নতুন আতঙ্ক: কালো ছত্রাকে অন্ধ হয়ে যাচ্ছে করোনা রোগীরা

আগের সংবাদ

আন্দোলন করে বাড়তি ছুটি নিয়েই ঘরে ফিরল শ্রমিকরা

পরের সংবাদ

বেতাগীতে নির্বাচনী সহিংসতার মামলায় চারজন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: মে ৯, ২০২১ , ১০:৪৪ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ৯, ২০২১ , ১০:৪৪ অপরাহ্ণ

বরগুনার বেতাগীতে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্রে করে প্রতিপক্ষের হামলায় রফিক বিশ্বাস নামের এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় দায়ের কারা মামলায় প্রধান আসামি ও সরিষামুড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ শরিফসহ চার জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রবিবার (৯ মে) বরিশালের বাকেরগঞ্জ এলাকা থেকে বিকেল সাড়ে তিনটায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ইউসুফ শরিফ বেতাগী উপজেলার সড়িষামুড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমান ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী। গ্রেপ্তারকৃত বাকিরা হলেন, মো.জাফর (৩৭), ফারুক ও শাহীন।

বরগুনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মেহেদী হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, প্রথম ধাপে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত ২৩ মার্চ রাতে উপজেলার সরিষামুড়ির ভোড়া এলাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউসুফ শরীফের বাড়ির সামনে রফিক বিশ্বাস নামের এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় রফিক বিশ্বাসের ছোট ভাই আজীম বিশ্বাস বাদি হয়ে ২৫ মার্চ বেতাগী থানায় ইউসুফ শরিফকে প্রধান করে ১১ জনের নামে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। বেতাগী থানা পুলিশ ৮ এপ্রিল অভিযোগটি এজাহার হিসেবে গ্রহণ করেন।

এর আগে গত বছরের ২০ নভেম্বর সরিষামুড়ি ইউনিয়নের কালিকাবাড়ি গ্রামে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যান সড়িষামুড়ি ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ইমাম হাসান ও সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ শরিফ। অনুষ্ঠানে খাওয়া শেষ করে আগেই বিয়ে বাড়ি থেকে চলে যান ইউসুফ শরীফ। এর ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর বেলা দুইটার দিকে বিয়েবাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে করে ফিরছিলেন বর্তমান চেয়ারম্যান ইমাম হাসান। কিছু দূর যেতেই আগে থেকে ওত পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা ইমাম হাসানের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে কোপাতে শুরু করেন। এতে তিনি মোটরসাইকেল থেকে রাস্তায় পড়ে গেলে তার পায়ে ও হাতে কোপাতে থাকেন। ধারালো অস্ত্রের কোপে হাড় কেটে ঝুলে ছিল তার বাঁ পা। আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তিনি ঢাকায় জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে (পঙ্গু হাসপাতাল) ভর্তি করা হয়।

হামলার এ ঘটনায় ওই ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ শরিফকে প্রধান আসামি করে তাঁর তিন ছেলেসহ ১৪ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় আরও পাঁচ থেকে ছয়জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে। আহত চেয়ারম্যানের শ্বশুর রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি করেন। ওই মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছে আসামিরা।

বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন বলেন, রফিক বিশ্বাস নামের এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় প্রধান আসামি ইউসুফ শরিফসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ না হয় কাল তাদের আদালতে তোলা হবে।

এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়