অ্যাতলেটিকোকে রুখে দিয়ে রিয়ালের পথ প্রশস্ত করল বার্সা

আগের সংবাদ

মূলধারার প্রচারমাধ্যমের প্রতি পাঠকের পাঠবিমুখতা

পরের সংবাদ

আরো চার বছর পিএসজিতে থাকছেন নেইমার

প্রকাশিত: মে ৮, ২০২১ , ১১:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ৮, ২০২১ , ১১:৫৮ অপরাহ্ণ

ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার ২০১৭ সালে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দিয়েছিলেন। তিনি পিএসজিতে আসার পর থেকে বার্সায় আবার ফেরার জন্য ব্যাকুল হয়ে উঠেছিলেন। প্রায় প্রতিটি মৌসুম শেষেই এই ব্যাকুলতা দেখিয়েছেন। তাই মৌসুম শেষের পথে আসলেই নেইমারের বার্সায় ফেরার আলোচনাটি সামনে আসে। এবারো এর ব্যতিক্রম নয়। গুঞ্জন উঠেছিল নেইমার হয়তো এই মৌসুম শেষে নিজের পুরনো ঠিকানায় ফিরবেন। তবে সেই গুঞ্জনে পানি ঢেলে দিয়েছেন স্বয়ং নেইমার জুনিয়র শনিবার নতুন করে আরো চার বছরের চুক্তি করেছেন পিএসজির সঙ্গে। ফলে পিএসজির সঙ্গে ২০২৫ সাল নাগাদ থাকছেন তিনি। নেইমারের বিষয়টি এখন প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেলেও এমবাপ্পেকে নিয়ে অনিশ্চয়তায় রয়েছে ফরাসি জায়ান্টরা। কারণ তিনি এখনো পিএসজির সঙ্গে চুক্তির ব্যাপারে কোনো নিশ্চিত বক্তব্য দেননি বা ক্লাবের সঙ্গে কথা বলেননি।

নতুন করে চুক্তি করার পর এক ভিডিও বার্তায় নেইমার জুনিয়র বলেছেন, ‘পিএসজির সঙ্গে মেয়াদ বাড়ানো আমার জন্য আনন্দের বিষয়। আমি প্যারিসে খুব সুখে আছি। এই দলের অংশ হয়ে থাকা গর্বের ব্যাপার। এখানে মানুষ ও খেলোয়াড় হিসেবে বেড়ে উঠছি। চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়ে আমি খুশি। আশা করি সামনে অনেক শিরোপা জিতব।’ পিএসজিতে নেইমারের সবচেয়ে বড় সঙ্গী ফরাসি বিশ্বকাপজয়ী কিলিয়ান এমবাপ্পে। তার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সাফল্য পাওয়ার স্বপ্ন দেখছিলেন নেইমার। কিন্তু শোনা যাচ্ছে এই মৌসুম শেষে এমবাপ্পে নতুন কোনো দলে যাওয়ার জোর চেষ্টা চালাবেন। এমবাপ্পেকে পাওয়ার জন্য রিয়াল মাদ্রিদ উন্মুখ হয়ে আছে। তাদের এ মৌসুমে এখন অন্যতম লক্ষ্য হলেন এমবাপ্পে। আর এমবাপ্পে চাচ্ছেন পিএসজির চেয়ে ভালো কোনো ক্লাবে যাবেন, শিরোপা জয় করবেন। এক্ষেত্রে তার জন্য সবচেয়ে আদর্শ রিয়াল।

এখন এমবাপ্পে যদি চলে যেতে চান, তাহলে পিএসজির খুব বেশি কিছু করার থাকবে না। তবে তারা একদিক দিয়ে একটু শান্ত হয়েছে, কারণ তারা নেইমারকে দলে রাখতে সক্ষম হয়েছে। এদিকে এমবাপ্পের সঙ্গে পিএসজির চুক্তি শেষ হবে ২০২১-২২ মৌসুম শেষে। ফলে যা করার এ মৌসুমেই করতে হবে। হয় তাকে বুঝিয়ে ক্লাবে রাখতে হবে, নয়তো অন্য কোনো ক্লাবে পাঠিয়ে দিতে হবে, কারণ তার সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে গেলে ফ্রি ট্রান্সফার ফিতে তখন এমবাপ্পেকে ছেড়ে দিতে হবে। পিএসজি তাই এখন জোর চেষ্টা চালাবে এমবাপ্পেকে বোঝানোর। আর তারা যদি এই চেষ্টায় সফল না হয়, তাহলে তাদের আর কিছুই করার থাকবে না। এমবাপ্পেকে যেতে দিতেই হবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়