শুভ জন্মদিন নায়করাজ রাজ্জাক

আগের সংবাদ

ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু ২৭ জানুয়ারি, প্রথমেই পাচ্ছেন নার্স

পরের সংবাদ

এবিসিডি কীভাবে সুন্দর করে উচ্চারণ করতে হয় তার কাছে শেখা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২১ , ১২:৩৭ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২৩, ২০২১ , ১২:৩৮ অপরাহ্ণ

বহুমাত্রিক সঙ্গীত প্রতিভার অধিকারী আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। বেড়ে ওঠেন একজন গিটারিস্ট হিসেবে। মাত্র ১৫ বছর বয়সে অংশ নেন মুক্তিযুদ্ধে। পরবর্তী সময়ে শুধু গিটারে সীমাবদ্ধ না থেকে গান লেখা, সুর করা এবং সঙ্গীত পরিচালনায় যুক্ত হন তিনি। পরিচিতি পান একজন সুরকার, গীতিকার ও সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে। ২০১৯ সালের ২২ জানুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। এই কিংবদন্তিকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে স্মৃতিচারণ করেছেন সঙ্গীতশিল্পী আগুন। বাবা খান আতাউর রহমানের কারণে খুব ছোটবেলা থেকেই গুণী এই সুরকারের সান্নিধ্য পেয়েছেন তিনি।

আগুন জানালেন, ইমতিয়াজ বুলবুলকে একদম ছোটবেলা থেকেই আমি চিনি। আব্বার সঙ্গে পরিচয় ছিল, আমি তাকে ‘বুলবুল চাচা’ বলে ডাকতাম। সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে তাকে চিনি না, একজন গিটারিস্ট হিসেবেই চিনি। বুলবুল চাচাই ছোটবেলা আমাকে বলত, বিটলস শুনেছিস নাকি অথবা ওই গানটা শুনেছিস নাকি? কিংবা এবিসিডি কীভাবে সুন্দর করে উচ্চারণ করতে হয়। এই ব্যাপারগুলোতে বুলবুল চাচা ছিলেন হিরো, আমার কাছেও তিনি হিরো। তার সঙ্গে আমি প্রচুর কাজ করেছি। তার গানে সালমান শাহ, ডিপজল, দিলদার, আফজাল শরীফ; সবার কাজ হয়েছে। বিভিন্ন রকমের গানে কাজ করেছি তার সঙ্গে। অদ্ভুত অদ্ভুত ধরনের কাজ করেছি।

এই শিল্পী আরো জানান, বুলবুল চাচার সঙ্গে জমতোও আমার দারুণ। তিনি শিক্ষিত ছিলেন তো, তাই কথা বললে মগ্ন হয়ে যেতাম একদম। তার সঙ্গে প্রথম যেদিন কাজ করি, তখন একদিন তিনি আমাকে ডাকলেন সিম্ফোনি স্টুডিওতে। কাজ করার পর বলল, ‘এই নে তোর ইনক্রিমেন্ট করে দিলাম। তোকে দেড় হাজার টাকা দিতাম, আজ থেকে তোর দুই হাজার টাকা। তুই কি দেড় হাজার টাকার শিল্পী না কি ব্যাটা, আজ থেকে তুই দুই হাজার টাকার শিল্পী। বুলবুল চাচার সঙ্গে আমার সফট মেলোডিয়াস সুইট গানের কাজ কম হয়েছে। যেগুলো হয়েছে সেগুলো একদম রকিং কিছু হয়েছে। খুব ছোটবেলায় আমরা যখন মোহাম্মাদপুরের বাসায় থাকি তখন তিনি মাঝে মাঝে আসতেন। বুলবুল চাচা গিটার বাজাতেন আর প্রয়াত পরিচালক আমির হোসেন বাবু তিনি গামবুট পরে নাচতেন। সুপার! আব্বার সেই ফেলা আসা ড্রয়িং রুম, তাদের আড্ডাগুলো আমার চোখে ভাসে।’ হ মেলা প্রতিবেদক

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়