প্রধানমন্ত্রী অনুমতি দিলেই লকডাউন কার্যকর

আগের সংবাদ

করোনা এবং আমরা

পরের সংবাদ

মামুনুলের ফোনালাপ ফাঁস: ‘ওই মহিলা শহীদুল ভাইয়ের স্ত্রী’

প্রকাশিত: এপ্রিল ৩, ২০২১ , ১১:৩৪ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ৪, ২০২১ , ৪:০০ পূর্বাহ্ণ

‘বাসায় আসলে সব বলবো। যে সাথে ছিলো সে হইলো আমগো শহীদুল ইসলাম ভাইয়ের ওয়াইফ। বুঝছো।’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হওয়া একটি ফোনালাপের অডিও রেকর্ডে শোনা যায়, এক নারীকে এ কথা বলছে একটি পুরুষ কণ্ঠ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দাবি করা হচ্ছে, এটি হেফাজত ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক ও তার প্রথম স্ত্রীর মধ্যে কথোপকথন। ফোনে স্ত্রীর কাছে ঘটনার ব্যাখ্যা দেন তিনি।

তবে অডিওটির সত্যমিথ্যা ভোরের কাগজের পক্ষে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

এর আগে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রয়েল রিসোর্টে এক নারী নিয়ে অবস্থানের সময় অবরুদ্ধ হন স্থানীয়দের হাতে। সামাজিক মাধ্যমে আসা সেসময়ের একটি ভিডিও প্রকাশ হয়। তাতে স্থানীয়দের প্রশ্নের মুখে মামুনুল দাবি করেন, তার সঙ্গে থাকা ওই নারীর নাম আমিনা তাইয়েব্যা। সে তার দ্বিতীয় স্ত্রী। বিয়ে করেছেন দুই বছর আগে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলা হচ্ছে, এই আমিনা তাইয়েব্যা সম্পর্কেই পরে ফোনালাপে স্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা দেন শহীদুল নামে এক ব্যক্তির স্ত্রী বলে।

রয়েল রিসোর্টের ঘটনায় ছাড়া পাওয়ার পর ওই ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হয়। এর পরপরই তা ভাইরাল হয়ে যায়।

এর আগে শনিবার (৩ মার্চ) সকালে মামুনুল হক এক নারীকে নিয়ে সোনারগাঁওয়ের রয়েল রিসোর্টের ৫০১ নম্বর কক্ষে ওঠেন। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হওয়ার পর উত্তেজিত জনতা রিসোর্টে ঢুকে ওই নারী সঙ্গীসহ তাকে আটক করে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে মামুনুল হককে উদ্ধার করে।

রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হওয়া ফোনালাপ:

নারী কণ্ঠ: আসসালামু আলাইকুম

পুরুষ কণ্ঠ: ওলাইকুম সালাম ওয়া রহমতুল্লাহ। পুরা বিষয়টা আমি তোমাকে সামনে আইসা বলবো। ওই মহিলা যে ছিল সাথে সে হইলো আমগো শহীদুল ইসলাম ভাইয়ের ওয়াইফ। বুঝছো? ওইটা নিয়া এমন একটা মানে অবস্থা এরকম তৈরি হইয়া গেছে যে এই কথা বললে তারা ওখানে মানে ই কইরা ফেলছিল আমাকে।

নারী কণ্ঠ: আচ্ছা, বাসায় আসেন, তারপর যা বলার তারপর বইলেন।

পুরুষ কণ্ঠ: বলুম তো। তুমি বিষয়টা মানে অন্যান্য কথা বলতে হইবো, পরিস্থিতিটা এমন হইয়া গেছে। এখন এই জন্য তুমি আবার মাঝখান দিয়া অন্য কিছু মনে কইরো না। তোমাকে কেউ জিজ্ঞেস করলে তুমি বইলো হ্যাঁ আমি সব জানি। এইরকম কিছু একটা বইলো।

নারী কণ্ঠ: ঠিক আছে।

পুরুষ কণ্ঠ: আচ্ছা। আসসালামু আলাইকুম।

এদিকে নারায়ণগঞ্জের ঘটনার পর রাত আটটার কিছুক্ষণ আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন হেফাজত নেতা মামুনুল হক। তিনি হেফাজত নেতাকর্মীদের ধৈর্য ধরার আহ্বান জানান ও পুলিশকে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান। স্ট্যাটাসে মামুনুল লেখেন: ‘আমি নিরাপদে আছি, পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক! কেউ কোনো গুজবে বিভ্রান্ত হবেন না!!’

পরে ৯টা ৪৩ মিনিটে আরেকটি স্ট্যাটাস দেন তিনি। এখানে বলেন, ‘সোনারগাঁওয়ের তৌহিদী জনতার প্রতি শুকরিয়া! তবে কোনো ধরনের উত্তেজনাপূর্ণ আচরণ করা যাবে না!! ধৈর্য ও সহনশীলতার সাথে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে।’

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়