টিকা নেওয়ার ৩৪ দিন পর করোনায় আক্রান্ত নোবিপ্রবি ভিসি

আগের সংবাদ

কাদের মির্জার সব কর্মসূচিতে নিষেধাজ্ঞা

পরের সংবাদ

হার না মানা মমতা, হুইল চেয়ারে ছুটছেন ভোটের মাঠে

প্রকাশিত: মার্চ ১৬, ২০২১ , ১২:১৪ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ১৬, ২০২১ , ৪:০২ অপরাহ্ণ

হুইল চেয়ারকে সঙ্গী করে পুরুলিয়ার ঝালদায় প্রথম সভা করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপধ্যায়। পায়ে ব্যথা যন্ত্রণাকে উপেক্ষা করে ভোটের মাঠে ছুটছেন তিনি। এসময় তিনি সবাইকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‌আমি ভাঙা পা নিয়ে লড়তে পারলে আপানারা পারবেন না?

প্রথম সভায় মমতা বিজেপিকে উদ্দেশ্য করে আরও বলেন, তোমরা যতই চেষ্টা করো, যতদিন আমার শ্বাস আছে, হৃদয় চলছে, কিছুতেই আমার কণ্ঠরোধ করতে পারবে না। তোমাদের বিরুদ্ধে আমার লড়াই চলবে।

তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে খবর, আগামী ১৯ এবং ২০ মার্চ নির্বাচনী প্রচারে তৃণমূল সুপ্রিমো যাবেন নন্দীগ্রামেও। সেখানে পথসভা থেকে কর্মীসভায় কথা বলবেন তিনি। পরে মন্দিরেও যাবেন। দু‌দিন পূর্ব মেদিনীপুরে জনসভা পথসভা মিলিয়ে মোট ৮টি সভা করবেন। এই দু‌দিনের নন্দীগ্রাম সফরে কর্মী সমর্থকদের সঙ্গেও একান্তে সাক্ষাৎ করবেন তিনি।

এসময় ঝালদায় মমতার সভাস্থলে মহিলা, পুরুষ, যুব সবার স্লোগান ছিল, খেলা হবে। জনতার সুরে সুর মিলিয়ে তাঁর ঘোষণা, এক পায়েই খেলা হবে। আপনারা শুধু পাশে থাকবেন।

নন্দীগ্রামের বিরুলিয়ার দুর্ঘটনার পর প্রথম সভা পুরুলিয়ার ঝালদায় প্রথম সভা করেন তিনি। তার দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ফের নন্দীগ্রামে যাবেন তিনি। হার না মানা মানসিকতা নিয়ে এখান থেকেই চড়বে পারদ। সঙ্গী হুইল চেয়ার।

নন্দীগ্রাম এখন নজরকাড়া কেন্দ্র। এখান থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন স্বয়ং তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর দলবদলু বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। এই পরিস্থিতিতে নন্দীগ্রামে তাঁকে বারবার আসতেই হবে। তারপরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পূর্ব মেদিনীপুরে সভা করার কথা। এই পরিস্থিতি যখন তৈরি হয়েছে তখন তো তাঁকে আসতেই হবে। পায়ে ব্যথা–যন্ত্রণা উপেক্ষা করেই আসতে হবে।

এফবি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়