করোনায় ভোটে মাঠ পর্যায়ে অনীহা, অনড় নির্বাচন কমিশন

আগের সংবাদ

রাজশাহীতে বাড়লো লকডাউনের সময়সীমা

পরের সংবাদ

এমবাপ্পে-হরল্যান্ডকে নিয়ে কাড়াকাড়ি

প্রকাশিত: জুন ৬, ২০২১ , ১০:২২ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ৬, ২০২১ , ১০:২২ অপরাহ্ণ

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি; কিলিয়ান এমবাপ্পে ও এরলিং হরল্যান্ডের পেছনে বড় বড় সব ক্লাব। তবে মেসি-রোনালদোদের উত্তরসূরী হিসেবে পরিচিত এমবাপ্পে ও হরল্যান্ডকে নিয়ে বেশি কাড়াকাড়ি করছে স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। এই কাড়াকাড়িতে না জিতলে অর্থাৎ এমবাপ্পেকে কিনতে না পারলে হরল্যান্ডের দিকে হাত বাড়াতে চায় লস ব্লাঙ্কোসরা। অথচ হরল্যান্ডের ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ড তাকে ধরে রাখতে চায়। তাই হরল্যান্ডের দামও নাকি বাড়িয়ে দিতে চাইছে জার্মানির ক্লাবটি। ধারণা করা হচ্ছে, নরওয়েজেরিয়ান তারকার দাম গিয়ে ঠেকবে ২০০ মিলিয়ন ইউরোয়।

২০০৯-১০ মৌসুমের পর এবার প্রথম কোনো ট্রফিহীন বছর কাটিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। এর পেছনে বড় কারণ ভাঙাচোরা দল, বিশেষ করে বললে গোলস্কোরারের অভাব। সেই ক্ষুধা খুব শিগগির মেটাতে চায় তারা। এজন্য দরকার কিলিয়ান এমবাপ্পের মতো গতিময় ফরোয়ার্ড। আকারে-ইঙ্গিতে ফরাসি তারকাও অনেকবার বুঝিয়েছেন তিনি মাদ্রিদের সাদা জার্সি গায়ে জড়াতে চান। সে ক্ষেত্রে বড় বাধা পিএসজির সঙ্গে তার চুক্তি ও রিলিজ ক্লজ। ফরাসি ক্লাবটির সঙ্গে এমবাপ্পের এখনো এক বছরের চুক্তি রয়েছে। তাই তাকে কিনতে হলে রিলিজ ক্লজের ১৫০ মিলিয়ন ইউরোই খরচ করতে হবে মাদ্রিদের ক্লাবটিকে।

এমবাপ্পের রিলিজ ক্লজ চড়া হলেও করোনা বিধ্বস্ত সময়ে রিয়াল মাদ্রিদ আছে অর্থ সংকটে। তাই এ বছর এমবাপ্পেকে কেনাটা আপাতত তুলেই রাখতে হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টকে! এখন বড় বিকল্প হিসেবে ভাবা হচ্ছিল হরল্যান্ডকে। বিগত কয়েক মৌসুম ধরে রীতিমত গোল মেশিনে পরিণত হয়েছেন ২০ বছর বয়সী স্ট্রাইকার। তাই তাকে কিনলেও রিয়াল মাদ্রিদের জন্য মন্দ হবে না। বাঁক এসেছে অন্য জায়গায়। বরুশিয়া ডর্টমুন্ড নাকি এমবাপ্পের চেয়েও বেশি দাম বাড়িয়ে দেবে তার, বলছে ইউরোপের প্রথম সারির গণমাধ্যমগুলো।

চুক্তি ও দামের পাশাপাশি হরল্যান্ডকে পেতে রিয়াল মাদ্রিদের সামনে আরও প্রতিবন্ধকতা আছে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি ও চেলসিও যে পেতে চাইছে নরওয়েজেরিয়ান সেনসেশনকে। ফলে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড তার দামটা আরও বাড়িয়ে দিলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। আর সত্যি সত্যিই সেটা বাস্তবায়িত হলে এমবাপ্পে-হরল্যান্ড আশা এ বছরের জন্য তোলাই রাখতে হবে ফ্লোরেন্তিনো পেরেজকে। এদিকে মাস দুয়েক আগে হরল্যান্ডকে বেচার জন্য ইউরোপে বেড়িয়েছিলেন হরল্যান্ডের বাবা আলফ হরল্যান্ড ও তার এজেন্ট মিনো রাইওলা। বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ ঘুরেও পুত্রের জন্য মনপুত গন্তব্য খুঁজে পাননি আলফ। ফলে শেষ পর্যন্ত আশাই ত্যাগ করতে হয় তাদের।

কিলিয়ান এমবাপ্পে-এরলিং হরল্যান্ডকে নিয়ে যেমন কাড়াকাড়ি চলছে তেমনি দুজনের মধ্য লড়াইও চলছে শ্রেষ্ঠত্বের। নিজেদের লিগে দুজনই এবার করেছেন ২৭ গোল করে। লিগ ওয়ানে এমবাপ্পে সর্বোচ্চ গোলদাতা হলেও হরল্যান্ড বুন্দেসলিগায় এ তালিকায় রয়েছেন তৃতীয় স্থানে। লিগে ফরাসি তারকা ৮ ম্যাচে ২টি করে গোল করেছেন। হরল্যান্ড ২৭ গোল করার পথে দশবার পেয়েছেন জোড়া গোলের দেখা, একটি ম্যাচে চারটি গোলও করেছিলেন তিনি। অন্যদিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এমবাপ্পে ৮ গোল করলেও হরল্যান্ড করেছেন ১০ গোল। এবারের টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতাও বরুশিয়া ডর্টমুন্ড স্ট্রাইকার। মাস দুয়েক আগেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দ্রুততম ফুটবলার হিসেবে ১৪ ম্যাচে ২০ গোল করার রেকর্ড ছুঁইয়েছিলেন তিনি। এই একটি জায়গায় বরুশিয়া তারকা রোনালদো, মেসি ও কিলিয়ান এমবাপ্পের চেয়েও এগিয়ে। সব মিলিয়ে দারুণ একটা বছর গেল এমবাপ্পে-হরল্যান্ডের।

বর্তমান ক্লাবে খেলার আগে এমবাপ্পে খেলেছেন মোনাকোর জার্সিতে। এই দল থেকেই ধারে খেলার জন্য পিএসজিতে আসেন তিনি। অন্যদিকে বরুশিয়ার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার আগে হরল্যান্ড রেড বুল সালসবুর্গসহ আরও দুটি ক্লাবের হয়ে খেলেছেন। প্রায় প্রত্যেক দলেই ম্যাচের চেয়ে গোলসংখ্যা বেশি তার। এমনকি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের এক ম্যাচে জাতীয় দলের হয়ে ৯টি গোলও করেছিলেন তিনি। এরপরই নজরে আসেন ফুটবল বিশ্বের। আধুনিক ইউরোপিয়ান ফুটবলে এখন হরল্যান্ড আলোচিত নামগুলোর একটি।

আর-এসকেএস/ডি-এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়