লকডাউনে সাময়িক অসুবিধা মেনে নেয়ার অনুরোধ কাদেরের

আগের সংবাদ

লকডাউনে রাজধানীর মগবাজার এলাকায় সেনাবাহিনীর তৎপরতা

পরের সংবাদ

ব্যাংক বন্ধে চালু আছে মোবাইল ও অনলাইন ব্যাংকিং

প্রকাশিত: জুলাই ১, ২০২১ , ৫:০২ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ১, ২০২১ , ৫:০২ অপরাহ্ণ

করোনা মোকাবিলায় ৭ জুলাই পর্যন্ত কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে সরকার। এ সময়ে জরুরি সেবা ছাড়া সব বন্ধ রয়েছে। তবে জরুরি সেবার আওতায় ব্যাংক খোলা খাকলেও বৃহস্পতিবার ব্যাংক হলিডে। এরপরের দুইদিন সাপ্তাহিক ছুটি ও বিধিনিষেধের কারণে আগামী সোমবার ব্যাংকের কার্যক্রম চালু হবে। তবে এসময়ে প্রয়োজন মেটাতে খোলা আছে ব্যাংকগুলোর এটিএম। পাশাপাশি ব্যাংকগুলোর অনলাইন ব্যাংকিং সেবাও চালু আছে। এ ছাড়া বিকাশ-রকেট-নগদের মতো মোবাইলে আর্থিক সেবা চালু আছে। এসব সেবা নিরবচ্ছিন্ন রাখতে বুধবার ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সরকারঘোষিত এক সপ্তাহের বিধিনিষেধের মধ্যে ব্যাংকের অটোমেটেড টেলার মেশিন (এটিএম) বুথ থেকে দিনে এক লাখ টাকা তুলতে পারবেন গ্রাহক। ব্যাংকগুলো তাদের এটিএমে টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সীমার ন্যূনতম পরিমাণ হবে এক লাখ টাকা। ২৪ ঘণ্টা লেনদেন সুবিধার লক্ষ্যে অনলাইন ব্যাংকিং লেনদেন সেবাদানকারী ব্যাংকগুলো এই সেবা নিরবচ্ছিন্ন রাখবে। নিষেধাজ্ঞা চলাকালে ব্যাংক, পিএসপি, পিএসও এবং এমএফএস জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় বিবেচনায় সংশ্লিষ্ট প্রোভাইডাররা নিজ নিজ সিস্টেম, ডিস্ট্রিবিউশন ও এজেন্ট চ্যানেল নিরবচ্ছিন্ন ও সচল রাখবে।

গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহের জন্য ব্যাংকের ক্যাশ কাউন্টার, এটিএম, এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের এজেন্ট পয়েন্ট ও মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের (এমএফএস) এজেন্ট পয়েন্টগুলোয় নগদ অর্থ ও ই-মানি (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) সরবরাহের সেবা নিরবচ্ছিন্নভাবে নিশ্চিত করবে। লেনদেনের স্থান অর্থাৎ ব্যাংক, এটিএম, পয়েন্ট অব সেলস ও এজেন্ট পয়েন্টগুলো নিয়মিতভাবে জীবাণুমুক্ত ও সেখানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখার ব্যবস্থা নেবে। ব্যাংকগুলো তাদের এটিএম চ্যানেল সার্বক্ষণিক সচল রাখা এবং চাহিদা অনুযায়ী, দ্রুততম সময়ের মধ্যে এটিএম মেশিনে ক্যাশ ফিডিংয়ের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্টের মাধ্যমে লেনদেনের চলবে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত। তবে, কাস্টমস , শুল্ক-করাদি, ফি, চার্জ প্রভৃতি পরিশোধ ও আন্তব্যাংক লেনদেন দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত পরিশোধ করা যাবে। সব ব্যাংক, এমএফএস, পিএসপি এবং পিএসও সমূহ স্ব স্ব সিস্টেম অবকাঠামোর উপর সতর্ক নজরদারি রাখবে এবং সিস্টেম ও ডেটাবেইজে সাইবার আক্রমণের ঝুঁকি মোকাবেলার জন্য ই-মেইল, ফিশিং ই-মেইল, র্যানসামওয়্যার আক্রমণ ইত্যাদি বিষয়ে বিশেষ নজরদারি করবে।

একইসাথে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে লেনদেন সংক্রান্ত প্রতারণা ও স্যোশাল মিডিয়া, ই-মেইল, মোবাইল ফোন-এর মাধ্যমে কোভিড-১৯ ভিত্তিক আর্থিক প্রতারণার বিষয়ে সতর্ক করবে।পরিবর্তিত পরিস্থিতি অনুযায়ী সব অবকাঠামো যথারীতি চালু এবং এ সংক্রান্ত নিরাপত্তা ও সাইবার ঝুঁকির বিষয়ে সতর্ক থাকতেও বলা হয়েছে ব্যাংকগুলোকে।

আর-এমএস/এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়