সাভারে ইয়াবা ও হেরোইনসহ দুইজন গ্রেপ্তার

আগের সংবাদ

দশ জনের ব্রাজিলের সঙ্গেও পারল না চিলি, সেমিতে নেইমাররা

পরের সংবাদ

নাটকীয় ম্যাচে সুইসদের হারিয়ে সেমি ফাইনালে স্পেন

প্রকাশিত: জুলাই ৩, ২০২১ , ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুলাই ৩, ২০২১ , ১:১৫ পূর্বাহ্ণ

রাশিয়ার ক্রেস্টভস্কি স্টেডিয়ামে আজ শনিবার (৩ জুলাই) স্পেন-সুইজারল্যান্ড ম্যাচটি ছিল নাটকীয়তায় ভরপুর। নির্ধারিত সময়ে ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হলে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে স্পেন ৩-১ গোলে সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে। এ ম্যাচে সুইজারল্যান্ড ভাগ্য পরীক্ষায় উত্তীর্ণ না হতে পারলেও দশ জনের দল নিয়ে ১২০ মিনিট পর্যন্ত যে লড়াই চালিয়ে তাতে ফুটবল অনুরাগীরা মুগ্ধ। বিশেষ করে সুইস গোলরক্ষক ইয়ান সোমের কথা না বললেই নয়। এ গোলরক্ষক দুর্দান্ত নৈপুণ্য প্রদর্শন করে দলকে নিশ্চিত এক হালি গোল থেকে রক্ষা করেছেন। পুরো ম্যাচে স্পেন দাপিয়ে বেড়ালেও সোমেরে দৃঢ়তায় গোলের দেখা পাচ্ছিল না।

সেমি ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে স্পেন ও সুইজারল্যান্ডের মূল ম্যাচের পর গতকাল খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে কেউ গোল করতে না পারায় ম্যাচের ফয়সালা হয় টাইব্রেকারে। নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা ১-১ গোলে ড্র হয়। সুইজারল্যান্ড আগের ম্যাচে ফ্রান্সকে পেনাল্টি শুটআউটে বিদায় করলেও শনিবার স্পেনের বিপক্ষে আর কুলিয়ে উঠতে পারেনি।

কোয়ার্টার ফাইনালের এ লড়াইয়ের আগে নিজেদের শেষ দুই ম্যাচেই স্পেন ও সুইজারল্যান্ড সাজিয়েছিল গোলের পসরা। সুইসরা দুই ম্যাচে ৬ গোল করলেও স্পেন প্রতিপক্ষকে দেয় ১০ গোল। তাই ধারনা করা হচ্ছিল গতকালের ম্যাচেও গোলবন্যা দেখবে ফুটবল বিশ্ব। কিন্তু প্রথমার্ধে তার কিছুই দেখা যায়নি। একমাত্র আত্মঘাতী গোলটি বাদ দিলে তো সত্যিকার অর্থে প্রতিপক্ষের জালে কেউই বল জড়াতে পারেনি!

রাশিয়ার ক্রেস্টভস্কি স্টেডিয়ামে অষ্টম মিনিটে সুইজারল্যান্ডের জালে ডি বক্সের বাইরে থেকে শট নেন স্পেনের জর্দি আলবা। আলবার শট ডেনিস জাকারিয়ার পায়ে লেগে বাঁক নিয়ে প্রবেশ করে সুইসদের জালে। ফলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় লুইস এনরিকের শিষ্যরা।

এবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে এটি দশম আত্মঘাতী গোলের ঘটনা। এর আগেও ৯টি আত্মঘাতী গোল দেখেছে ইউরো। যার শুরুটা করেছিলেন তুরস্কের মেরিহ দেমিরাল। অথচ ২০১৬ সাল বাদে কোনো আসরেই তিনের বেশি আত্মঘাতী গোল দেখেনি ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ। উল্লেখ্য যে, স্পেনের বিপক্ষের প্রতিপক্ষরাই এই আসরে ৩টি আত্মঘাতী গোল হজম করল।

সেমিতে জায়গা করে নেয়ার আনন্দে মাতোয়ারা স্পেনের খেলোয়াড়রা।

২৫তম মিনিটে দারুণ সুযোগ এসেছিল স্পেনের সামনে। সিজার আজপিলিকুয়েতার হেডার গ্লাভসে নিয়ে সুইজারল্যান্ডকে বিপদমুক্ত করেন গোলরক্ষক ইয়ান সোমের। প্রথমার্ধে এরপর আর বলার মতো আক্রমণ করতে পারেনি কেউই। যদিও মাঠে আধিপত্যের ষোলো আনা দেখিয়েছে স্পেন। দ্বিতীয়ার্ধের ১৩তম মিনিটে দারুণ উপলক্ষ পেয়েছিলেন পাও তোরেস। ফ্রি কিক থেকে উড়ে আসা বল বুকের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে শূন্যে ভেসেই শট নেন তিনি। বল প্রতিপক্ষের গায়ে লেগে চলে যায় সীমানার বাইরে।

সুইজারল্যান্ডের বড় তারকা কে? ফুটবল অনুরাগীদের এই প্রশ্ন করলে এক কথায় হয়তো মুখে চলে আসবে জারদান শাকিরি নাম। তিনি যে দলের সবচেয়ে বড় ভরসা এটা প্রমাণ করেছিলেন গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে তুরস্কের বিপক্ষে। বাঁচা-মরার সেই লড়াইয়ে তার পা থেকেই এসেছিল দুই গোল, যেখানে হারলে টুর্নামেন্ট থেকে বাদ পড়তো হতো সুইসদের। সেই শাকিরি সুইজারল্যান্ডের জার্সিতে শনিবারও আরো একবার প্রমাণ করেছেন কেন তিনি সেরা। ম্যাচের তখন ৬৮ মিনিট চলছে। পাও তোসের ও এমেরিক লাপোর্তের ভুল বোঝাবুঝিতে স্পেনের ডি বক্সের কাছের বল পেয়ে যান রেমো ফ্রইলার। কিছু বুঝে উঠার আগেই সামনে থাকা শাকিরিকে পাস দিয়ে দেন তিনি। সেখান থেকে শাকিরি আজপিলিকুয়েতা ও উনাই সিমনকে পরাস্ত করে স্পেনের জালে বল পাঠান। সুইস শিবিরি তখন ১-১ গোলে সমতায় ফেরার স্বস্তি। ৭৭ তম মিনিটে সেই ফ্রইলার আলভারো মোরাতাকে ফাউল করায় দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন, ১০ জনের দলে পরিণত হয় সুইজারল্যান্ড।

সমতায় থাকা অবস্থায় শেষ হয় মূল ম্যাচের খেলা। অতিরিক্ত সময়েও গোল পাচ্ছিল না কেউই। দুদলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের ব্যর্থতাই প্রকাশ পাচ্ছিল বারবার। তবে এতেও আধিপত্য বিস্তার করেছে স্পেন। শেষ পর্যন্ত ১০ জনের দল নিয়ে কঠিন লড়াই করে সুইজারল্যান্ড।

পেনাল্টি শুটআউটে গিয়ে প্রথমেই মিস করে ২০০৮ ও ২০১২ সালের ইউরো জয়ী স্পেন। সার্জিও বুসকেটসের শট বারপোস্টে লেগে ফিরে আসে। পরের শটে এগিয়ে যায় সুইজারল্যান্ড। প্রথম তিনটি শটে স্কোর লাইন ১-১ গোলে সমতায় ছিল। এরপর স্পেন এগিয়ে গেলেও সমতায় ফিরতে পারেনি সুইসরা। ৩-১ ব্যবধানে হেরে টুর্নামেন্ট থেকেই ছিটকে পড়ে শাকিরির দল। সুইজারল্যান্ডের খেলোয়াড়দের মধ্যে পেনাল্টি মিস করেছেন ফ্যাবিয়ান স্কার, ম্যানুয়েল আকানজি ও রুবেন ভারগাস। বুসকেটস ছাড়া স্পেনের রদ্রিও পেনাল্টি মিস করেছেন।

রি-এসএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়