জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মুনিয়ার বোনের জিডি

আগের সংবাদ

বিশ্বনাথে প্রবাসীর গুলিতে স্কুলছাত্র নিহত, গুলিবিদ্ধ আরও ৩

পরের সংবাদ

মমতার হ্যাট্রিক না মোদির প্রথম, জানা যাবে রবিবার

প্রকাশিত: মে ১, ২০২১ , ১১:৩৭ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ২, ২০২১ , ১:২৯ পূর্বাহ্ণ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবারও বিজয় পেয়ে হ্যাট্রিক করবেন, নাকি ভারতীয় জনতা পার্টি -বিজেপি বিজয় ছিনিয়ে নেওয়ার মধ্যে দিয়ে প্রথমবারের মতো এ রাজ্য দখল করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি? এ প্রশ্ন এখন সারা ভারতেই ঘুরপাক খাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গবাসী ফল গণনা শুরুর অপেক্ষায় প্রহর গুনছেন। ভোটের পর বুথফেরত জরিপ এ রাজ্যের বাসিন্দাদের দিতে পারেনি কোনো স্পষ্ট আভাস। দিয়েছে শুধু হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পূর্বাভাস। ভোট গণনা শুরু হবে রবিবার (২ মে) সকাল ৮টা থেকে। এর আগে ফল নিয়ে কেবল জল্পনাই সার। তবে বিজেপি ও তৃণমূল দুই দলই দৃঢ় আশাবাদী জয়ের ব্যাপারে।

ভারতে চার রাজ্য ও একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বিধানসভা নির্বাচন হয়েছে। রাজ্য চারটি হলো পূর্ব ভারতে পশ্চিমবঙ্গ ও আসাম এবং দক্ষিণ ভারতে তামিলনাড়ু ও কেরালা। এ ছাড়া দক্ষিণ ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পদুচেরি। এগুলোর মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ বাদে বাকি এলাকাগুলোর বুথফেরত জরিপে বেশ স্পষ্ট আভাস পাওয়া গেছে, কোন কোন দল ওই সব এলাকায় সরকার গঠন করতে চলেছে।

অধিকাংশ বুথফেরত জরিপে আভাস মিলেছে, তামিলনাড়ুতে ক্ষমতায় আসতে চলেছে এম কে স্টালিনের দ্রাবিড়া মুনেত্রা কাজাগামের (ডিএমকে) নেতৃত্বাধীন জোট। কেরালায় বামপন্থীদের এবং আসামে বিজেপি জোটের ক্ষমতায় টিকে থাকার আভাসও পাওয়া গেছে। এদিকে পদুচেরিতে বিজেপি-কংগ্রেসের লড়াই হবে মনে হলেও বুথফেরত জরিপ বলছে, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটই সরকার গঠন করবে। পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে স্পষ্ট আভাস নেই কোনো বুথফেরত জরিপই।

গত ২৭ মার্চ পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে ভোট শুরু হয়ে তা শেষ হয়েছে গত বৃহস্পতিবার। আট দফায় ভোট পড়ার গড় ৮১ দশমিক ৬ শতাংশ। নির্বাচন কমিশন অবশ্য এখনো জানায়নি, ভোট পড়ার চূড়ান্ত হার কত। পশ্চিমবঙ্গে সহিংসতার মাত্রাও অন্যবারের তুলনায় ছিল অনেক বেশি। ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ও ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসও কোমর বেঁধে লড়াই করেছে নির্বাচনী মাঠে।

পশ্চিমবঙ্গে বারবার এসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহসহ বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা। অমিত শাহ ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত ১২ দফায় পশ্চিমবঙ্গে এসেছেন। কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে জিততে যে টাকা খরচ করেছে, তাও অতীতের নির্বাচনে দেখা যায়নি। এর জন্য তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার অভিযোগ করেছেন, বিজেপি রাজ্যে টাকা ও করোনা ছড়াচ্ছে।

তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ধারাবাহিকভাবে বিজেপি অভিযোগ করেছে যে তারা অসংখ্য স্থানীয় নেতা ও কর্মীকে খুন করেছে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে অমিত শাহ বলেছিলেন, ১৩০-এরও বেশি বিজেপি কর্মীকে খুন করেছে তৃণমূল। তৃণমূল বলেছে, এই মৃত্যুর মিছিল বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। আজকের ফল ঘোষণার পর পশ্চিমবঙ্গে আরও সহিংসতার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার মোট ২৯৪টি আসনের মধ্যে ২৯২টিতে ভোট হয়েছে। প্রার্থী মারা যাওয়ায় দুটি আসনে ভোট স্থগিত রয়েছে। মোট ১০৮টি গণনা কেন্দ্রে ভোট গণনা হবে। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, করোনার প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণনা হবে বলে। ভোট গণনা কেন্দ্রে বিভিন্ন দলে রাজনৈতিক কর্মীদের ঢুকতে করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট লাগবে। এসবের ফলে এবারের ভোট গণনা অন্যবারের তুলনায় কিছুটা ধীরে হতে পারে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়