করোনায় আরও ৩৯ মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৩৭

আগের সংবাদ

চার নয় তিন ম্যাচে নিষিদ্ধ সাকিব, ৫ লাখ টাকা জরিমানা

পরের সংবাদ

করোনা সঙ্কট শিশুদের আরও শিশুশ্রমের দিকে ঠেলে দিচ্ছে

প্রকাশিত: জুন ১২, ২০২১ , ৪:৫৫ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১২, ২০২১ , ৪:৫৫ অপরাহ্ণ

দীর্ঘায়িত করোনা সঙ্কট শিশুদের আরো বেশি করে শিশুশ্রমের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। নিজেদের পরিবারের আর্থিক দুরবস্থা কাটিয়ে উঠতে অনেক শিশু ঝুঁকিপূর্ণ শ্রমে নিয়োজিত হতে বাধ্য হবে। এতে করে বিশ্বব্যাপী শিশুশ্রম নিরসনের অগ্রগতি ব্যাহত করতে পারে। এডুকো বাংলাদেশের পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এডুকো বাংলাদেশ পরিচালিত এক গবেষনায় উঠে এসেছে যে, প্রায় ৭২ দশমিক ৩৩ শতাংশ শ্রমজীবী শিশুদের তাদের পরিবারের অর্থনৈতিক প্রয়োজন মেটাতে কাজ করতে হচ্ছে। প্রায় ১৯ দশমিক ২৮ শতাংশ শিশু বলেছে যে, তাদের পরিবার বিদ্যালয়ের ব্যয় বহন করতে পারে না এবং তাই তারা কাজ করতে বাধ্য হচ্ছে। ৪ দশমিক ৬১ শতাংশ শ্রমজীবী শিশু তাদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিল যে, তাদের বাবা-মা তাদের কম বয়সে কাজের জন্য বাধ্য করেছিল। তাদের মধ্যে আবার ৩২ দশমিক ৮৫ শতাংশ শিশু তাদের কাজকর্মে শারীরিক আঘাতের শিকার হয়েছে, প্রায় ১৪ দশমিক ৯ শতাংশ শিশু মানসিক অসুবিধায় ভুগছে, ২৯ দশমিক ৭৫ শতাংশ শিশুর প্রায়ই বকাঝকা শুনতে হয়, ৭ দশমিক ৫৩ শতাংশ শিশু শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে এবং ৩ দশমিক ৬৭ শতাংশ শিশু দাবি করেছে তারা অর্থনৈতিক শোষণের শিকার হয়েছে।

এডুকো বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর আব্দুল হামিদের মতে, বর্তমান মহামারী বিভিন্ন পরিবারে এক অস্থিরতার সৃষ্টি করেছে, যার ফলে অনেকেই পারিবারিক উপার্জন বাড়ানোর জন্য শিশুশ্রমের আশ্রয় নিচ্ছে। তিনি বলেন, যেহেতু স্কুল এখনো বন্ধ রয়েছে, অনেক শিশুই তাদের এই সময়ের ব্যবহার এবং সেই সঙ্গে অতিরিক্ত উপার্জনের জন্য শিশুশ্রমের সঙ্গে যুক্ত হতে বাধ্য হতে পারে। এসডিজি ৮.৭ এর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে, বাংলাদেশ সরকার ২০২১ সালের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ শিশু শ্রম এবং ২০২৫ সালের মধ্যে সকল ধরণের শিশুশ্রম নির্মূলের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যেনো কোনো শিশু বাধ্যতামূলক পড়াশুনা শেষ না করা অবধি কোনো ধরণের শ্রমের সঙ্গে যেন জড়িত না হয়। এই ব্যবস্থাটি কঠোরভাবে আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করা উচিত।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়