বিয়ের ফাঁদে ফেলে মোহরানা আদায়ই এ নারীর কাজ

আগের সংবাদ

ভারতের ভূমিকা নিয়ে অসন্তোষ সংসদীয় কমিটির

পরের সংবাদ

ব্লগার অনন্ত হত্যা মামলায় বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেটসহ দুইজনের সাক্ষ্যগ্রহণ

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২১ , ৬:১৩ অপরাহ্ণ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২১ , ৬:১৩ অপরাহ্ণ

বিজ্ঞানমনস্ক লেখক ব্লগার অনন্ত বিজয় হত্যাকাণ্ডের মামলায় বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেটসহ দুইজনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সিলেটে সন্ত্রাস বিরোধী ট্রাইব্যুনালে এই সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

আসামি মান্নান ইয়াহিয়া ওরফে মান্নান রাহীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি লিপিবদ্ধকারী বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ারুল হক সাক্ষী হিসেবে ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত হয়ে সাক্ষ্যপ্রদান করেন। অপর সাক্ষী পুবালী ব্যাংকের জেষ্ঠ্য কর্মকর্তা সিরাজুল হক চৌধুরী এই মামলার জব্দতালিকার সাক্ষী ছিলেন। অনন্ত বিজয় দাশের বাসা সিপিইউ এবং কয়েকটি বই পুলিশ জব্দ করে, সেই জব্দতালিকার সাক্ষী হিসেবে আদালতে সাক্ষ্য প্রদান করলেন। আজ ১৭ এবং ১৮তম সাক্ষী হিসবে দুইজনের সাক্ষ্য সম্পন্ন হয়েছে।

সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ট্রাইব্যুনালের জজ মো. নুরুল আমিন বিপ্লব মামলাটির পরবর্তী তারিখ ২৪ ফেব্রুয়ারি বিচারের জন্যে ধার্য করেছেন। সিআইডির আরমান আলী তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্তশেষে সম্পূরক অভিযোগপত্রে সর্বমোট ২৯ জনকে সাক্ষী মান্য করে আদালতে ২০০৯ সালের সন্ত্রাস বিরোধী আইনে গত ২০১৭ সালের ১৮ জানুয়ারি অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। আজ ১৭ এবং ১৮তম সাক্ষী হিসবে দুইজনের সাক্ষ্য সম্পন্ন হয়েছে। চাঞ্চল্যকর এই মামলায় মোট ১৮জন সাক্ষীর সাক্ষ্য সম্পন্ন হল।

সিলেটের আলোচিত হত্যাকাণ্ডের বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে দেরিতে।এই মামলার আসামি মান্নান ইয়াহিয়া,আবুল খয়ের রশিদ আহমদ,শফিউর রহমান ফারাবী,আবুল হোসেন,ফয়সল আহমদ,হারুন অর রশিদকে অভিযুক্ত করে বিচার শুরু হয়।এর মধ্যে মান্নান ইয়াহিয়া কারাগারে আটক অবস্থায় মারা যায়।বর্তমানে আবুল খয়ের রশিদ আহমদ ও শফিউর রহমান ফারাবী কারাগারে আটক এবং অপর আসামিরা শুরু থেকেই পলাতক রয়েছেন। আসামি ০৩ জনকে পলাতক রেখেই বিচার শুরু হয়। আজ কারাগারে আটক আসামি আবুল খায়ের রশিদ আহমদকে সিলেট কারাগার থেকে এবং শফিউর রহমান ফারাবী ঢাকা কারাগার থেকে ট্রাইব্যুনালে উপস্থাপন করা হয়।

মুক্তচিন্তার লেখক অনন্ত বিজয় দাশ খুনের মামলায় এজাহারদাতাপক্ষে আইনজীবী হিসেবে মামলা পরিচালনায় আজ অংশ নেন এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম অ্যাডভোকেট,অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ মনির উদ্দিন।আসামি পক্ষের আইনজীবী হিসেবে অংশ নেন অ্যাডভোকেট শাহ আলম মহি উদ্দিন এবং অ্যাডভোকেট জাকিয়া তাহমিনা রিপা।

বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী লেখক অনন্ত বিজয় দাশকে ধর্মীয় উগ্রবাদী জঙ্গিরা প্রকাশ্যে নির্মমভাবে খুন করে।গত ১২ মে ২০১৫ সালে নিজ বাসা থেকে কর্মস্থলে ব্যাংকে যাওয়ার পথে সকাল সাড়ে ০৮টায় তাকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়।উল্লিখিত আসামিগণ সিলেটের সুবিদবাজার এলাকায় দস্তিদার দিঘীর দক্ষিণপার সংলগ্ন পাকারাস্তার উপর উপর্যপুরি চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে তাকে খুন করে

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়