হেফাজতের ছদ্মাবরণে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি

আগের সংবাদ

বিএনপি-জামায়াতের ইন্ধনে তাণ্ডব!

পরের সংবাদ

সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে আর ছাড় দেবে না আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত: মার্চ ২৮, ২০২১ , ১০:১২ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মার্চ ২৮, ২০২১ , ১০:১২ পূর্বাহ্ণ

হেফাজতসহ স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে আর কোনো ছাড় দেবে না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। তাদের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নেবে দল ও সরকার। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি ওই অপশক্তিকে রাজনৈতিকভাবেও মোকাবিলার কথা বলেছেন দলটির নেতারা। এমনকি আজ রবিবার আহূত হরতাল প্রতিহতের কথাও বলেছেন তারা। পুলিশের পাশাপাশি মাঠে থাকবে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল হেফাজতকে হরতাল করতে না দেয়ার কথা জানিয়ে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডবলীলা খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা বলেছেন। আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, হেফাজতসহ সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ও স্বাধীনতাবিরোধীদের আর মাঠে নামতে দেয়া হবে না। এদের শেষ চিহ্ন বাংলার মাটি থেকে উপড়ে ফেলা হবে।

জানা গেছে, নরেন্দ্র মোদির সফরকে কেন্দ্র করে হেফাজতসহ কয়েকটি ধর্মীয় ও বামপন্থি সংগঠন শুক্রবার ঢাকা, চট্টগ্রাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যে তাণ্ডব ও ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড চালিয়েছে তাতে চরম ক্ষুব্ধ ক্ষমতাসীনরা। তারা মনে করছেন, এই ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত। বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে হেয় করার অপচেষ্টা। এই অপশক্তিকে আর বাড়তে দেয়া যাবে না। আজকের হরতালকে কেন্দ্র করে কোনো নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা হলে, তা শক্তভাবে মোকাবিলার প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি। এজন্য সারাদেশে দলের নেতাকর্র্মীদের মাঠে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর একজন সদস্য ভোরের কাগজকে জানান, হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছিল, তারা মোদির আগমনের বিরোধিতা করলেও, কোনো নৈরাজ্যকর পরিবেশ সৃষ্টি করবে না। কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল উল্টো চিত্র। তারা তাদের দেয়া প্রতিশ্রুতি রাখেনি। তাই এখন এই ধর্মান্ধ গোষ্ঠীকে আর কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

এই অপশক্তির পৃষ্ঠপোষক বিএনপি এমন অভিযোগ করে গতকাল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে জানান, সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানমালা পণ্ড করতে সাম্প্রদায়িক

গোষ্ঠী যে তাণ্ডবলীলা চালিয়েছে, বিএনপি তার পৃষ্ঠপোষক। কারণ সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠান সফলভাব সম্পন্ন হওয়ায় বিএনপির গাত্রদাহ হচ্ছে। সাম্প্রদায়িক অপশক্তির ধৃষ্টতার জবাব দেয়া হবে।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর দিনেই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর তাণ্ডবলীলাকে কীভাবে দেখছে আওয়ামী লীগ। জানতে চাইলে দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক ভোরের কাগজকে বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন অনুষ্ঠানে বিশ্বের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানদের বার্তা বাংলাদেশকে অনেক উচ্চতায় নিয়ে গেছে। সেই বাংলাদেশকে হেয় করতে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আসার বিরুদ্ধে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি যে তাণ্ডব চালিয়েছে, তা অমার্জনীয়। তারা থানা লুট ও ভ‚মি অফিস ভাঙচুর করেছে। রেললাইন উপড়ে ফেলেছে। বায়তুল মোকাররম মসজিদকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়েছে। মসজিদের টাইলস ভেঙে পুলিশের ওপর ছুড়ে মেরেছে। এদের আর এক চুল পরিমাণ ছাড় দেয়া হবে না।
সরকারের নমনীয়তাকে দুর্বলতা না ভাবার কথা বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

গতকাল একটি অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, গরম গরম বক্তব্য দিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা আর বরদাশত করা হবে না। আমরা জানি আপনারা কারা। বিএনপিসহ ধর্মীয় উগ্রবাদী গোষ্ঠী ২০১৩-১৪-১৫ সালে যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছিল সেই বিশৃঙ্খলা আমরা মোকাবিলা করেছি, আমাদের অভিজ্ঞতা আছে।

দলটির আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, হেফাজত, জামায়াত-বিএনপি ও কিছু বাম সংগঠন নীতিহীন রাজনীতি করে। এরা সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী। এরা আবারো প্রমাণ করেছে তারা এদেশের স্বাধীনতা মেনে নিতে পারেনি। এরা যুদ্ধাপরাধীদেরই উত্তরাধিকার। এরাই দেশবিরোধী অপশক্তি। সুযোগ পেলেই এরা দেশবিরোধী অপকর্মে লিপ্ত হবে। এই অপশক্তিকে বিশ্বাস করার কোনো সুযোগ নেই। এদের শেষ চিহ্নটুকু বাংলার মাটি থেকে উপড়ে ফেলে দেয়া হবে।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়