বঙ্গবন্ধুকে রক্ষার ব্যর্থতাই সাম্প্রদায়িকতার উত্থান ঘটিয়েছে: মৎস্যমন্ত্রী

আগের সংবাদ

মঙ্গল শোভাযাত্রার প্রস্তুতি: ‘কাল ভয়ংকরের বেশে এবার ওই আসে সুন্দর’

পরের সংবাদ

রোনালদোকেই সেরা বেছে নিলেন উসাইন বোল্ট

প্রকাশিত: এপ্রিল ১০, ২০২১ , ৯:৫৪ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ১০, ২০২১ , ৯:৫৬ অপরাহ্ণ

লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো প্রায় দেড় যুগ ধরে ফুটবলাঙ্গন মাতাচ্ছেন। তবুও শেষ হচ্ছে না কে সেরা এই বিতর্ক। কোনো রেকর্ডে মেসি এগিয়ে গেলে রোনালদোও বসে থাকেন না। দ্বিগুণ বেগে আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে ধরার চেষ্টা করেন জুভেন্টাস ফরোয়ার্ড। মেসির ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম নয়। তিনিও যে অহরহ পর্তুগিজ ফুটবলারের করা রেকর্ডে ভাগ বসাচ্ছেন। দীর্ঘ এ সময় আসলে কে সেরা? মেসি না রোনালদো? গতি তারকা উসাইন বোল্ট দুজনার মধ্য থেকে অবশ্য রোনালদোকেই বেছে নিলেন। সেই সঙ্গে জানালেন তিনি আর্জেন্টিনারও কট্টর ভক্ত।

গ্যাজেট্টা ডেলো স্পোর্টসকে জ্যামাইকান গতি তারকা বলেন, ‘রোনালদো ও মেসির মধ্য থেকে সেরা কে সেটা বলা অনেক কঠিন। আমার জন্য তো তা মহাকঠিন। তবে আমি রোনালদোকেই বেছে নেব। আসলে আমি একজন আর্জেন্টাইন ফুটবল ভক্তও বটে। তাই বাছাই করাটা আমার জন্য কঠিনই।’ রোনালদোর উত্থানের সময়টা ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। সে সময়টায়ই তার ফ্যান হয়ে যান বোল্ট। এ সম্পর্কে বোল্ট বলেন, ‘রোনালদো যখন থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলে তখন থেকে আমি তাকে সাপোর্ট করি। আমার পছন্দের ক্লাবগুলোর মধ্য ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডই সেরা। সে কারণেই আমার পছন্দ রোনালদো।’

শক্তিপরীক্ষায় ব্যস্ত উসাইন বোল্ট ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

রোনালদো ক্যারিয়ারে চারটা লিগে খেলেছেন। নিজ দেশের ক্লাব স্পোর্টিং লিসবনের হয়ে খেলার পর মাতিয়েছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এরপর সেখান থেকে স্প্যানিশ ফুটবল রাঙিয়েছেন নিজের রঙে। তবুও থামেননি পর্তুগিজ তারকা। রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ২০১৮ সালে জুভেন্টাসে পাড়ি জমান তিনি। সেখানেও একের পর এক রেকর্ড ভেঙে চলেছেন রোনালদো। তাই তো উসাইন বোল্ট বলেন, রোনালদো অনেকগুলো লিগে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। সেটাও আমার কাছে তাকে সমর্থন করার একটা বড় কারণ বলতে পারেন’।

অলিম্পিকে ১০০ মিটার ও ২০০ স্প্রিন্টে স্বর্ণ জেতা বোল্ট স্বপ্ন দেখেছিলেন ফুটবলার হবেন। সে জন্য কম চেষ্টাও করেননি তিনি। গতির ঝড়ে যখন পৃথিবী কাঁপছিল তখনই বরুশিয়া ডর্টমুন্ডে এসে কিছুদিন পরীক্ষাও দেন তিনি। পরে একটি অস্ট্রেলিয়ান ক্লাবে খেলেছিলও বটে। এক ম্যাচে জোড়া গোল পেলেও দীর্ঘস্থায়ী করতে পারেননি তার ফুটবল ক্যারিয়ার। ফলে ২০১৯ সালেই ফুটবল জুতোজোড়া তুলে রাখেন তিনি।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়