ঈদের ছুটি শেষে কর্ম ব্যস্ততায় ফিরেছে রাজধানী

আগের সংবাদ

পাইরেসির শিকার 'রাধে', চটেছেন সালমান

পরের সংবাদ

ঈদের আমেজে ব্যাংকপাড়া, নেই গ্রাহকের ভিড়

প্রকাশিত: মে ১৬, ২০২১ , ১২:২২ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ১৬, ২০২১ , ১২:৩৫ অপরাহ্ণ

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে তিন দিনের ছুটি শেষে আজ রবিবার (১৬ মে) থেকে খুলেছে ব্যাংক। তবে কর্মকর্তাদের উপস্থিতি ছিল অনেক কম। ঈদের ছুটির পর প্রথম কার্যদিবসে চলছে শুধুই ঈদের আমেজের আনুষ্ঠানিকতা আর শুভেচ্ছা বিনিময়। একইভাবে ব্যাংকপাড়ায় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া লেনদেনও খুব একটা হতে দেখা যায়নি।

আজ রবিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত চলবে লেনদেন। আনুষঙ্গিক কার্যক্রম শেষ করতে ব্যাংক খোলা থাকবে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত। আর দেশের শেয়ারবাজারে লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত।

দেশে সব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান সমূহের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ব্যাংকেও উপস্থিতি ছিল কম। অধিকাংশ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শাখাগুলোতে কর্মকর্তাদের অলস সময় কাটাতে দেখা গেছে। ঈদের ছুটির পর প্রথম কার্যদিবস হওয়ায় উপস্থিতি কম বলে জানিয়েছেন বিভিন্ন ব্যাংকের কর্মকর্তারা।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংকের মালিবাগ শাখায় গিয়ে দেখা গেছে, সাধারণ ব্যাংকিংয়ের জন্য গ্রাহকদের তেমন কোনো ভিড় নেই। একই চিত্র দেখা গেছে, মগবাজারের ব্যাংক এশিয়া ও সিটি ব্যাংকের শাখাতেও।

মতিঝিলে সোনালী, রূপালী, অগ্রণী ও জনতা ব্যাংকের স্থানীয় শাখা ঘুরে দেখা গেছে, বিদ্যুৎ বিল, ট্রাভেল ট্যাক্স প্রদানকারীদের দুই-একজন কাউন্টারে উপস্থিত হয়েছেন। নগদ জমা ও উত্তোলনের কাউন্টারগুলোতে গ্রাহকদের উপস্থিতি ছিল স্বল্প।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আগামী সপ্তাহ থেকে আবার জমে উঠবে ব্যাংকগুলোর কার্যক্রম। ছুটি শেষে তার ফিরে আসার পর জমজমাট হবে ব্যাংক পাড়া।

মতিঝিলে অবস্থিত সরকারি-বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকের শাখাগুলোতেও চোখে পড়েনি উল্লেখ করার মতো গ্রাহকের উপস্থিতি ও লেনদেন। সোনালী-রূপালী ও অগ্রণী ব্যাংকের স্থানীয় শাখায় কিছু গ্রাহককে লেনদেন করতে দেখা গেছে। বেসরকারি দুই-একটি ব্যাংকে আমদানি-রপ্তানি এলসি খোলা হয়েছে বলে জানান কর্মকর্তারা।

গত বৃহস্পতিবার (১৩ মে) থেকে ঈদের ছুটি শুরু হয়, তা শেষ হয় শনিবার (১৫ মে)। শুক্রবার পালিত হয় ঈদুল ফিতর। করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে আগে থেকেই সরকারের নির্দেশনা ছিল ঈদের ছুটিতে বাধ্যতামূলকভাবে কর্মস্থলে থাকতে হবে। একইসঙ্গে ঈদের ছুটি একদিন কমিয়েও দেয়া হয়েছে। গত বুধবার ২৯ রজমানও অফিস খোলা ছিল।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে চলমান বিধিনিষেধে সীমিত পরিসরে খোলা রয়েছে ব্যাংক।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়