চরফ্যাশনে চরাঞ্চল প্লাবিত, ৮ হাজার লোককে সরিয়ে আনা হয়েছে

আগের সংবাদ

ডোপ টেস্ট, মাদকে নিরুৎসাহিত করবে বর্তমান প্রজন্মকে

পরের সংবাদ

সন্ধ্যার আকাশে থাকবে মহাজাগতিক দৃশ্য

প্রকাশিত: মে ২৫, ২০২১ , ১১:৫১ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ২৬, ২০২১ , ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ

বৈশাখি পূর্ণিমাতেই বছরের প্রথম চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে বুধবার। ফলে গ্রহণের কবলে পড়বে চাঁদ। এতে এদিন সন্ধ্যায় পূর্ণিমার চাঁদের আলো ফুটে উঠবে না পৃথিবীতে। একইসঙ্গে সন্ধ্যায় আকাশে একটি দুর্লভ মহাজাগতিক দৃশ্য দেখা যাবে। আকাশে এদিন সুপার মুন থাকবে, চন্দ্রগ্রহন থাকবে এবং লালরঙের চাঁদও থাকবে। এই তিনের স্পর্শে (ত্র্যহস্পর্শ) বিশেষ মাত্রা পেতে চলেছে বছরের প্রথম চন্দ্রগ্রহণ। আকাশ মেঘে ঢাকা থাকায় এ দৃশ্য নাও দেখা যেতে পারে। বৈজ্ঞানিকরা বলেছেন, গ্রহণের সময় চাঁদে গাঢ় লাল রঙ ধরবে। যাকে ব্লাড রেড মুন বলা হয়। বহু বছরে মাত্র একবারই এমন দৃশ্যের দেখা মেলে। বৈজ্ঞানিকরা এই বিশেষ ইভেন্টকে ‘সুপার লুনার’ ইভেন্ট বলছেন।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে বলা হয়েছে, আজ বুধবার দুপুর ২টা ৪৬ মিনিটে উপচ্ছায়ায় চাঁদ ঢুকবে। ৩টা ৪৪ মিনিটে প্রচ্ছায়ায় ঢুকবে চাঁদ। ৫টা ৯ মিনিট ২৪ সেকেন্ডে পূর্ণ গ্রহণ শুরু হবে। ৫টা ১৮ মিনিট ৪২ সেকেন্ডে হবে কেন্দ্রীয় গ্রহণ। ৫টা ২৮ মিনিটে পূর্ণ গ্রহন হতে চাঁদ নির্গমন করবে। ৬টা ৫২ মিনিট ৪৮ সেকেন্ডে প্রচ্ছায়া হতে চাঁদের নির্গমন করবে এবং ৭টা ৫১ মিনিট ১৮ সেকেন্ডে উপচ্ছায় হতে চাঁদ বেরিয়ে আসবে। আবাহাওয়া অফিস বলেছে, আকাশ পরিষ্কার থাকলে বাংলাদেশে চন্দ্রোদয়ের পর থেকে গ্রহণ শেষ হওয়া পর্যন্ত এটি দেখা যাবে। ঢাকায় সন্ধ্যা ৬টা ৪১ মিনিট থেকে ৭টা ৫১ মিনিট ১৮ সেকেন্ডের মধ্যে, ময়মনসিংহে ৬টা ৪১ মিনিট ৪২ থেকে ৭টা ৫৩ মিনিট, চট্টগ্রামে ৬টা ৩২ মিনিট ১৮ থেকে ৭টা ৪২ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডে, সিলেটে ৬টা ৩৭ মিনিট ১৮ সেকেন্ড থেকে ৭টা ৪৭ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডে, খুলনায় ৬টা ৪২ মিনিট ২৪ সেকেন্ড থেকে ৭টা ৫২ মিনিট ৪২ সেকেন্ড, বরিশালে ৬টা ৩৯ মিনিট থেকে ৭টা ৫৩ মিনিট ১৮ সেকেন্ড, রাজশাহীতে ৬টা ৪৮ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড থেকে ৭টা ৫৯ মিনিট ১২ সেকেন্ড এবং রংপুরে ৬টা ৪৯ মিনিট ৩০ সেকেন্ড থেকে ৭টা ৫৯ মিনিট ৪৮ সেকেন্ডের মধ্যে চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে। বাংলাদেশ ছাড়াও পূর্ব ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে দেখা যাবে এই চন্দ্রগ্রহণ। এই রাজ্যগুলি হল – পশ্চিমবঙ্গ, অরুণাচল প্রদেশ, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, পূর্ব ওডিশা, মণিপুর, ত্রিপুরা, অসম এবং মেঘালয়। এছাড়াও চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে জাপান, সিঙ্গাপুর, মিয়ানমার, দক্ষিণ কোরিয়া, ফিলিপিন্স, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকা, প্রশান্ত মহাসাগরীয় এবং ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চল।

বৈজ্ঞানিকদের মতে, চাঁদ যখন পৃথিবীর খুব কাছাকাছি চলে আসে তখন দেখতে প্রায় ১২ শতাংশ বড় লাগে। সাধারণত পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব প্রায় ৪ লাখ ১০ কিলোমিটারের আশেপাশে। কিন্তু সুপারমুনের ক্ষেত্রে এই দূরত্ব কমে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৭শ কিলোমিটারে চলে আসে। সেজন্যই একে সুপারমুন বলা হয়। চাঁদ পৃথিবীর ডিম্বাকার কক্ষপথে প্রদক্ষিণ করে। কক্ষের মাঝামাঝি চলে এলে চাঁদের দূরত্ব কমে যায়। তখন চাঁদ বড় দেখায়। প্রদক্ষিণ করার সময় সূর্য এবং চাঁদের মাঝে যখন পৃথিবী চলে আসে তখন তার ছায়া গিয়ে পড়ে চাঁদের ওপর। সে কারণে চন্দ্রগ্রহন হয়। অনেকসময় সেই ছায়া আংশিকভাবে চাঁদের ওপর পড়ে তখন হয় আংশিক চন্দ্রগ্রহন। কখনও ছায়ায় পুরো ঢেকে যায় চাঁদ তখন হয় চাঁদের পূর্ণ গ্রহন। চাঁদ যখন পৃথিবীর ছায়ায় পুরোপুরি ঢেকে যায় তখন সূর্যের সাতরঙে থাকা লাল রঙের তরঙ্গ পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল ভেদ করে পৌঁছে যায় চাঁদে। তাই পূর্ণ গ্রহনের সময় অনেকবারই চাঁদকে গাঢ় লাল রঙের দেখতে লাগে। বায়ুমন্ডলের কারণেই খানিকটা সরলরেখা পরিবর্তন করে লাল রশ্মি গিয়ে লাগে চাঁদের গায়ে। সে কারণেই এমন দৃশ্যের দেখা মেলে।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়