৫০০ বেডে উন্নীত হচ্ছে পুলিশ হাসপাতাল

আগের সংবাদ

১৮ বছরের নিচে হিজাব নিষিদ্ধ করল ফ্রান্স

পরের সংবাদ

রাজশাহীতে আনসার সদস্য হত্যায় অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: এপ্রিল ১১, ২০২১ , ১০:৪৭ পূর্বাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ১১, ২০২১ , ১২:০২ অপরাহ্ণ

দোকানের লাইট বন্ধ করাকে কেন্দ্র করে মিজানুর রহমান মিজান (৩৫) নামের এক আনসার সদস্যকে ছুরিকাঘাত করে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত প্রতিবেশী মাধব সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার (১০ এপ্রিল) সাড়ে ১১টার দিকে পুঠিয়া উপজেলার বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ঘটনার পর থেকেই আসামি মাধব সরকারকে গ্রেপ্তারে পুলিশের একটি বিশেষ টিম কাজ করছিল। শনিবার রাতেই অভিযান চালিয়ে পুঠিয়া বাজার থেকে মাধবকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় বোয়ালিয়া মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।

জানা গেছে, নিহত মিজানুর রহমান মিজান হেতেমখাঁ সবজিপাড়া এলাকার মিন্টু মিয়ার ছেলে। মিজান গাজীপুরের সখিপুর এলাকায় ২৪ ব্যাটেলিয়ান আনসার বাহিনীর সদর দফতরে কর্মরত ছিলেন। তিনি আনসার সদস্যদের হ্যান্ডবল দলের জুনিয়র কোচ ছিলেন। রাজশাহীতে এক মাসের ছুটিতে এসেছিলেন বলে জানিয়েছে তার পরিবার।

প্রত্যক্ষদর্শী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা জানিয়েছেন, শনিবার সন্ধ্যার পরও নেসকো অফিসের পাশে একটি মুদি দোকান খোলা ছিল। করোনায় লকডাউনের কারণে সরকারি আদেশ মান্য করার জন্য দোকানিকে লাইট বন্ধ করতে বলেন আনসার সদস্য মিজান। এ নিয়ে পাশে অবস্থান করা মাধব সরকার আনসার সদস্য মিজানের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে মাধব অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করায় দু’জনের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। আশপাশের লোকজন তাদেরকে নিবৃত্ত করেন। কিছুক্ষণ পর মিজান তার বাড়ির দিকে চলে যান। ওই সময় মাধব ধারালো ছুরি নিয়ে মিজানের ওপর অতর্কিত হামলা করে। পরপর দুইবার পেটে ছুরিকাঘাতের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে হাসপাতালে নেওয়ার আগেই মারা যান তিনি।

এলাকাবাসী জানান, কয়েকবছর আগেও মাধব নিজ এলাকায় এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাত করে হত্যাচেষ্টা করে। কিন্তু মাধব প্রভাবশালী হওয়ায় ওই ভুক্তভোগী বিচার পায়নি। এছাড়াও মাধব মাদক সেবন ও ব্যবসার সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এদিকে আনসার সদস্য মিজানের হত্যার খবর পেয়ে রাজশাহী জেলার দায়িত্বে থাকা জোন-৪ আনসার ব্যাটেলিয়নের পরিচালক মোহাম্মদ মেহেদী হাসান তার বাড়িতে যান এবং শোকাহত পরিবার-পরিজনদের প্রতি সমবেদনা জানান। এ সময় তিনি বলেন, মিজান শুধু আনসার বাহিনীরই সম্পদ ছিলেন না। তিনি পুরো বাংলাদেশের সম্পদ ছিলেন। তার অবদানের কারণেই বাংলাদেশ আনসার বাহিনী স্বর্ণপদকসহ অনেক পদক জিতেছে। খুনের ঘটনায় রাজশাহী জেলা প্রশাসক মহোদয় এবং পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। আশা করি ঘটনায় জড়িতের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে।

এফবি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়