দেশে কুঋণের পরিমাণ সাড়ে ১১ লাখ কোটি টাকা: অর্থমন্ত্রী

আগের সংবাদ

বিকল্প হেফাজত গঠনের প্রস্তুতি শফীপন্থীদের

পরের সংবাদ

আফগানিস্তানে আরও তিন জেলা তালেবানের দখলে

প্রকাশিত: জুন ৭, ২০২১ , ১:২৫ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ৭, ২০২১ , ১:২৫ অপরাহ্ণ

সপ্তাহ খানেকের ব্যবধানে আফগানিস্তানে আক্রমণ চালিয়ে আরো তিন জেলা দখল করে নিয়েছে তালেবান। আফগানিস্তন-জুড়ে বিভিন্ন জায়গা আক্রমণ চালায় তালেবান। স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে বহু সেনার ও সাধারণ মানুষের। খবর ডয়েচে ভেলের।

নর্দার্ন প্রভিন্সের কেসর জেলা কার্যত তালেবানের অধিকারে চলে গেছে। এখানে শহরের কেন্দ্রে পুলিশ সদরদপ্তরে প্রথমে একটি গাড়ি বোমা বিস্ফোরণ হয়। তাতে ২০ জন নিরাপত্তা কর্মী মারা গেছেন। তারপর তালেবান আক্রমণ চালিয়ে পুলিশের সদরদপ্তর দখল করে নিয়েছে। পৌরসভা ভবনও তাদের দখলে। শহরের কেন্দ্রস্থলে তাদের সঙ্গে সেনার প্রবল লড়াই চলছে। শহরের অধিকাংশ এলাকাই তালেবানের দখলে চলে গেছে। গভর্নর আব্দুল বাকি হাশিমি জানিয়েছেন, ১০ জন সেনা মারা গেছেন। আহত ১৮। তালেবান ২০ জনকে ধরে রেখেছে।

কাবুলের পূর্বদিকে দোয়াব জেলা থেকে সেনাবাহিনী চলে এসেছে বলে জানিয়েছেন কাউন্সিলার সাইদুল্লাহ নুরিস্তানি। জেলাটি এখন তালেবানের দখলে। তারা এই জেলার খাবার ও অস্ত্র সরবরাহের সব রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছিল তালেবান। ফলে অতিরিক্ত সেনাও আসতে পারছিল না। অস্ত্র বা খাবারও নয়। এই অবস্থায় আদিবাসী নেতাদের মধ্যস্থতায় সেনা জেলা থেকে চলে আসে। তালেবান তাতে রাজি হয়।

পার্লামেন্ট সদস্য ইসমাইল আতিকান জানিয়েছেন, সেনার কাছে চলে যাওয়া ছাড়া আর কোনো বিকল্প ছিল না। সপ্তাহান্তে সবমিলিয়ে মোট তিনটি জেলা তালেবানের দখলে গেছে। নর্দার্ন প্রভিন্সের বাগদিসে ল্যান্ড মাইন বিস্ফোরণে ১১ জন মারা গেছেন। তার মধ্যে একটি শিশুও আছে। তালেবানের পেতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে তাদের গাড়ি উড়ে যায়। এছাড়া বাঘলান প্রদেশে তালেবান দুই ডজন কম্যান্ডো সহ ছয়জন পুলিশ কর্মীকে হত্যা করেছে। আহতের সংখ্যা প্রচুর।

এদিকে আফগান বিমান বাহিনী তালেবানের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে ভুল করে সরকারপন্থি বাহিনীর ১৩ জনকে মেরেছে। অনেকে আহত হয়েছেন।

প্রায় প্রতিটি প্রদেশের রাজধানীতে তালেবান আক্রমণ চালাচ্ছে। তারা চেক পয়েন্টগুলিও আক্রমণ করছে্। আফগানিস্তানের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র রহমতুল্লাহ আন্দার জানিয়েছেন, বিদেশি সেনা প্রত্যাহার শুরু হওয়ার পর থেকে তালেবান এক হাজার ৪৫৫টি আক্রমণ শানিয়েছে।

সেনার মুখপাত্র রোহুল্লাহ আহমদজাই বলেছেন, সেনাবাহিনী আবার ওই সব জায়গা দখল করার পরিকল্পনা করেছে।

গত ১ মে থেকে মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনী আফগানিস্তান ছাড়ছে। তারপর মোট সাতটি জেলা তালেবানের দখলে চলে গেছে। আগামী ১১ সোপ্টেম্বরের মধ্যে বিদেশি সেনা আফগানিস্তান থেকে চলে যাবে। গত এপ্রিলে জাতিসংঘ জানিয়েছি্ল, এই বছর জানুয়ারি থেকে মার্চের মধ্যে সেনা ও তালেবানের মধ্যে সংঘর্ষে এক হাজার ৮০০ সাধারণ মানুষ মারা গেছেন বা গুরুতর আহত হয়েছেন। গত কয়েক সপ্তাহে কয়েক লাখ মানুষ ঘর ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। আইএস সশস্ত্র বাহিনীও আফগানিস্তানে সক্রিয়।

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়