জাতীয় স্মৃতিসৌধে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টের শ্রদ্ধা

আগের সংবাদ

সংবাদপত্র পর্যালোচনা

পরের সংবাদ

করোনায় মা-শিশুর স্বাস্থ্যসেবায় অবহেলা, ব্যাপক মৃত্যুর শঙ্কা

প্রকাশিত: মার্চ ১৭, ২০২১ , ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মার্চ ১৭, ২০২১ , ১১:০৪ পূর্বাহ্ণ

করোনা মহামারিতে দক্ষিণ এশিয়ায় স্বাস্থ্যসেবা ব্যপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে। এতে ২ লাখ ২৮ হাজার শিশুর মৃত্যু হতে পারে। এছাড়াও ১১ হাজার মায়ের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। ইউনিসেফের উদ্যোগে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডাব্লিউএইচও) এবং ইউনাইটেড নেশনস পপুলেশন ফান্ড (ইউএনএফপিএ)-এর সহযোগিতায় প্রতিবেদনটি করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মহামারির প্রভাবে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পরিবারগুলোকে যত দ্রুত সম্ভব সবাস্থ্যসেবার আওতায় নিয়ে আসতে হবে। করোনা মহামারি রুখতে ক্লিনিকগুলো ও অন্যান্য স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে। যার আওতায় মা ও শিশুর জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্বাস্থ্য ও পুষ্টি কার্যক্রম ছিল। এই সময় করোনা রোগীর চিকিৎসায় ক্লিনিকগুলো ব্যবহার করা হয়েছে। নেপাল ও বাংলাদেশে মারাত্মক অপুষ্টিতে ভোগা ৮০ শতাংশ শিশু শৈশবকালীন টিকাদান থেকে বঞ্চিত হয়েছে। একই ঘটনা ভারত-পাকিস্তানেও দেখা যায়। গর্ভবতী নারী, কিশোর-কিশোরী এবং শিশুদের প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা দেয়া হচ্ছে না। ভ্যাকসিন সরবরাহ ও ব্যবস্থাপনা জোরদার এবং শিশুদের প্রয়োজনীয় ওষুধের যোগান দেওয়া হচ্ছে না। যত দ্রুত সম্ভব এদিকে নজর দিতে হবে।

ডাব্লিউএইচও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক ড. পুনম ক্ষেত্রপাল সিং বলেন, এই অঞ্চলের দেশগুলো প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলোর ধারাবাহিকতা এবং পুনরায় শুরু করার কার্যক্রম শুরু করেছ।

দক্ষিণ এশিয়ার ছয়টি জনবহুল দেশেক আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, নেপাল, ভারত, পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কা। এই দেশগুলোকে সতর্ক করেছে জাতিসংঘের প্রতিবেদনে।

এফবি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়