সাই-ফাই সিনেমায় ‘চং চং’ প্রিয়াঙ্কা

আগের সংবাদ

ইতিহাসে আ. লীগ, বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ সমার্থক হয়ে থাকবে: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

পরের সংবাদ

চ্যালেঞ্জকে সম্ভাবনায় রূপ দেবো: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত: জুন ২৩, ২০২১ , ৬:০০ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ২৩, ২০২১ , ৮:৫৫ অপরাহ্ণ

আগামী অর্থবছরে অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ আছে। তবে চ্যালেঞ্জগুলোকে সম্ভাবনায় রূপ দেবো। এজন্য অনেক কর্মসূচি আছে, সেগুলো সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করা হবে। দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ শুরুর আশঙ্কার মধ্যে অর্থনীতি নিয়ে এমন আশার কথা শোনালেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

আজ বুধবার (২৩ জুন) সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে ভার্চুয়াল বৈঠকে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, চ্যালেঞ্জ অনেক, বহুবিধ। নাই বলব না। তবে, আমরা চ্যালেঞ্জকে সবসময় সুযোগ হিসেবে চিন্তা করি। ইতিহাস থেকে দেখেছি, যখন চ্যালেঞ্জ আসে, তখন অনেক সুযোগও আসে, বলেন তিনি।

করোনা মহামারির মধ্যে কীভাবে দেশের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে জানিয়ে এর পরিসংখ্যানও তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী। মন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরের শুরুতে রাজস্ব আয় কম থাকলেও গত ১১ মাসে তা ১৭ শতাংশ বেড়েছে। আর রপ্তানি এ সময়ে ১৪ শতাংশ বেড়েছে। বর্তমানে রিজার্ভ প্রায় ৪৬ বিলিয়ন। অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশের সব মানুষকে সঙ্গে নিয়ে আগামী দিনগুলোতে ভালো করব আশা করি। বাজেট ঘাটতি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জাতিসংঘ সব দেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, করোনার প্রভাব কাটাতে সংকোচন নয়, সম্প্রসারণমূলক নীতি নিতে হবে। তার আগেই আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘সম্প্রসারণমূলক মুদ্রা ও আর্থিক নীতি নিতে হবে’।

আমাদের আগামী অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি ছয় দশমিক দুই শতাংশ, যা আমেরিকার ১৮ শতাংশ, ভারতের ১৩ দশমিক শূন্য সাত শতাংশ, জাপানের ১২ দশমিক নয় শতাংশ, চীনের ১১ দশমিক ৮৮ শতাংশ ও ভিয়েতনামের ছয় দশমিক দুই শতাংশ। এখন সব দেশই ঘাটতি বাড়িয়ে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে বলেন তিনি। কালো টাকা সাদা করার বর্তমান সুযোগ আগামী অর্থবছরে অব্যাহত থাকবে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, আগামী ২৯ জুন অর্থবিল পাস হওয়ার সময় এ বিষয়ে জানা যাবে।

টিকা না দিলে ভারত টাকা ফেরত দেবে বলে সম্প্রতি সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী। সত্যিই টাকা ফেরত দেবে কি না, জানতে চাইলে বলেন, এটা স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় জানে। তারা এটা দেখভাল করছে। এ সময় বাংলাদেশ পোশাক উৎপাদক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) এবং বাংলাদেশ নিট পোশাক উৎপাদক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিকেএমইএ) প্রণোদনার টাকা ফেরত দেয়ার জন্য বাড়তি সময় চাচ্ছে। সময় কি দেয়া হবে? এমন প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমার কাছে এ বিষয়ে কোনো আবেদন আসেনি। এলে দেখব, কী করা যায়।

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ থেকে বাংলাদেশের রিজার্ভ চুরির প্রতিবেদন প্রকাশ না করা প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা আইনি প্রক্রিয়ায় গেছি। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছি। মামলা চলমান। এ পর্যায়ে মন্তব্য করা ঠিক হবে না। ৫ থেকে ১০ টাকার সার্জিক্যাল মাস্ক ৩৫৬ টাকায় কেনা হয়েছে বলে সংসদীয় কমিটির কাছে ধরা পড়েছে। এগুলো সরাসরি ক্রয়পদ্ধতিতে কেনা হয়েছিল। অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, এগুলো তদারক করা হবে। এ নিয়ে জানতে চাইলে মুস্তফা কামাল বলেন, প্রতিটি মন্ত্রণালয়ের জন্য আলাদা বরাদ্দ রয়েছে। নিজেরাই কেনাকাটা করতে পারেন।

রি-এমএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়