ট্রান্স ফ্যাট নিয়ন্ত্রণে স্মারকলিপি প্রদান

আগের সংবাদ

নারী দিবসে ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই নেবেন শিশির ও মৌ

পরের সংবাদ

ওয়েবিনারে বক্তারা

করোনাকালে বেড়েছে নারীর প্রতি সহিংসতা

প্রকাশিত: মার্চ ৭, ২০২১ , ৮:৩৭ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ৮, ২০২১ , ১:২৭ পূর্বাহ্ণ

করোনাকালে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৈষম্যমূলক সিদ্ধান্তে নারীর প্রতি সহিংসতা বেড়েছে। গবেষণা তথ্য বলছে, এর পাশপাশি বেড়েছে প্রতারণাসহ নানা ধরনের অপরাধ ও বাল্যবিবাহ। তবে সরকারের স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার নানা পদক্ষেপের কারণে সম্প্রতি সময়ে এর মাত্রা অনেকাংশেই কমে এসেছে।

রবিবার ( ৭মার্চ) কোভিড-১৯ এর আক্রমণ মোকাবিলা, চ্যালেঞ্জসমূহ এবং অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে করণীয় বিষয়ক এক ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে বক্তারা এসব কথা বলেন। দুপুরে অনলাইনে মিউনিসিপাল এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ম্যাব), ইউএনডিপি’র এলআইইউপিসি প্রকল্প ও এফসিডিও যৌথভাবে এই ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানটির কারিগরি সহায়তা দেয় নগর উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরাম বাংলাদেশ (ইউডিজেএফবি)।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা। ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্তের সঞ্চালনায় এবং ম্যাবের সভাপতি ও নীলফামারী পৌরসভার মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ম্যাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খালেদ হোসেন। বক্তব্য রাখেন, ইউএনডিপি’র এলআইইউপিসি প্রকল্প পরিচালক আব্দুল মান্নান, ম্যাবের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম কতোয়াল, মহিলা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রাম চন্দ্র দাস প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন ইউডিজেএফবি’র সহ-সভাপতি কামরুন্নাহার শোভা, সাধারণ সম্পাদক সোহেল মামুন প্রমুখ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারির শুরুতে দেশে নতুন সংকট দেখা দিয়েছিল। এ ভাইরাসটি নতুন থাকায় সব ক্ষেত্রেই স্থবিরতা নেমে আসে। এতে কর্মক্ষেত্রে অনেকেই ক্ষতিগ্রস্থ হন। পরিবারেও নারী নির্যাতনের ঘটনা কিছুটা বেড়ে যায়। আর্থিক সংকটে পড়া নারীদের সরকারের পক্ষ থেকে নানা ধরনের সহায়তা দেয়া হয়েছে। কাজ হারানো নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। তাছাড়া স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকারের উপযুক্ত পদক্ষেপের কারণে তা অনেকাংশেই কমে এসেছে।

বক্তারা বলেন, করোনার কারণে সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, শিক্ষা ও জীবিকা অর্জনের ক্ষেত্রসমূহসহ সকল কিছুর ওপর প্রভাব পড়েছে। এ ভাইরাসের কারণে শহুরে দরিদ্রদের জীবন ও জীবিকা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এবং নগর অর্থনীতি যথেষ্ট কমে গেছে।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়