছেন তিনি। এখন পর্যন্ত ৩২টি ম্যাচ খেলে তিনি গোল হজম করেছেন মাত্র ১৪টি। জিয়ানলুইগি এসি মিলানের হয়ে খেললেও শেষ মৌসুমে তাকে ক্লাবটি ছেড়ে দিয়েছে। তিনি এখনো নতুন কোন ক্লাবে যোগ দেননি।

রি-এসএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়