মুক্তিপন না পেয়ে হত্যা, ২৫দিন পর লাশ উদ্ধার

আগের সংবাদ

বড় সংগ্রহের পথে এগোচ্ছে টাইগাররা

পরের সংবাদ

সারেগামাপার বিতর্ক নিয়ে মুখ খুললেন জয় সরকার

প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০২১ , ১:০১ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ২১, ২০২১ , ১:০১ অপরাহ্ণ

ভারতীয় টিভি চ্যানেল জি বাংলার রিয়েলিটি শো সারেগামাপা-২০২০ মৌসুম নিয়ে চলছে তুমুল বিতর্ক। গানের দীর্ঘ লড়াইয়ে বহু প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে এই পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয় পশ্চিমবঙ্গের অর্কদীপ মিশ্র। তবে দর্শকদের ভোটে বিজয়ী হন অনুষ্কা। এমন ঘটনায় নেটাগরিকদের মধ্যে চলছে তুলকালাম। অনুষ্কার সমর্থকেরা মানতেই পারছেন না যে অনুষ্কা চ্যাম্পিয়ন হতে পারেননি। ফেসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তারা, এমনকি ফলাফল ও বিচারকার্য নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন। অবশেষে এ ঘটনায় মুখ খুলেছেন সারেগামাপার বিচারক জয় সরকার। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সোশ্যাল মিডিয়ায় এসে সরাসরি দর্শক-শ্রোতাদের সব অভিযোগের জবাব দেন তিনি।

অভিযোগ শুনে আক্ষরিক অর্থেই মুষড়ে পড়েছিলেন জয় সরকার। তার দাবি, গানের এই রিয়েলিটি শো প্রচণ্ড জনপ্রিয় বলেই তা নিয়ে এত বিতর্ক। চূড়ান্ত পর্বে অর্কদীপ মিশ্রকে সেরা ঘোষণার পর থেকেই জয়ের বিরুদ্ধে দর্শক-শ্রোতারা ক্ষুব্ধ। নেটমাধ্যমে সরাসরি লেখা হচ্ছে, জয় প্রতিযোগীদের থেকে ঘুষ নিয়েছেন। গান-বাজনা না শিখেই বিচারক হয়েছেন। তাই অর্কদীপের মতো শুধু লোকগানের শিল্পী সেরার শিরোপা পেলেন। অনেকেই বলছেন, আগে থেকেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়ে গিয়েছিল। তাই অনুষ্কা, নীহারিকা, বিদীপ্তা, জ্যোতির মতো প্রতিযোগীকে ছাপিয়ে গিয়েছেন অর্কদীপ। ওর এই সম্মান পাওয়ার যোগ্যতাই নেই।

সংগীতশিল্পী লোপামুদ্রা গতকাল জয়ের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের সরাসরি প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন নেটমাধ্যমে। এবার জয় সেই বিষয়টি আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে গেলেন। জয়ের কথায়, ‘গানকে প্রচণ্ড ভালবাসলে তবে এই অনুভূতি আসে এবং সেই অনুভূতির জোয়ারে ভেসে তাৎক্ষণিক কিছু নেতিবাচক মন্তব্যও চলে আসে। যেটি সোমবার থেকে নেটমাধ্যমে দেখা যাচ্ছে।’ তিনি জানান, দর্শক-শ্রোতাদের এই ‘ভালোবাসার ভর্ৎসনা’কে তিনি মাথা পেতে নিচ্ছেন। পাশাপাশি প্রশ্ন তুলেছেন, গত ১০ বছর ধরে তিনি এই রিয়েলিটি শোয়ের সঙ্গে যুক্ত। তা হলে ১০ বছর ধরেই কি তিনি ঘুষ নিচ্ছেন? একই সঙ্গে সবিনয়ে স্বীকার করে নিয়েছেন, তিনি গান-বাজনা সত্যিই জানেন না।

জয়ের কথায়, প্রয়াত আলি আকবর খাঁও এক সময় বলেছিলেন সঙ্গীত সমুদ্রের মতো। এক জীবনে তাকে জানা অসম্ভব।’ জয়ের মতে, তিনি নিজে অতিসাধারণ। তাই তার পক্ষে মাত্র ৩০ বছরে গান-বাজনাকে জানা সম্ভব নয়। কিন্তু এর পরেই তিনি নস্যাৎ করেছেন ‘পূর্বনির্ধারিত ফলাফল’র মতো অভিযোগ। জয়ের ভাষ্য, দর্শক-শ্রোতাদের পক্ষে জানা সম্ভব নয় কোন নিয়ম মেনে প্রতিযোগিতা হয়। জয় বলেছেন, ‘চিত্রনাট্য মেনে আমরা কিছু করেই থাকি। সেই করে থাকায় আমরা প্রতিযোগীদের নাম জানি। তারা কী গাইছেন সেটা জানি। আর তাদের নামের পাশে নম্বর বসাই। স্কোর বোর্ডে নম্বর দিই।

পেশায় সুরকার এবং এই রিয়েলিটি শোয়ের বিচারক জয় আরো বলেন, ওই টুকুই চিত্রনাট্যের আকারে তার হাতে এসেছে। ফাইনাল রাউন্ডে যে চার জন উঠেছিলেন, তাদের বাইরেও এমন অনেক প্রতিযোগী ছিলেন, যাদের কণ্ঠ, গায়কী কান পেতে শোনার মতো। কিন্তু নিয়ম মেনে ফাইনালে ছয় থেকে চার জনই উঠবেন। সেখান থেকে ‘সেরা’ হবেন একজন।

উল্লেখ্য, সদ্য সমাপ্ত সারেগামাপা’র চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় জায়গা করে নিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের অর্কদীপ মিশ্র, রক্তিম চৌধুরী, বিদীপ্তা চক্রবর্তী, জ্যোতি শর্মা, নীহারিকা নাথ ও অনুষ্কা পাত্র। শেষ পর্যন্ত বিজয়ী হন অর্কদীপ। দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন নীহারিকা এবং তৃতীয় হন বিদীপ্তা।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়