তাইজুলের পর মিরাজের আঘাত

আগের সংবাদ

সব কোর্ট খুললে করোনা সংক্রমণ বাড়বে: প্রধান বিচারপতি

পরের সংবাদ

লকডাউানের মধ্যেও এপ্রিলে সড়কে মৃত্যু ৪৬৮

প্রকাশিত: মে ২, ২০২১ , ১২:৫৩ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ২, ২০২১ , ১২:৫৩ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেওয়া লকডাউনের মধ্যে গত এপ্রিল মাসে ৪৩২টি সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৪৬৮ জন। আর আহত হয়েছেন ৫০৭ জন।

এদিকে, একই সময় রেলপথে আটটি দুর্ঘটনায় ছয়জন নিহত হয়েছেন এবং নৌ-পথে ১৪টি দুর্ঘটনায় ৩৮ জন নিহত, নয়জন আহত এবং দুইজন নিখোঁজ হয়েছেন।

রবিবার (২ মে) বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির পক্ষ থেকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। দেশের সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংগঠনের মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

মোজাম্মেল হক জানান, এপ্রিল মাসে সড়কে দুর্ঘটনায় আক্রান্ত ৮২ জন পথচারী, ১৩৪ জন চালক, ১১০ জন পরিবহন শ্রমিক, ৩৩ জন শিক্ষার্থী, ছয়জন শিক্ষক, ২৮ জন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, ৫২ জন নারী, ৪৭ জন শিশু এবং চারজন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীর পরিচয় সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে।

এর মধ্যে নিহত হয়েছে ১১২ জন চালক, ৮২ জন পথচারী, ৩৮ জন নারী, ২৬ জন শিক্ষার্থী, ৩৬ জন পরিবহন শ্রমিক, ৪২ জন শিশু, দুইজন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, সাতজন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও চারজন শিক্ষক ছিলেন।

সর্বোচ্চ ২২১টি দুর্ঘটনা ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানে, ১৪৪টি দুর্ঘটনা মোটরসাইকেলে, ৫৫টি ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক, ৬৪টি নসিমন ও করিমন, ৫২টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ৩০টি প্রাইভেটকার ও ২০টি বাস এসব দুর্ঘটনায় জড়িত ছিল।

এ মাসে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয় গত ৮ এপ্রিল। ওইদিনে ২৬টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২৬ জন নিহত ও ৩৩ জন আহত হন। সবচেয়ে কম সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয় গত ১৪ এপ্রিল। এদিন ছয়টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ জন নিহত ও ছয় জন আহত হয়।

গত ৫ এপ্রিল এক সপ্তাহের জন্য দেশে সীমিত পরিসরে লকডাউন দেওয়া হয়। পরে এটি সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করে ১৪ এপ্রিল থেকে লকডাউন করা হয় দেশ। পরবর্তীতে এটি বাড়িয়ে ৫ মে পর্যন্ত করে সরকার।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়