শিরোপা পুনরুদ্ধার করলেন ওসাকা

আগের সংবাদ

করোনার চেয়েও ভয়ংকর বিভাজিত পৃথিবী: গুতেরেস

পরের সংবাদ

স্মৃতির মণিকোঠায় এটিএম শামসুজ্জামান

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২১ , ৫:৪৪ অপরাহ্ণ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২১ , ৫:৪৭ অপরাহ্ণ

অনন্তলোকে চলে গেলেন কিংবদন্তি অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান। তার এমন আকস্মিক মৃত্যুতে শোকাচ্ছন্ন গোটা চলচ্চিত্রাঙ্গন। শক্তিমান এ অভিনেতাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেছেন চলচ্চিত্র অঙ্গনের কয়েকজন তারকাশিল্পী।

চিত্রনায়ক রিয়াজ আহমেদ,

তার মধ্যে প্রজ্ঞা ছিল
রিয়াজ আহমেদ, চিত্রনায়ক

এটিএম আংকেল অসম্ভব ভালো একজন মানুষ ছিলেন। তার প্রথম পরিচালনায় নির্মিত ‘এবাদত’ নামে ছবিতে আমি কাজ করেছিলাম। আমাদের মধ্যে এক ধরনের ভালো বন্ডেজ ছিল। এবং লোকটা এতো বড় একজন গুণী শিল্পী ছিলেন, তার শিল্পীসত্তা নিয়ে কথা বলার সাহস আমার নেই। মানুষ হিসেবে অসম্ভব বড় মনের একজন মানুষ ছিলেন। আমি কখনো তাকে নামাজ কাজা করতে দেখিনি। অসংখ্য বার হজ পালন করেছেন তিনি। আর তার মৃত্যু আমাদের চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রিতে আরো একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রের পতন, এ কথাই বলবো। তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করি। যখন এটিএম আংকেল অসুস্থ হয়েছিলেন, তখন আমি আমার পরিবারসহ হাসপাতালে তাকে দেখতে গিয়েছিলাম। এটিএম আংকেলকে ওই রকম অবস্থায় আমি কখনো দেখতে চাইনি। অসুস্থ অবস্থায় তিনি খুব কষ্ট পাচ্ছিলেন। অনেকবার মৃত্যুর গুঁজব ছড়ালো। এবার সত্যিই আমাদের ছেড়ে চলে গেল। বাংলা সিনেমা নিয়ে তার অনেক স্বপ্ন ছিল, মায়া ছিল। তার মধ্যে প্রজ্ঞা ছিল। সিনেমা নিয়ে ভাবনা ছিল।

ওমর সানি

সারা জীবন ভুলবো না
ওমর সানি, চিত্রনায়ক
এটিএম শামসুজ্জামান। কিংবদন্তি চলচ্চিত্র অভিনেতা এবং চলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, কাহিনীকার, নাট্য অভিনেতা বহু গুণে গুণান্বিত একজন চলচ্চিত্রপ্রেমী সত্যি সত্যি আজ আমাদের ছেড়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন। তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি যেন মহান আল্লাহ পাক বেহেশত নসিব করেন, আমিন। আর আমার চাঁদের আলো থেকে যে সহযোগিতা করেছেন আমি সারা জীবন ভুলবো না ।

জয়া আহসান

একজন কিংবদন্তি শিল্পীকে হারালাম
জয়া আহসান, অভিনেত্রী
একজন কিংবদন্তি শিল্পীকে হারালাম। তিনি ছিলেন অত্যন্ত জ্ঞানী, বিচক্ষণ এবং দূরদৃষ্টি সম্পন্ন একজন মানুষ। গেরিলা এবং চোরাবালি চলচ্চিত্রে একসঙ্গে কাজ করার সৌভাগ্য হয়েছিল আমার। অনেক কথা, অনেক স্মৃতি। সেই সময় তার অফুরন্ত জ্ঞান এবং শুটিংয়ের সময় তার অভিজ্ঞতা আমাকে শিল্পী এবং মানুষ হিসেবেও অনেক পরিণত করেছে। তার শৈল্পিক গুণে ফুটিয়ে তোলা প্রতিটি চরিত্র উজ্জ্বল হয়ে থাকবে আমাদের মনে।

চঞ্চল চৌধুরী

আর হলো না দেখা
চঞ্চল চৌধুরী, অভিনেতা
শেষ পর্যন্ত সত্যটা হলো…এটিএম ভাই চলে গেলেন…আর হলো না দেখা…কত সময়, কত স্মৃতি…আবেগ তাড়িত হচ্ছি খুব…অপার শ্রদ্ধা…শান্তিতে থাকুন আপন মানুষ এটিএম শামসুজ্জামান।

মোহাম্মদ বারী

তার সঙ্গে অভিনয়ের স্মৃতি অনন্য অভিজ্ঞতার
মোহাম্মদ বারী, অভিনেতা
ছয় দশকের অধিককাল বাংলা চলচ্চিত্র ও নাটকের দর্শক হৃদয়ে বিপুল সম্মানে ভূষিত অভিনেতা তিনি। তার সঙ্গে অভিনয়ের স্মৃতি আমার জীবনের অনন্য অভিজ্ঞতা। তার থেকে শেখার আছে অনেক কিছু৷ কিন্তু তিনি তাড়াতাড়িই চলে গেলেন আমাদের ছেড়ে। যা আমাদের সংস্কৃতির জন্য অফুরন্ত ক্ষতি।

মাসুম রেজা

তিনি আমার শিক্ষক ছিলেন
মাসুম রেজা, নাট্যকার
তার বাড়ির বৈঠকখানায় কোনো সোফা চেয়ার ছিল না, কেবল নরম তক্তপোশ বিছানো ছিল। সেই তক্তপোশে বসে তার তত্ত্বাবধানে আমি মোল্লা বাড়ির বউ সিনেমার স্ক্রিপ্ট লিখেছিলাম। তিনি আমার শিক্ষক ছিলেন। তিনি আমার অন্তরে থাকবেন চিরদিন।

জাহারা মিতু

তিনি তার চরিত্রকে বাস্তবে রূপ দিতেন
জাহারা মিতু, চিত্রনায়িকা
তিনি তার চরিত্রকে বাস্তবে রূপ দিতেন। ছোটবেলায় তার জাঁদরেল অভিনয় দেখে তাকে ঘৃণা করেছি আবার কমেডি চরিত্রে দেখে হেসে লুটোপুটি খেয়েছি। যখন তিনি কাঁদতেন সঙ্গে আমরাও কেঁদেছি। আর যেদিন শুনেছি নিজের একসন্তানকে হত্যার দায়ে তিনি অন্য সন্তানের বিচার চেয়ে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়েছেন, সত্যি বলছি পর্দার আড়ালের সেই মানুষটার নৈতিকতা, কঠোরতা, নিষ্ঠা আর আবেগ সম্পর্কে সেদিন বুঝেছি। কী এক জ্বলন্ত উদাহরণ তিনি। একজন মানুষ হিসেবে, বাবা হিসেবে, অভিনেতা হিসেবে। দুঃখ-কষ্ট সবারই থাকে, তবে এমন বর্ণাঢ্য জীবন কজন পায়? তিনি থাকবেন আমাদের মাঝে আজীবন।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়