গণউপদ্রব আইন ও ছাগলের শাস্তি!

আগের সংবাদ

যে কারণে হোয়াইটওয়াশ হাতছাড়া হলো টাইগারদের

পরের সংবাদ

চট্টগ্রামে চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যা: বাবুল আক্তারকে ফেনী কারাগারে স্থানান্তর

প্রকাশিত: মে ৩০, ২০২১ , ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মে ৩০, ২০২১ , ১:০০ পূর্বাহ্ণ

স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় গ্রেফতার হওয়া সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারকে চট্টগ্রাম কারাগারে থেকে ফেনী কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে।

শনিবার (২৯ মে) ফেনী কারাগারের জেলার শাহাদাত হোসেন জানান, এদিন দুপুর দেড়টায় ফেনী কারাগারে প্রৌছান বাবুল আক্তার । এরপর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বাবুল আক্তারকে ফেনী কারাগারে স্থানান্তর করা হয়।

স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে খুনের মামলায় গ্রেফতারের পর রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গত ১৭ মে থেকে বাবুল আক্তার চট্টগ্রাম কারাগারে ছিলেন।

২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে নগরীর পাঁচলাইশ থানার ও আর নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে বাসার অদূরে গুলি ও ছুরিকাঘাত করে খুন করা হয় মাহমুদা খানম মিতুকে।

স্ত্রীকে খুনের ঘটনায় পুলিশ সদর দফতরের তৎকালীন এসপি বাবুল আক্তার বাদী হয়ে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর খুনের সঙ্গে বাবুল আক্তার জড়িত, এই গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে।

গত ১১ মে বাবুল আক্তারকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পিবিআই। তদন্তে বাবুল আক্তারের সম্পৃক্ততা পাওয়ায় তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের লক্ষ্যে ১২ মে ওই মামলার ৫৭৫ পৃষ্ঠার চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেয় পিবিআই।

গত ১২ মে দুপুরে মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন বাদি হয়ে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় বাবুল আক্তারসহ আট জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মোশাররফ হোসেনের মামলায় বাবুল আক্তারকে গ্রেফতার করে পিবিআই। তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ১৭ মে বাবুল আক্তারকে জবানবন্দি গ্রহণের জন্য আদালতে হাজির করা হয়। প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা ম্যাজিস্ট্রেটের খাস কামরায় বসে থেকেও শেষপর্যন্ত জবানবন্দি দিতে সম্মত হননি বাবুল আক্তার। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়