টাইমস্কেল নিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪৯ হাজার শিক্ষকের আপিল

আগের সংবাদ

মধ্য আকাশে কর্মী ও যাত্রীদের মধ্যে মারামারি, বিমানের জরুরি অবতরণ

পরের সংবাদ

এনা পরিবহনের এমডির সম্পদের হিসাব তলব দুদকের

প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২১ , ৯:০৪ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১৫, ২০২১ , ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও এনা পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) খন্দকার এনায়েত উল্লাহর সম্পদের হিসাব তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার (১৪ জুন) দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে পাঠানো এক নোটিশে তাকে আগামী ২১ কার্যদিবসের মধ্যে তার নিজের ও তার উপর নির্ভরশীল ব্যক্তিবর্গের যাবতীয় স্থাবর/অস্থাবর সম্পত্তি, দায়-দেনা, আয়ের উৎস ও তা অর্জনের বিস্তারিত বিবরণ নির্ধারিত ফরমে দাখিল করতে বলা হয়েছে। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা উপপরিচালক মুহাম্মদ আরিফ সাদেক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দুদক সূত্র জানায়, প্রাথমিক অনুসন্ধানে অবৈধ সম্পদ অর্জনের প্রমাণ পাওয়ায় তাকে এ নোটিশ পাঠানো হয়। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজিসহ শত কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। এর আগে ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নামে দুদক।

তাকে পাঠানো নোটিশে বলা হয়, প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে প্রাথমিক অনুসন্ধান করে কমিশনের স্থির বিশ্বাস জন্মেছে যে, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত স্বনামে/বেনামে বিপুল পরিমাণ সম্পদ/সম্পত্তির মালিক হয়েছেন খন্দকার এনায়েত উল্লাহ। তাই নোটিশ পাওয়ার ২১ কার্যদিবসের মধ্যে নিজের, নির্ভরশীল ব্যক্তিবর্গের যাবতীয় স্থাবর/অস্থাবর সম্পত্তি, দায়-দেনা, আয়ের উৎস ও তা অর্জনের বিস্তারিত বিবরণ নির্ধারিত ফরমে দাখিল করতে বলা হয়। এর আগে এনায়েত উল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ অনুসন্ধানে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটিসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দেয় দুদকের অনুসন্ধান কর্মকর্তা উপপরিচালক নুরুল হুদা।

খন্দকার এনায়েত উল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ, রাজধানীর আশপাশের বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী ১৫ হাজার বাস থেকে দৈনিক ১ কোটি ৬৫ লাখ টাকা চাঁদা আদায়সহ নামে বেনামে শত শত কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন। এছাড়া ২০১৯ সালে ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য লীগ’ নামে একটি সংগঠনের ব্যানারে জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ইসমাইল হোসেন বাচ্চু দাবি করেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ প্রতিদিন ঢাকার পরিবহন খাত থেকে ‘প্রায় এক কোটি ৬৫ লাখ টাকা চাঁদাবাজি করেন’।

আর-এমআর/এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়