আবারও ‘লকডাউনে’ বাংলাদেশ

আগের সংবাদ

হেফাজত নেতা মামুনুলের স্ত্রী পরিচয়ে কে এই নারী

পরের সংবাদ

মমতার কারচুপির অভিযোগ খারিজ

প্রকাশিত: এপ্রিল ৫, ২০২১ , ৮:৫২ পূর্বাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ৫, ২০২১ , ৮:৫২ পূর্বাহ্ণ

নন্দীগ্রামে বয়ালের ভোটবুথে বিজেপির নেতৃত্বে ‘অনিয়ম ঘটেছে’ বলে তৃণমূল প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আনা অভিযোগ খারিজ করে দিয়ে নির্বাচন কমিশন বলেছে, ‘তথ্যগত ভুল’ রয়েছে তার অভিযোগে। মমতার আনা অভিযোগকে ‘ভিত্তিহীন’ বলেও এ বিষয়ক এক চিঠিতে জানিয়ে দেন তারা। গত বৃহস্পতিবার ভোট ছিল নন্দীগ্রামে। ভোটে ‘কারচুপি’ ঘটার অভিযোগ এনে মমতা নিজে হাতে চিঠি লিখে কমিশনকে পাঠান। কিন্তু মমতার আনা অভিযোগের সত্যতা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে কমিশন। সে সঙ্গে বয়ালের বুথে তৃণমূল নেত্রীর কর্মকাণ্ড নির্বাচনী আদর্শ বিধি ভেঙেছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানায় কমিশন। খবর আনন্দবাজার।

কমিশনের ভাষায়, একজন প্রার্থী, যিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীও, তিনি ভোটারদের এভাবে ভুল পথে চালিত করেছেন। এ থেকে বড় বিধিবহিভর্‚ত কাজ আর কী হতে পারে। নন্দীগ্রামে ভোট চলাকালে বয়ালের বুথে মমতার আচরণ প্রসঙ্গে কমিশন বলে, এতে শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়, অন্য রাজ্যের শান্তিশৃঙ্খলাও বিঘিœত হতে পারত। গতকাল রবিবার এ বিষয়ে একটি সংবাদ সম্মেলন করে কমিশন। সেখানে তারা জানায়, আদর্শ আচরণবিধি এবং জনপ্রতিনিধি আইনে এ ব্যাপারে দ্রুত ও যথাযথ ব্যবস্থা নেবে তারা।

তবে কমিশনের বক্তব্য উড়িয়ে দিয়ে তৃণমূল দাবি করে, কমিশন ‘পক্ষপাতিত্ব’ করছে। দলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, নির্বাচন কমিশনের অভিযোগ দলের শীর্ষনেতৃত্ব খতিয়ে দেখছে। তবে বয়ালে যা ঘটেছে তা সবাই দেখেছে। ১৪৪ ধারা জারি হওয়া সত্তে¡ও মেলার মাঠের মতো ভিড় করে দাঁড়িয়ে সেখানে বিজেপির হয়ে স্লোগান দেয়া হচ্ছিল। কমিশন সেটা কীভাবে অস্বীকার করতে পারে। কমিশনের পক্ষপাতিত্বের কথা তুলেই কুণাল বলেন, আমরা এর আগেও বলেছি, কমিশন পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করছে। এখানেও সেটাই করা হচ্ছে।

নন্দীগ্রামে ভোট প্রসঙ্গে তৃণমূল নেত্রী তার অভিযোগে জানান, চ‚ড়ান্ত অসভ্যতা হয়েছে নন্দীগ্রামে। যিনি এখানে বিজেপির প্রার্থী, তার নেতৃত্বে রাতে দাপিয়ে বেড়িয়েছে দুষ্কৃতকারীরা। ভোটে ‘চিটিংবাজি’ হয়েছে। আমরা ৬৩টা অভিযোগ করেছি। মমতার এসব অভিযোগ প্রসঙ্গেই কমিশনের দাবি, অভিযোগগুলো তথ্যগতভাবে ভুল এবং ভিত্তিহীন। পক্ষান্তরে বিজেপির কথায়, পশ্চিমবঙ্গে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোট হচ্ছে। নন্দীগ্রামেও ভালো ভোট হয়েছে।

বিজেপির রাজ্য মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, তৃণমূল যদি কমিশনকে পক্ষপাতদুষ্ট বলে থাকে, তবে বুঝতে হবে কমিশনের ওপর তাদের ভরসা নেই। তার মানে সংবিধানের ওপরও ভরসা নেই। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোতেও ভরসা নেই। আমরা নির্বাচন কমিশন কী বলেছে, তা নিয়ে কোনো কথা বলব না। তবে মানুষ কী বলে সেটাই দেখার বিষয়। আমার মনে হয় মানুষ যা বলার তা নন্দীগ্রামে তারা বলে দিয়েছে। পরে তৃণমূলের পক্ষে রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় কমিশনের চিঠি প্রসঙ্গে বলেন, যখন মমতা বুথে বসেছিলেন, তখন তো সেখানে কমিশনের প্রতিনিধিরাও ছিলেন। তারা কী তখন বলেছিলেন যে, এতে শৃঙ্খলা ভাঙতে পারে। যদি তখন তারা সেটি না বলে থাকেন, তবে এখন বলতে আসছেন কেন?

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়