মাদক মামলায় এক আসামির জামিন চেম্বার আদালতে স্থগিত

আগের সংবাদ

বৃষ্টি না হওয়ায় আমের ফলন নিয়ে বিপাকে ব্যবসায়ীরা

পরের সংবাদ

ফ্লোর প্রাইসের নির্দেশনায় বড় পতনে লেনদেন শেষ

প্রকাশিত: এপ্রিল ৮, ২০২১ , ২:৪৭ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ৮, ২০২১ , ২:৪৭ অপরাহ্ণ

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কর্তৃক ৬৬ কোম্পানির উপর থেকে ফ্লোর প্রাইস (সর্বনিম্ন দর সীমা) তুলে নেওয়ার নির্দেশনায় পুঁজিবাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

সপ্তাহের শেষ কর্মদিবস বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মূল্য সূচকের ব্যাপক পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। আজ ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৮২ পয়েন্ট। এদিন ডিএসইতে টাকার অংকে লেনদেনও কমেছে। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) একই চিত্রে লেনদেন শেষ হয়েছে।

বুধবার (৭ এপ্রিল) বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৬৬ কোম্পানির ওপর ফ্লোর প্রাইস (দরপতনের সর্বনিম্ন সীমা) প্রত্যাহারের নির্দশনা দেয়। ফলে আজ স্বাভাবিকভাবেই বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। কারণ বিএসইসির ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তকে বিনিয়োগকারীরা ইতিবাচকভাবে নেননি।

এদিন ডিএসইতে ৪৭৫ কোটি ৮৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আজ ডিএসইতে আগের দিন থেকে ১০৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা কম লেনদেন হয়েছে। গতকাল লেনদেন হয়েছিল ৫৮২ কোটি ৫২ লাখ টাকার।

এদিন ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৮২ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫ হাজার ২৫৪ পয়েন্টে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই৩০ সূচক ১৬ পয়েন্ট এবং ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ২০ পয়েন্ট কমেছে।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে মোট ৩৪৬টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৪৭টির, দর কমেছে ২৬৪টির এবং দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টি কোম্পানির।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই কমেছে ২০৩ পয়েন্ট। সূচকটি ১৫ হাজার ২৩১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৬০ লাখ টাকার শেয়ার।

সিএসইতে মোট ২১৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৪১টির, দর কমেছে ১৫৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টির।

দর পতনে হওয়া ২৬৪টি কোম্পানির মধ্য ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহার করা ৬৬টি কোম্পানির সবগুলোই ছিল। ৬৬ কোম্পানির দরই বেশি পড়েছে। বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাজার বিভিন্ন চাপে রয়েছে। এ সময়ে ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহার করা সমীচীন হয়নি। যে কারণে ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহারের চাপ নিতে পারেনি পুঁজিবাজার।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়