স্মৃতিসৌধে ও বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা ভারতের প্রধানমন্ত্রীর

আগের সংবাদ

মুজিববর্ষে সুদানের সেনাবাহিনীকে জাতির পিতার জীবনী প্রদান

পরের সংবাদ

ফেসবুকে পুলিশকে অভিযোগ, শিশু নির্যাতনকারী গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: মার্চ ২৬, ২০২১ , ১২:৫৫ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ২৬, ২০২১ , ১২:৫৯ অপরাহ্ণ

এক শিশুকে মারধরের অভিযোগে জাহাঙ্গীর হোসেন নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শিশুটির বুকে লাথি মারার বেদম প্রহার করার বিষয়টি বাংলাদেশ পুলিশের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে ইনবক্সে এক ব্যক্তি জানালে দ্রুত ব্যবস্থা নেয় পুলিশ।

শুক্রবার (২৬ মার্চ) পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি মিডিয়া বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গত ২৫ মার্চ রাত সাড়ে ১১টায় সচেতন এক নাগরিক বাংলাদেশ পুলিশের মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং পরিচালিত অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজের ইনবক্সে জানান, মিনিট কয়েক পূর্বে তিনি টঙ্গী শফিউদ্দিন রোড দিয়ে যাচ্ছিলেন। সেসময় পথের পাশে একটি চা দোকানের সামনে ৯-১০ বৎসর বয়সের একটি শিশুর বুকে ৩৫-৪০ বৎসর বয়সের এক লোক লাথি মেরেছে। শিশুটি ছিটকে গিয়ে দূরে পড়েছে। লোকটিকে স্থানীয় ও প্রভাবশালী মনে হয়েছে। আশেপাশে থাকা লোকজন কেউ কিছু বলেনি। রাত অনেক হয়েছে। ভদ্রলোক‌টির একটু তাড়া ছিল। তাই তি‌নি চলে এসেছেন। আসার পথে তি‌নি তার মোবাইল থেকে বাংলাদেশ পুলিশের ফেসবুক পেইজের ইনবক্সে একটি মেসেজ পাঠান।

তিনি আরো বলেন, নিয়মিত মনিটরিংয়ের অংশ হিসেবে এই ম্যাসেজ মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইংয়ের দৃষ্টিতে আসে। তারা পুলিশ কন্ট্রোলরুমের সাহায্য নিয়ে জেনে নেয় ঘটনাস্থলটি গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অধীন টঙ্গী পশ্চিম থানা এলাকায় অবস্থিত। টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসিকে ফোনে এ বিষয়টি জানিয়ে তড়িৎ ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেয়া হয়।

ওসি মো. শাহ আলম তাৎক্ষনিকভাবে এসআই মো. নজমুল হুদা ও এসআই মো. আবুল কাশেমের নেতৃত্বে একটি টিমকে ঘটনাস্থলে পাঠান। ততক্ষণে দোকানপাট বন্ধ হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে, মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং তথ্যদাতা ব্যক্তির সংগে যোগাযোগ করে তার মোবাইলে একাধিক বার কথা বলে সম্ভাব্য সকল প্রকার তথ্য সংগ্রহ করে রাখছিল। রাত অনেক হয়েছে। কিছুক্ষণ পর তাকে নাও পাওয়া যেতে পারে।

থানার টিম ঘটনাস্থলে যখন পৌঁছায় তখন রাত ১২টা পেরিয়েছে। শফিউদ্দিন রোডে দোকানপাট বন্ধ হয়ে গেছে। তখন তথ্যদাতা ব্যক্তির কাছ থেকে মিডিয়া এন্ড পিআর উইংয়ের নেয়া কিছু তথ্য উপাত্ত ও বিবরণের সূত্র ধরে সম্ভাব্য কয়েকটি স্থানে অভিযান পরিচালনা করে থানার বিশেষ দলটি। ইতোমধ্যে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতার বিষয়ে নিশ্চিত হয় তারা। অবশেষে অভিযুক্তকে নিকটবর্তী একটি এলাকা থেকে পুলিশি অভিযানের মাধ্যমে আটক করা হয়। এই বিষয়ে যথাযথ আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়