পঞ্চগড়ে বঙ্গবন্ধু হিমালয় ওয়াচ টাওয়ার স্থাপনের দাবি

আগের সংবাদ

শেখ হাসিনার নামে পদ্মা সেতুর নামকরণের নির্দেশনা চেয়ে রিট

পরের সংবাদ

সংবাদ সম্মেলনে এসে কাঁদলেন আ.লীগ নেতার স্ত্রী

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২০, ২০২১ , ৩:৪৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২০, ২০২১ , ৩:৪৯ অপরাহ্ণ

বরগুনার পাথরঘাটায় ছ্যানা-রডসহ সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ছাত্রলীগের সাবেক দুই নেতা এনামুল হোসেন ও নাঈমুল রাব্বির বিরুদ্ধে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলামের ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাথরঘাটা প্রেসক্লাবে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে লিখিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেছেন হামলার শিকার আ. লীগ নেতা শহিদুল ইসলামের স্ত্রী আসমা বেগম।

এনামুল হোসাইন পাথরঘাটা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা গুলশান জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) নাজমুল আহসানের ছোট ভাই এবং নাঈমুল রাব্বি পাথরঘাটা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

আসমা বেগম চরদুয়ানী ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

লিখিত সংবাদ সম্মেলনে কান্না জড়িত কণ্ঠে আসমা বেগম বলেন, গত ১৮ জানুয়ারি বেলা সাড়ে ১২টার দিকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পাথরঘাটার জ্ঞানপাড়া চৌরাস্তায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এনামুল হোসেনের নেতৃত্বে তিনটি মোটরসাইকেলে ৯-১০ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে আমার স্বামী শহিদুল ইসলামকে ধাওয়া করে। এ সময় প্রাণভয়ে আমার স্বামী শহিদুল ইসলাম ওই ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মজিবর রহমানের বাড়িতে আশ্রয় নিলে ওই ঘরের দরজা ভেঙে শহিদুল ইসলামকে ছ্যানা, রড ও পাইপ দিয়ে আঘাত করে জখম করেন। এ সময় ইউপি সদস্য মজিবুর রহমানের স্ত্রী আয়েশা বেগম বাধা দিলে তাকেও আঘাত করে জখম করা হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের দুজনকে উদ্ধার করে পাথরঘাটা হাসপাতালে ভর্তি করে।

হাসপাতালে শহিদুল ইসলামের অবস্থা গুরুতর হলে তাকে মঙ্গলবার বিকেলে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

শহিদুল ইসলামের বাবা শাহজাহান হাওলাদার বলেন, আমার ছেলে শহিদুল ইসলাম প্রাণ বাঁচাতে ইউপি সদস্য মজিবুর রহমানের বাড়িতে আশ্রয় নিলে সেখানেও তার শেষ রক্ষা হয়নি।

এনামুল হোসাইনের নেতৃত্বে ছ্যানা-রড নিয়ে ৮ থেকে ১০ জনে দলবল নিয়ে হামলা করেছে। এনামুল হোসাইন এএসপির ছোট ভাই হাওয়ায় তার বিরুদ্ধে আমরা মামলা করতে পর্যন্ত সাহস পাচ্ছি না। এ অবস্থায় আমার ছেলে হাসপাতলে কাতরাচ্ছে।

শাহজাহান হাওলাদার আরও বলেন, এনামুল হোসাইন পাথরঘাটা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক কিন্তু পাথরঘাটা থানা ও প্রশাসনসহ সকল স্থানে তিনি নিজেকে উপজেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে এনামুল হোসাইন বলেন, এ ঘটনায় আমি ওখানে উপস্থিতও ছিলাম না এবং জড়িত নই।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়