আদালতে তোলা হয় এসপি বাবুল আক্তারকে

আগের সংবাদ

সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে ১০ কোটি টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

পরের সংবাদ

গুগলে ফ্রি ছবি রাখার দিন ফুরাচ্ছে ১ জুন

প্রকাশিত: মে ১২, ২০২১ , ৬:১৩ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ১২, ২০২১ , ৬:১৩ অপরাহ্ণ

আগামী ১ জুন থেকে গুগল ফটোজে আপলোড করা যেকোনো ছবি ব্যবহারকারীর জন্য বরাদ্দ ১৫ গিগাবাইট স্টোরেজ থেকে কাটা হবে। আর সে সীমা পেরিয়ে গেলে অর্থ পরিশোধ করে কিনতে হবে বাড়তি স্টোরেজ।

তবে এই নিয়ম নতুন করে আপলোড করা ছবি বা ভিডিওর ক্ষেত্রে। ১ জুনের আগে ফটোজে আপলোড করা মিডিয়া ফাইল এই বিধিনিষেধের মধ্যে পড়বে না। অর্থাৎ আপনি চাইলে চলতি মাসে গুগল ফটোজে ইচ্ছেমতো ছবি আপলোড করে রাখতে পারেন।

বর্তমানে গুগল ফটোজে যত ইচ্ছা তত ছবি আপলোড করার সুবিধা আছে। তবে আপলোডের পর ছবি বা ভিডিওর মূল ফাইল থেকে মান কিছুটা কমিয়ে দেওয়া হয়। আর মান অপরিবর্তিত রাখার অপশন নির্বাচন করলে ওই ১৫ গিগাবাইট স্টোরেজ থেকে কাটা হয়। ১ জুন থেকে আপলোড করা সব ফাইলই বরাদ্দকৃত স্টোরেজ থেকে কাটা হবে।

গুগলে অ্যাকাউন্ট খোলার সময় বিনা মূল্যে ১৫ গিগাবাইট স্টোরেজ দেওয়া হয়। জিমেইলের ই-মেইল, গুগল ড্রাইভের ফাইল, ওয়ার্কস্পেসের ডকুমেন্ট এবং ১ জুন থেকে ফটোজে রাখা ছবি এই স্টোরেজ থেকে কাটা হবে।

গুগলে আপনার জন্য বরাদ্দকৃত স্টোরেজ থেকে কী ধরনের ফাইলের জন্য কতটুকু জায়গা খরচ করেছেন, তা দেখে নিতে পারেন এই লিংক থেকে: photos.google.com/storage।

কোটা ফুরিয়ে গেলে কী করবেন:

কম্পিউটারে প্রয়োজনীয় ফাইল নামিয়ে ব্যাকআপ নিতে পারেন। এরপর ফটোজ থেকে সেগুলো মুছে ফেলে জায়গা খালি করে দিন। আবার গুগল ওয়ানের স্টোরেজ কিনতে পারেন। প্রতি মাসে ১৫০ টাকার বিনিময়ে ১০০ গিগাবাইট এবং ২৫০ টাকার বিনিময়ে ২০০ গিগাবাইট স্টোরেজ পাবেন। আর ২ টেরাবাইট স্টোরেজের জন্য মাসে খরচ করতে হবে ৮০০ টাকা।

আরেকটি ব্যাপার হলো, গুগলের বিদ্যমান পিক্সেল ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা ১ জুনের পরও আগের মতো নিজের অ্যাকাউন্টে ছবি বা ভিডিও আপলোড করে যেতে পারবেন স্টোরেজের চিন্তা না করেই। তবে সে ফাইল আপলোড করতে হবে পিক্সেল স্মার্টফোন থেকেই। ভবিষ্যতে সে সুবিধাও বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়