সেরাম ইনস্টিটিউটের অগ্নিকাণ্ডে প্রাণ হারাল ৫ জন

আগের সংবাদ

নিষিদ্ধ ট্রাক্টরে অতিষ্ঠ জনজীবন

পরের সংবাদ

নিকোটিন নয়, সিগারেটের ধোঁয়াই মৃত্যুর কারণ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২১ , ৮:০৫ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২১, ২০২১ , ৮:০৫ অপরাহ্ণ

ধূমপান বছরে বহু মৃত্যুর কারণ হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাবে বছরে ৮০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয় সিগারেট এবং তামাকজাত পণ্য দ্রব্যের ব্যবহারের কারণে। গবেষকদের মতে, নিকোটিন নয় বরং সিগারেটের কারণে সৃষ্ট ধোঁয়াই মৃত্যু ঝুঁঁকির কারণ।

কানাডার অটোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর হেলথ ল’-এর অধ্যাপক ডেভিড টি সুইনর এ সংক্রান্ত গবেষণা করেছেন। তিনি বলেন, বহু দশক ধরেই সিগারেটের ধোঁয়ার স্বাস্থ্য ঝুঁকি নিয়ে গবেষণা হচ্ছে। ১৯৭০ এর দশক থেকেই ধূমপানকে ক্যানসার, হৃদরোগ, এবং ফুসফুসের নানা সমস্যার প্রধান কারণ হিসেবে জেনে আসছি।

ধূমপান হ্রাসের বৈশ্বিক লড়াইয়ের অন্যতম যোদ্ধা ডেভিড। চার দশক ধরে তিনি এই লড়াইয়ে সম্পৃক্ত। তিনি মনে করেন, ধূমপান হ্রাস বিশ্বের জন্য অন্যতম চ্যালেঞ্জ এবং তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের কারণে ক্ষতিকর প্রভাবের তথ্য বৈশ্বিক জনস্বাস্থের জন্য অন্যতম বড় অর্জন।

ডেভিড বলেন, আমাদের শরীর ধোঁয়া গ্রহণ করতে পারে না। দীর্ঘদিন ধরে শরীরে ধোঁয়া প্রবেশ করলে ক্ষতিকর প্রতিক্রিয়া হয়। ধূমপানে যে ধরনের অসুখ হয়, একই ধরনের অসুখের দেখা মেলে পাচকদের শরীরে। যারা এমন কক্ষে বহুদিন ধরে রান্না করেন যেখানে বাতাস চলাচলের সুব্যবস্থা নেই। আবার দীর্ঘদিন ধরে দমকল বাহিনীতে কাজ করা অনেকের শরীরেরও একই ধরনের অসুখ পাওয়া যায়।

তিনি বলেন, এতদিনের ধারণা, নিকোটিনের কারণে মৃত্যু হচ্ছে। তবে নিকোটিন সমস্যা নয়, প্রধান সমস্যা হচ্ছে তামাক পুড়ে সৃষ্ট ধোঁয়া। এই ক্ষতিকর ধোঁয়ার কারণেই দিনে গড়ে ২০ হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে।

তিনি বলেন, ভেপিং প্রযুক্তিতে নিকোটিন পুড়িয়ে ধোঁয়া হিসেবে নেয়া হয়। ফলে তা তুলনামূলক অনেক কম ক্ষতিকর। ভেপিং প্রযুক্তি হিট সৃষ্টি করে নিকোটিন শরীরে নেয়া হয়। ফলে না পোড়ানোয় ধোঁয়া থেকে সৃষ্ট ক্ষতির শঙ্কা এখানে কম।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়