জাবির শিক্ষক নিয়োগ স্থগিতের নির্দেশ হাইকোর্টের

আগের সংবাদ

২৫ বছর আগের সব যুদ্ধের দলিল অবমুক্ত করবে ভারত

পরের সংবাদ

ভারতে করোনায় এক লাখ ভুয়া টেস্ট, এক কিটেই ৭০০ জনের পরীক্ষা

প্রকাশিত: জুন ১৫, ২০২১ , ১:১৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১৫, ২০২১ , ১:২০ অপরাহ্ণ

ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণ হিসেবে কুম্ভমেলায় লক্ষ মানুষর জমায়েতকেই দায়ি করছে অনেক আন্তর্জাতিক সংস্থা। এর মধ্যেই আবার মেলাকে নিয়ে নতুন অভিযোগ উঠল। কুম্ভমেলায় সাধু-সন্তদের করোনা পরীক্ষার দায়িত্বে থাকা একটি বেসরকারি ল্যাব টার্গেট পূরণ করতে একের পর এক মারাত্মক দুর্নীতির আশ্রয় নিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

কুম্ভমেলায় কোভিড প্রটোকল সংক্রান্ত একাধিক অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় তদন্ত শুরু করেছিল হরিদ্বার জেলা প্রশাসন। তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট আসতেই চোখ কপালে উঠছে তাদের। তদন্তে দেখা যাচ্ছে, মেগা ইভেন্টে করোনা পরীক্ষার টার্গেট পূরণ করতে একাধিক দুর্নীতির আশ্রয় নিয়েছে তারা। যা রীতিমতো বিপজ্জনক। তদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে ওই বেসরকারি ল্যাবটি কুম্ভমেলায় অন্তত ১ লক্ষ ভুয়া করোনা রিপোর্ট পেশ করেছে। এই করোনা রিপোর্টগুলো দেওয়া হয়েছে সাধারণ মানুষের নামে। যারা হয়তো কুম্ভমেলাতে অংশগ্রহণও করেনি।

শুধু তাই নয়, ওই বেসরকারি সংস্থা নাকি একটি মাত্র কিট থেকে ৭০০ জনের করোনা পরীক্ষা করেছে বলে দেখানো হয়েছে। আবার স্যাম্পল সংগ্রহের জন্য যে ২০০ জনের নাম দেওয়া হয়েছিল, তাদের অধিকাংশই স্বাস্থ্যকর্মী নন। তারা হয় ডেটা এন্ট্রি অপারেটর, নাহয় অধ্যায়নরত। এদের মধ্যে অনেকে আবার রাজস্থানের বাসিন্দা। এছাড়াও ওই সংস্থাটি একই মোবাইল নম্বর দিয়ে ৫০ জন পর্যন্ত মানুষের নাম রেজিস্টার করিয়েছে বলে জানা গেছে।

হরিদ্বার কুম্ভমেলা নিয়ে এমনিতেই দেশজুড়ে বিতর্ক। বিরোধী দলের পাশাপাশি বিদেশি বহু সংস্থাও এই বড়সড় ধর্মীয় জমায়েতকেই ভারতে কোভিড ছড়ানোর এবং নতুন কোভিড স্ট্রেন উৎপন্ন হওয়ার অন্যতম কারণ হিসেবে তুলে ধরেছে। এমনকী বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থাও পরোক্ষভাবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের জন্য এই বিপুল জনসমাবেশকে দায়ি করেছে। আর সেখানেই কোভিড প্রোটকল সংক্রান্ত মারাত্মক সব অনিয়মের অভিযোগ উঠছে। স্বাভাবিকভাবেই, প্রশ্ন উঠছে উত্তরাখণ্ড সরকারের ভূমিকা নিয়ে।

ডি-এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়