ভাষা শহীদদের স্মরণে জ্বলবে লাখো প্রদীপ

আগের সংবাদ

রাজধানীর কুমিল্লা পট্টিতে অগ্নিকাণ্ড (ভিডিও)

পরের সংবাদ

বগুড়ায় এমপিকে ছাত্রলীগের ধাওয়া, পুলিশ ফাঁড়িতে আশ্রয়

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১ , ৫:০৬ অপরাহ্ণ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১ , ৮:৫৫ অপরাহ্ণ

বগুড়ায় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে ফেরার পথে ছাত্রলীগের তোপের মুখে পড়েন বগুড়া জেলা বিএনপির আহবায়ক ও সদর আসনের সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ। ছাত্রলীগের ধাওয়া খেয়ে তিনি শহীদ মিনার সংলগ্ন পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেন। রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল পৌঁনে ৯টার দিকে শহরের শহীদ খোকন পার্ক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের নেতৃত্বে বগুড়া জেলা বিএনপি শহীদ খোকন পার্কে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন। শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে ফিরছিলেন। শহীদ খোকন পার্কের গেটে পৌঁছালে শহীদ মিনার চত্বরে অবস্থানরত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে রাজাকার আখ্যায়িত করে স্লোগান দেন। একপর্যায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে ধাওয়া করেন।

এ সময় নেতাকর্মীদেরকে সঙ্গে নিয়ে দ্রুত শহীদ মিনারের পাশে সদর পুলিশ ফাঁড়িতে আশ্রয় নেন তিনি। ফাঁড়ির প্রধান ফটক বন্ধ করে দিয়ে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজসহ নেতাকর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে পুলিশ। ছাত্রলীগের শতাধিক নেতাকর্মী পুলিশ ফাঁড়ির সামনে সিরাজবিরোধী স্লোগান দেন। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ফিরে গেলে পুলিশ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজসহ বিএনপি নেতাকর্মীদের নবাববাড়ি সড়কে দলীয় কার্যালয়ে নিরাপদে পৌঁছে দেয়। পরে বিএনপি দলীয় কার্যালয়ের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

বগুড়া সদর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) খোরশেদ আলম বলেন, পুলিশ ফাঁড়ি থেকে এমপিসহ নেতাকর্মীদের কার্যালয়ে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদেরও পুলিশ ফাঁড়ির সামনে থেকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

বগুড়া সদর থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজসহ বিএনপি নেতারা শহীদ মিনার থেকে হেঁটে আসার সময় পেছন থেকে ধাওয়া করে। তবে পুলিশের দ্রুত তৎপরতায় পরিস্থিতি শান্ত হয়।

ওই ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে ছাত্রলীগ বগুড়া জেলা কমিটির সভাপতি নাইমুর রাজ্জাক তিতাস বলেন, বিএনপি নেতারা আমাদের নেত্রীর বিরুদ্ধে কটূক্তিমূলক স্লোগান দেওয়ায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ জানিয়ে পাল্টা স্লোগান দিয়েছে।

সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ ওই ঘটনাটিকে ‘ন্যাক্কারজনক’ উল্লেখ করে বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারির মতো পবিত্রতম দিনে ছাত্রলীগ নামধারী ছেলেদের এমন আচরণ সত্যিই দুঃখজনক।

তাকে লক্ষ্য করে ‘রাজাকার’ স্লোগান দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ ধরনের শব্দ অতীতে কখনও কেউ আমাকে উদ্দেশ্য করে বলেনি। তারা কেন বলছে সেটা আমার বোধগম্য নয়।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়