প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন শনিবার

আগের সংবাদ

কারাগারে মুশতাকের মৃত্যুতে শাহবাগে অবরোধ, বিক্ষোভ

পরের সংবাদ

অবশেষে মুক্তি পেয়েছেন তাসকিন-সৌম্যরা

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ , ১:০৭ অপরাহ্ণ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ , ১:১১ অপরাহ্ণ

নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে কেমন আছেন তামিম-মুশফিকরা? কোথায় আছেন? কতদিন কোয়ারেন্টাইনে কাটাতে হবে? এমন নানা ধরনের প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। করোনা ভাইরাসের কারণে নিউজিল্যান্ড পৌঁছেই সোজা রুম কোয়ারেন্টাইনে প্রবেশ করতে হয়েছে তামিম-মুশফিকদের তা আগেই জানা ছিল। তবে খুশির খবর হল-ক্রাইস্টচার্চে দুই দিন একই ঘরে বন্দি থাকার পর, অবশেষে আজ (শুক্রবার) বাইরে বের হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন তাসকিন আহমেদ, সৌম্য সরকাররা।

প্রথম দুই দিন যে যার হোটেল রুমেই আবদ্ধ ছিলেন। করোনা পরীক্ষা করে সবার নেগেটিভ আসায় আজ থেকে ৩০-৪০ মিনিট করে হাঁটার সুযোগ দেয়া হয়েছে। তবে পুরোপুরি মুক্তভাবে চলাফেরা করতে অপেক্ষা করতে হবে ১৪ দিন। আজ বন্দীদশা থেকে মুক্তি পেয়ে বেশ ফুরফুরে মেজাজে ছিলেন সৌম্য-তাসকিনরা।

তারা সতীর্থ খেলোয়াড় শেখ মেহেদি হাসান, ও সাইফউদ্দিনদের সঙ্গে দেখাও করতে পেরেছেন। সবমিলিয়ে রোমাঞ্চকর এক অনুভূতির কথা বলেছেন তাসকিন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মাধ্যমে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় তাসকিন বলেন, নিউজিল্যান্ডে কোয়ারেন্টাইনে বেশ কঠিন নিয়ম কানুন মানতে হয়। এখানে আইসোলেশন একটা আলাদা অভিজ্ঞতা। তাছাড়া আগে কখনও এভাবে সময় কাটানো হয়নি। প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পর আমরা ৩০-৪০ মিনিটের জন্য হাঁটার সুযোগ পেয়েছি। সবার মাঝে ২ মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হয়েছে। যাইহোক ভালো লাগছে যে, দুইদিন একদম বন্দি রুমে থাকার পর বাইরে হাঁটার সুযোগ পেলাম। প্রথম করোনা পরীক্ষায় সবার নেগেটিভ আসার পর আমাদের হাঁটতে দিয়েছে। এরপর আল্লাহ চাইলে আমরা অনুশীলন শুরু করতে পারব। সবমিলিয়ে আলাদা অনুভূতি।

ঘরের মধ্যে ঘরের মধ্যে বন্দি অবস্থায় পরিবারের সঙ্গে ফোনে কথা বলে, সিনেমা দেখে সময় কাটছে। বিসিবি থেকে আমাদের কিছু শরীরচর্চারও ব্যবস্থা করে দিয়েছে। কিছু নিয়মকানুন ও কর্মসূচি দেয়া হয়েছে। ঘরে যেসব শরীরচর্চা করা সম্ভব সেগুলো করার জন্য। তো সবমিলিয়ে এভাবেই সময়টা কেটে যাচ্ছে। কিছু সময় শরীর চর্চা, সিনেমা দেখা ও পরিবারের সঙ্গে কথা বলে এভাবেই সময় যাচ্ছে।

তবে যাই হোক নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে কঠোর কোয়ারেন্টাইন নিয়ম মেনে চলতে হবে। লম্বা এই সফরে তিনটি ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। ২০, ২৩ ও ২৬ মার্চ হবে তিনটি ওয়ানডে; ভেন্যু যথাক্রমে ডানেডিন, ক্রাইস্টচার্চ ও ওয়েলিংটন।

এছাড়া ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে দুই দল। ম্যাচ তিনটি ২৮, ৩০ মার্চ ও ১ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে। নেপিয়ার, অকল্যান্ড ও হ্যামিল্টনে হবে কুড়ি ওভারের সিরিজ।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়