বসন্ত বিলাপ

আগের সংবাদ

ফাগুন প্রেম

পরের সংবাদ

বুবলীকে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ , ৬:১৫ অপরাহ্ণ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ , ৬:১৭ অপরাহ্ণ

সড়ক দুর্ঘটনার নামে গাড়ি চাপা দিয়ে পরপর দুইবার চিত্রনায়িকা শবনম বুবলীকে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। তবে কে বা কারা এ ঘটনায় জড়িত থাকতে পারে, সে বিষয়ে এখনো স্পষ্ট কিছু বলেননি এ চিত্রনায়িকা।

শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ফেসবুকে এক পোস্টে বুবলী লিখেছেন, ‘সব সড়ক দুর্ঘটনাই দুর্ঘটনা নয়, অনেক সময় পরিকল্পিতও হয়, তা গত দুই দিন টের পেয়েছি। উপলব্ধি করেছি আমরা যা দেখি বা শুনি তার পেছনেও অন্য এক অজানা সত্য থাকে। মৃত্যুকে খুব কাছ থেকে দেখলাম আর ভাবছিলাম আজকের দিনটি তো আমাকে নিয়ে অন্যরকম সংবাদও হতে পারতো। হয়তো আল্লাহর রহমত, মা-বাবা ভাইবোনদের দোয়া আর আপনাদের ভালোবাসায় এ যাত্রায় ভালো আছি।’

বর্তমানে বুবলী আসিফ ইকবালের ‘চোখ’ সিনেমায় কাজ করছেন। সেই পোস্টে বুবলী আরো লিখেছেন, ‘গত ৪-৫ দিন ধরে আমি ‘চোখ’ নামে একটি সিনেমার শুটিং করছিলাম। যথারীতি শুটিং শেষে রাতে বাসায় ফেরার পথে বিপরীত রাস্তা থেকে কোনো হর্ন না বাজিয়ে, কোনো সিগন্যাল না দিয়ে আমার গাড়ির সামনে প্রচণ্ড বেগে তেড়ে এসেছে একটি প্রাইভেটকার। যার গ্লাস ছিল ব্ল্যাক পেপার দিয়ে মোড়ানো এবং কোনো নাম্বার প্লেট ছিল না। আমার ড্রাইভার হার্ড ব্রেক না করলে হয়তো অন্য কিছু হতে পারতো। আর আমি নিজেও ড্রাইভিং জানি, তাই কোনটি দুর্ঘটনা আর কোনটি ইচ্ছাকৃত তা বোঝার ক্ষমতা নিশ্চয়ই একজন সুস্থ স্বাভাবিক মানুষের মতো আমারও আছে। প্রথম দিন সব বুঝতে পেরেও মনকে সান্ত্বনা দিয়েছিলাম। হয়তো বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ি এত জোরে আসার কারণে কন্ট্রোল রাখতে পারেনি। কিন্তু একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে সেটি তো আর বুঝতে বাকি থাকে না যে, এটি উদ্দেশ্যমূলক করা হচ্ছে।’

এই পোস্টের সূত্র ধরে বুবলীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়া কোনো স্বাভাবিক বিষয় নয়। গত বুধবার রাতে যখন প্রথমবার সেই গাড়িটি আমাকে ফলো করে বা এ ঘটনার শিকার হই তখন মনকে সান্ত্বনা দিয়েছিলাম, এটা বোধহয় কোনো দিকভ্রান্ত ড্রাইভারের কাজ। কিন্তু একই ঘটনা যখন বৃহস্পতিবার রাতেও ঘটল তখন আর কাকতালীয় মনে হয়নি। বুঝতে পেরেছি আমাকে হত্যা করার জন্যই কেউ এ ধরনের মিশনে নেমেছে।’

আপনি কি কাউকে সন্দেহ করেন, জানতে চাইলে বুবলী বলেন, ‘অনেক দিন ধরেই আমি নানাভাবে নানাকিছু বুঝতে পারছি, কিন্তু স্পেসিফিক কারও নাম বলতে চাই না। যেহেতু আমার কাছে কোনো প্রমাণ নেই। দুই দিনই ঘটনাটি উত্তরা থেকে এয়ারপোর্টের পরে একই জায়গায় ঘটেছে। এজন্য আর কাকতালীয় মনে হয়নি। তবে শিগগিরই আমি এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেব। কারণ যারাই এসব ন্যক্কারজনক অপরাধের সঙ্গে জড়িত থাকবেন, তারা নিশ্চয়ই বারবার সুযোগের অপেক্ষায় থাকবেন। তাই আইনি ব্যবস্থা নেয়াটা আমার জন্য জরুরি হয়ে পড়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমি পরিবারের সঙ্গেও কথা বলেছি।’

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়