ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী সেরাম ইন্সটিটিউটে আগুন

আগের সংবাদ

হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন মওদুদ আহমদ

পরের সংবাদ

বাঁধা উপেক্ষা করে ডিএনসিসির উচ্ছেদ অভিযান

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২১ , ৪:৫৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২১, ২০২১ , ৪:৫৬ অপরাহ্ণ

স্থানীয় ব্যবসায়ী ও বিহারিদের বাঁধা উপেক্ষা করে রাজধানীর মিরপুর-১১ নম্বরের ৪ নম্বর অ্যাভিনিউয়ে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এ সময় গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে রাস্তার পাশে থাকা শতাধিক অবৈধ দোকান।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় অভিযান শুরু করতে চাইলে স্থানীয় বিহারি ও ব্যবসায়ীদের বাধার মুখে পড়েন ম্যাজিস্ট্রেট ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। পরবর্তীতে ১১টার দিকে একটি দোকান ভাঙা হলে অভিযান পরিচালনাকারীদের ওপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ শুরু হয়। দফায় দফায় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় সিটি করপোরেশনের একজন চালকসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। ইট-পাটকেলের আঘাতে ভেঙে যায় কয়েকটি বুলডোজারের গ্লাস।

আগে থেকে উচ্ছেদের খবর থাকায় মিরপুর-১১ নম্বরের ৪ নম্বর অ্যাভিনিউয়ের সব দোকানপাট বন্ধ ছিল। এছাড়া আশপাশেরও দোকানপাট বন্ধ করে রাখেন ব্যবসায়ীরা। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাকালে উপস্থিত হন ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, বৃহত্তর স্বার্থে এই উচ্ছেদ অভিযান। এতে স্থানীয়দেরও সমর্থন রয়েছে। কিছু কিছু অসাধু ব্যক্তি নিজেদের স্বার্থ বিবেচনায় এ ধরনের ইটপাটকেল কিংবা উচ্ছেদ অভিযানে বাধাগ্রস্ত করছে। যত ধরনের বাধাই আসুক না কেন উচ্ছেদ অভিযান চলমান থাকবে। তাদেরকে বিভিন্ন সময়ে সিটি করপোরেশন থেকে নোটিশ দেয়া হয়েছিল। তারা সে নোটিস আমলে নেয়নি। বরং উচ্ছেদ অভিযান বাধাগ্রস্ত করছে। জনগণের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে উচ্ছেদ পরবর্তী রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ করা হবে।

তবে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলছেন, বুধবার মৌখিকভাবে দোকান ভাঙার বিষয়টি সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। স্বল্প সময়ে দোকান থেকে মালপত্র তেমন বের করা সম্ভব হয়নি। অনেকে অভিযোগ করেন, সিটি করপোরেশন ভাঙা কিংবা উচ্ছেদের বিষয়টি তাদেরকে জানায়নি। এতে তারা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। কোনো জন্য বিকল্প ব্যবস্থা না করে, উচ্ছেদ অভিযান চালানোয় ক্ষোভ জানান ব্যবসায়ীরা।

অভিযানের নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ। তিনি বলেন, রাস্তর দুপাশে ফুটপাতের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের মাস্টারপ্ল্যানে ৬৮ ফুট রাস্তার কথা বলা থাকলেও, অবৈধ দখলের কারণে রাস্তার পরিধি কমে যায়। রাস্তা দখলমুক্ত করতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়