ডায়রিয়া ও করোনায় যবুথবু চরফ্যাশন, ওষুধ সংকটে হাসপাতাল

আগের সংবাদ

সব মামলায় জামিনের মেয়াদ বাড়ল দুই সপ্তাহ

পরের সংবাদ

রেল কোচ তৈরিতে সাড়ে ৭শ কোটি টাকা ঋণ দেবে ভারত

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৮, ২০২১ , ৭:৫২ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ১৮, ২০২১ , ৭:৫২ অপরাহ্ণ

সৈয়দপুরে একটি নতুন রেল কোচ নির্মাণ কারখানার জন্য ৭৫৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকা ঋণ দেবে ভারত। ফলে কমবে রেল কোচ আমদানি নির্ভরতা। দেশেই তৈরি হবে উন্নত মানের যাত্রীবাহী রেলকোচ। এ উদ্যোগ হাতে নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। আর এ উদ্যোগেই সাড়া দিয়েছে ভারত সরকার।

এ বিষয়ে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন জানান, গত বছর আমরা ভারত সফরের সময় রেলকোচ নির্মাণের জন্য কারখানা তৈরিতে ভারতের কাছে সহযোগিতা চাই। তারা সৈয়দপুরে রেলকোচ নির্মাণের জন্য ঋণ দেবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়।

তিনি জানান,বাংলাদেশ রেলওয়ের সম্ভাব্যতা সমীক্ষাসহ সৈয়দপুরে ক্যারেজ তৈরি কারখানা নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় ঋণ দেবে ভারত। প্রকল্পের মোট ব্যয় ১ হাজার ৪৬০ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। এর মধ্যে ভারতীয় ঋণ ৭৫৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। চলতি সময় থেকে ২০২২ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে রেলপথ মন্ত্রণালয়। তার পরে আমরা কোচ তৈরিতে যাবো।

এদিকে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব (পরিকল্পনা-১) আ.ন.ম. আজিজুল হক রবিবার মুঠোফোনে বলেন, ভারতীয় ঋণে সৈয়দপুরে রেলকোচ তৈরির কারখানা নির্মাণ করা হবে। এর ফলে দেশে রেলকোচের সংকট যেমন মিটবে, তেমনি দেশীয় মুদ্রা সাশ্রয়ও হবে।

রেলসূত্র জানায়, সৈয়দপুর ওয়ার্কশপ বাংলাদেশ রেলওয়ের সবচেয়ে বড় রেলওয়ে ওয়ার্কশপ। ১১২ একর আয়তনের এ ওয়ার্কশপের মাধ্যমে ক্যারেজ পুনর্বাসন করা হয়। ওয়ার্কশপটির আয়তন ১১২ একর হওয়ায় এখানে নতুন কোচ তৈরির কারখানা নির্মাণ করার জন্য প্রয়োজনীয় জায়গা রয়েছে।

প্রকল্পের অন্যতম কার্যক্রম হচ্ছে পরামর্শক নিয়োগ। ২৪ জন রেলওয়ে প্রকৌশলীদের বৈদেশিক প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। ওয়ার্কসপ তৈরির জন্য ভারতে শিক্ষা সফরে যাবেন ৬৩ জন। প্রকৌশলীদের চাকরিকালীন প্রশিক্ষণ নেবেন ৯৬ জন।

প্রকল্পের আওতায় সমীক্ষাসহ ডিজাইন ও নির্মাণ সুপারভিশনের জন্য আন্তর্জাতিক ও দেশীয় পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হবে। ইঞ্জিনিয়ারদের বৈদেশিক প্রশিক্ষণ, সিভিল ওয়ার্কস নির্মাণ, প্রশাসনিক ভবন ও ট্রেনিং সেন্টারসহ অন্যান্য সার্ভিস ভবন নির্মাণসহ অবকাঠামাগত উন্নয়ন করা হবে। এর পরে ২০২২ সালের শেষ দিকে কোচ তৈরি করবে রেলওয়ে। তবে সম্পতি কোভিট সংক্রমন বাড়তে থাকায় এটির নির্মাণ কাজে বিঘ্ন ঘটতে পারে বলে রেলের অনেক উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা মনে করছেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়