নেত্রকোনায় শিশুবক্তা রফিকুল ইসলাম আটক

আগের সংবাদ

সামনে যাকে পেয়েছে তাকেই কুপিয়েছে যুবক, নিহত ২

পরের সংবাদ

মেহেরপুরে ঢিলেঢালা লকডাউন, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

প্রকাশিত: এপ্রিল ৭, ২০২১ , ৩:২৭ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ৭, ২০২১ , ৩:২৭ অপরাহ্ণ

মেহেরপুরে ঢিলেঢালাভাবে চলছে ৩য় দিনের লকডাউন। কিছু কিছু দোকানপাট বন্ধ থাকলেও খোলা ছিল অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। জন চলাচলও ছিল স্বাভাবিক। যাত্রী কম থাকলেও রাস্তাজুড়ে দেখা গেছে ছোট খাটো পরিবহন। এছাড়াও সকাল থেকে শুরু হয়েছে গণপরিবহন চলাচল। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসন ও পুলিশের একাধিক দল মাঠে থাকলেও গায়ে মাখছে না কেউ। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় একাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হলেও প্রভাব পড়ছে না সাধারণ মানুষের মাঝে। লকডাউনের প্রথম দিনে মোটামুটি দোকনপাট বন্ধ থাকলেও ৩য় দিনে এসে গভীর রাত পর্যন্ত খোলা থাকছে।

এছাড়াও সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় মেহেরপুরের অধিকাংশ ব্যাংকেই নেই স্বাস্থ্যবিধির বালাই। ব্যাংকের আঞ্চলিক কার্যালয় গুলো ঘুরে দেখা যায় গ্রাহক সমাগম। বিশেষ করে সোনালী ব্যাংক, অগ্রনী ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংকে যেন তিলধারণের জায়গা নেই। ব্যাংকের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের কোনো নিরাপত্তা সরঞ্জাম নেই। ব্যাংকের বাইরেও প্রতিরোধমূলক কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। কয়েক শ গ্রাহক ব্যাংকের ভিতর থেকে মেইন গেট পর্যন্ত সামাজিক দূরত্ব না মেনে গায়ের সঙ্গে গা লাগিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন। এদের কেউ কেউ মাস্ক ব্যবহার করলেও অধিকাংশ গ্রাহককে মাস্ক পরতে দেখা যায়নি। তবে ব্যাংক কর্মকর্তাদের দাবি, লেনদেনের সময় কমিয়ে দেওয়া এ ভিড়ের কারণ।

মেহেরপুর সোনালী ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার নাজমুল হক বলেন, আমরা সরকার থেকে নির্দেশনা পেয়েছি সাড়ে বারোটা পর্যন্ত ব্যাংক খোলা থাকবে। খোলা থাকার সময় কমিয়ে দিলে যে জনসমাগম কম হবে এমন তো না। তারপরও আমরা চেষ্টা করছি। কিন্তু আমরা সবদিক থেকে চেষ্টা করেও পারছি না।

এদিকে স্বস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে গাংনী র‌্যাব-৬ এর একটি দল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর সহযোগী হিসেবে মেহেরপুর শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়েছে। সহকারী কমিশনার সুজন দাস গুপ্ত, মাহামুদুল হাসান, কাজী মোহম্মদ অনিক ইসলাম, সবিতা সরকার আলাদা আলাদা ভাবে দিনভর সচেতনতা মূলক প্রচার অভিযান পরিচালনা করেন।

সহকারী কমিশনার কাজী অনিক ইসলাম জানান, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত ও লকডাউন কার্যকর করতে আমরা শুরু থেকেই মাঠে আছি। জনসচেতনতা মূলক প্রচার অভিযান সহ স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বেশ কয়েকজনকে জরিমানাও করা হয়েছে।

ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়