স্পিকারের সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

আগের সংবাদ

রূপপুরে প্রেসার ভালভ পাঠিয়েছে রাশিয়ান প্রতিষ্ঠান

পরের সংবাদ

উপাচার্য কলিমউল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে ইউজিসি

প্রকাশিত: মার্চ ১৪, ২০২১ , ২:৫৭ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ১৪, ২০২১ , ২:৫৭ অপরাহ্ণ

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির ৪৫টি অভিযোগ তদন্তে ক্যাম্পাসে পৌঁছেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) তদন্ত কমিটি। রবিবার (১৪ মার্চ) দুপুর পৌনে ১২টায় ইউজিসির তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি ক্যাম্পাসে পৌঁছায়। এই কমিটির প্রধান অধ্যাপক বিশ্বজিৎ চন্দ। কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন ইউজিসির জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব জমাল উদ্দিন এবং ইউজিসির সদস্য আবু তাহের।

এর আগে ইউজিসির সিনিয়র সহকারী সচিব ও সংশ্লিষ্ট তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব জামাল উদ্দিন স্বাক্ষরিত এক পত্র গত ২ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাত শিক্ষক বরাবর পাঠানো হয়। সেই সঙ্গে এই পত্রের অনুলিপি দেয়া হয় উপাচার্যের একান্ত সচিবকেও। এতে ১৪ মার্চ তদন্তকাজ অনুষ্ঠিত হবে বলে উল্লেখ করা হয়। ওই পত্রে উপাচার্যের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের দালিলিক প্রমাণাদিসহ সাক্ষীদের উপস্থিত থাকার জন্য তদন্ত কমিটির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়।

সম্প্রতি ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইটি ১০ তলা ভবন ও একটি স্মৃতিস্তম্ভের নির্মাণকাজেও উপাচার্যের অনিয়মের সত্যতা পেয়েছে ইউজিসির আরেকটি তদন্ত কমিটি। এজন্য উপাচার্যসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ওই কমিটির প্রতিবেদনে সুপারিশ করা হয়েছে।

শিক্ষকদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি কমলেশ চন্দ্র রায় ও সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান স্বাক্ষরিত ২০১৯ সালে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে পাঠানো উপাচার্যের বিরুদ্ধে আনা উল্লেখযোগ্য অভিযোগগুলো হচ্ছে রাষ্ট্রপতির নির্দেশনা অমান্য করে ক্যাম্পাসে ধারাবাহিক অনুপস্থিতি, ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া, ইউজিসির নির্দেশনা অমান্য করে জনবল নিয়োগ, শিক্ষক ও জনবল নিয়োগে দুর্নীতি ও অনিয়ম, নিয়োগ বোর্ডের সভাপতি ভিসি হয়েও অনুপস্থিতি থাকা, নিরাপত্তাহীন ক্যাম্পাস, ইচ্ছেমতো পদোন্নতি, আইন লঙ্ঘন করে একাডেমিক ও প্রশাসনিক পদ দখল এবং ক্রয়প্রক্রিয়ায় নীতিমালা লঙ্ঘন।

উপাচার্যের বিরুদ্ধে সাত শিক্ষক অভিযোগ করেন তাঁরা হলেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক গাজী মাজহারুল আনোয়ার, রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এইচ এম তারিকুল ইসলাম, ফাইনান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক খায়রুল কবির, গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মশিউর রহমান, গণিত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কমলেশ চন্দ্র রায়, লোকপ্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বীর আহমেদ এবং অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বেলাল উদ্দিন।

এ ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক মশিউর রহমান বলেন, অনিয়ম-দুর্নীতির ৪৫টি অভিযোগ শিক্ষামন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী বরাবর পেশ করেছি। সেই প্রেক্ষিতে এতদিন পর তদন্ত করতে ইউজিসির একটি দল ক্যাম্পাসে এসে পৌঁছেছেন। আমরা তদন্ত কমিটির কাছে অভিযোগ প্রমাণর কাগজপত্র প্রদান করবো।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়